পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বলে খোলা রাস্ত না থাকাই ভালো—রাস্তা পেলেই প্রজার বেরিয়ে চলে যাবে। এদেশে উণ্টো, যেতেও কেউ ঠেকায় না, আসতেও কেউ মানা করে ন—তবু মানুষও ত ঢের দেখছি—এমন খোলা পেলে আমাদের রাজ্য উজাড় হ’য়ে যেত । প্রথম । ওহে জনাৰ্দ্দন, তোমার ঐ একটা বড় দোষ । জনাৰ্দ্দন । কি দোষ দেখলে ? প্রথম। নিজের দেশের তুমি বড় নিন্দে কর । খোল রাস্তাটাই বুঝি ভালো হ’ল ? বল ত ভাই কৌণ্ডিল্য, খোলা রাস্তটাকে বলে কিনা ভালো ! কৌণ্ডিল্য । ভাই ভবদত্ত, বরাবরই ত দেখে আসচ জনাৰ্দ্দনের ঐ এক রকম ত্যাড়া বুদ্ধি । কোন দিন বিপদে পড়বেন—রজার কানে যদি যায় তাহ’লে ম’লে ও কে শ্মশানে ফেলবার লোক খুঁজে পাবেন না । ভবদত্ত । আমাদের ত ভাই এই খোলা রাস্তর দেশে এসে অবধি খেয়ে-শুয়ে সুখ নেই—দিনরাত গা-ঘিনঘিন করচে । কে আসচে কে যাচ্চে তা’র কোনো ঠিকঠিকানাই নেই—রাম রাম ! কৌণ্ডিল্য। সেও ঐ জনর্দিনের পরামর্শ শুনেই এসেছি । আমাদের গুষ্টিতে এমন কখনো হয় নি । আমার বাবাকে ত জান—কতবড় মহাত্মালোক ছিল—শাস্ত্রমতে ঠিক উনপঞ্চাশ হাত মেপে গণ্ডী কেটে তা’র ૨૨