পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী চলিতে চলিতে পথে হেরি দুইধারে শরতের শস্তক্ষেত্র নত শস্যভারে রৌদ্র পোহাইছে। তরুশ্রেণী উদাসীন রাজপথপাশে, চেয়ে আছে সারাদিন আপন ছায়ার পানে বহে খরবেগ শরতের ভর। গঙ্গা । শুভ্ৰ খণ্ডমেঘ মাতৃদুগ্ধ-পরিতৃপ্ত সুখনিদ্রারত সদ্যোজাত সুকুমার গোবৎসের মত নীলাম্বরে শুয়ে —দীপ্ত রৌদ্রে অনাবৃত যুগযুগান্তরক্লান্ত দিগন্তবিস্তৃত ধরণীর পানে চেয়ে ফেলিলু নিশ্বাস । কি গভীর দুঃখে মগ্ন সমস্ত আকাশ, সমস্ত পৃথিবী। চলিতেছি যতদূর শুনিতেছি একমাত্র মৰ্ম্মান্তিক সুর “যেতে আমি দিব না তোমায়।” ধরণীর প্রান্ত হ’তে নীলাভ্রের সর্বপ্রান্ততীর ধ্বনিতেছে চিরকাল অনাদ্যন্ত রবে o “যেতে নাহি দিব। যেতে নাহি দিব।” সবে কহে “যেতে নাহি দিব।” তৃণ ক্ষুদ্র অতি তারেও বাধিয়া বক্ষে মাতা বসুমতী ԳՆ