পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/৩০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দুই বিঘা জমি শুধু বিঘে দুই ছিল মোর ভুই, আর সব গেছে ঋণে । বাবু বলিলেন, “বুঝেছ উপেন, এ জমি লইব কিনে ৷” কহিলাম আমি “তুমি ভূস্বামী, ভূমির অন্ত নাই ; চেয়ে দেখ মোর আছে বড়-জোর মরিবার মত ঠাই ।” শুনি রাজা কহে “বাপু, জানত হে, করেছি বাগানখানা, পেলে দুই বিঘে প্রস্থে ও দীঘে সমান হইবে টানা,— ওটা দিতে হবে।”—কহিলাম তবে বক্ষে জুড়িয়া পাণি সজল চক্ষে, “করুন রক্ষে গরীবের ভিটেখানি । সপ্তপুরুষ যেথায় মানুষ সে মাটি সোনার বাড়া, দৈন্ত্যের দায়ে বেচিব সে মায়ে, এমনি লক্ষীছাড়া ?” আঁখি করি লাল রাজা ক্ষণকাল রহিল মৌনভাবে, কহিলেন শেষে ক্রুর হাসি হেসে, “আচ্ছা সে দেখা যাবে।” পরে মাস দেড়ে ভিটেমাটি ছেড়ে বাহির হইনু পথে— করিল ডিক্রি, সকলি বিক্রি মিথ্যা দেনার খতে । এ জগতে, হায়, সেই বেশি চায় আছে যার ভূরি ভূরি। রাজার হস্ত করে সমস্ত কাঙালের ধন চুরি। মনে ভাবিলাম মোরে ভগবান রাখিবে না মোহগর্তে, তাই লিখি দিল বিশ্ব-নিখিল দু-বিঘার পরিবর্তে । ՀեrՏ 3–19