পাতা:কাম-সূত্রম্‌ - পঞ্চানন তর্করত্ন.pdf/১০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

IR কাম-সূত্ৰম্। মুলক আইন ও ছিল না, করিতে নিষেধও ছিল না। রাজবিধিতে নিষেধ না থাকায় ঐ প্রকার “পুনর্ভু গ্রহণে রাজদণ্ড হইত না। পক্ষান্তরে যোগ্য পতিসত্ত্বে কোন রমণী পরপুরুষ গ্ৰহণ করিলে, তাহাতে রাজদণ্ড হইত। পঞ্চ আপদে পুনর্ভু রমণীগণের কলিকালে রাজদণ্ড নাই—এই রাজদণ্ড রহিত করিবার জন্যই পরাশরের বচন, কিন্তু এ কাৰ্য্য যে ধৰ্ম্মনুমোদিত নহে-তাহা এই কামসুত্রেই বিরত ( ভাৰ্য্যাধিকারিক ৩য় অধিকরণ ২য় অঃ পুনর্ভূপ্রকরণ ৩৯ সুত্ৰ হইতে দ্রষ্টব্য) পরাশর ও অপর বিধবা ধৰ্ম্মে যে পারিত্রিক শুভ ফল প্ৰদৰ্শন করিয়াছেন, পুরুষান্তরগ্রহণে তাহা করেন নাই--আর করেন নাই পৌনর্ভব পুত্রের পুত্ৰ হকীৰ্ত্তন,—মনু, পুনর্ভু পুত্রকেও অপকৃষ্ট পুত্র মধ্যে গণ্য করিয়াছেন -(মনু, ৯ অঃ ১৫৯৷৷১৬০ শ্লোক দ্রষ্টব্য) কিন্তু পরাশর তাহা করেন নাই,- তিনি বলেন-“ঔরস: ক্ষেত্ৰজশ্চৈব দত্তঃ কৃত্রিম এব চ” এই মাত্র পুত্র ;-ইহাব সহজ বাখ্যা-ঔরস, ক্ষেত্ৰজ, দত্তক ও কৃত্রিক এই চতুৰ্ব্বিধ পুত্ৰ-মনুর দ্বাদশ বিধ পুত্রের (মনু, ৯ অঃ ১৬৬—১৭৮) অষ্টবিধ পুত্র পরাশর রহিত করিলেন, —“দত্তৌরসেতরোষান্তু পুত্ৰত্বেন পারগ্রহঃ” এই কলিবৰ্জনপ্রকরণীয় বচনেব সাহিত একবাক্যতা করিলে এই বচনের অর্থ ঔরস এবং দত্তক এই দ্বিবিধ পুত্ৰই বিহিত হইয়াছে। “ক্ষেত্ৰজ” এইটী ঔরসে’র বিশেষণ এবং কৃত্ৰিম “দত্তের” বিশেষণ : ফলে দাড়াইল এইঃ-শাস্ত্রানুসারে যে রমণী স্বীয় ক্ষেত্ৰকাপে সিদ্ধ, তদগৰ্ভজাত নিজ সন্তান ঔরস ;- যথা-স্বে ক্ষেত্রে সংস্কৃতায়াস্তু স্বয়মুৎপাদয়েদ্ধি যম । ক্রমৌরসং বিজানীয়াৎ পুত্ৰং প্রথমকল্পিকম ৷ ( भट्टर क्षे०भ ख्य: S ४८ ' আর ক্লাত্রিম অর্থাৎ শাস্ত্রী মন্ত্রাদি কাৰ্য্যসম্পাদিত দত্তক কেবল এই দ্বিবিধ পুত্ৰ কলিকালে পুত্ৰ বলিয়া গণ্য ; অতএব পৌনর্ভবপুত্র পুত্ররূপে গণ্য নহে, ইহা পরাশরের মত বুঝা যাইতেছে। কামসূত্রকার श्रृंबर्टूछाङ পুত্রের যে পুত্ৰ স্বীকার করেন নাই, হঁহা পূর্বেই বলিয়াছি। পারলৌকিক সুখদুঃখের অপেক্ষ। না। রাখিয়া যাহারা ঐহিক ভোগ সুখের অন্বেষণে এবং ঐহিক দুঃখ পরিহা%ে