পাতা:কাব্যগ্রন্থ (ষষ্ঠ খণ্ড).pdf/১৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজা ও রাণী শঙ্করের প্রবেশ শঙ্কর প্রভু তুমি, তুমি মোর রাজা, ক্ষমা কর বৃদ্ধ এ শঙ্করে। ক্ষমা কর রাণি, দিদি মোর ! মোরে কেন পাঠাইলে দূত করে রাজার শিবিরে ? আমি বৃদ্ধ, নহি পটু সাবধান বচন বিন্যাসে, আমি কি সহিতে পারি তব অপমান ?— শান্তির প্রস্তাব শুনে যখন হাসিল ক্ষুদ্র জয়সেন, হাসিমুখে ভৃত্য যুধাজিৎ করিল হুতীব্র উপহাস,—সভ্রভঙ্গে কহিলা বিক্রমদেব জলন্ধররাজ তোমারে বালক, ভীরু ; মনে হ’ল যেন চারিদিকে হাসিতেছে সভাসদ যত পরস্পর মুখ চেয়ে, হাসিতেছে দূরে দ্বারের প্রহরী—পশ্চাতে আছিল যারা তাদের নীরব হাসি ভুজঙ্গের মত যেন পৃষ্ঠে আসি মোর দংশিতে লাগিল । তখন ভুলিয়া গেনু শিখেছিনু যত শান্তিপূর্ণ মৃদুবাক্য, কহিলাম রোষে— “কলহেরে জান তুমি বীরত্ব বলিয়া, X 3) a