পাতা:কালান্তর - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কালান্তর বাধা দূর করবার একটা অতি ভয়ংকর এবং অতি প্রকাও যন্ত্র । এই যন্ত্র এক দিকে বিধান-অক্ষৌহিণী দিয়ে আমাদের চার দিকে বেড়ে ধরেছে ; আর-এক দিকে, যে বুদ্ধি, যে যুক্তি দ্বারা আমরা এর সঙ্গে লড়াই করে মুক্তিলাভ করতে পারতুম সেই বুদ্ধিকে, সেই যুক্তিকে একেবারে নিমূল করে কেটে দিয়েছে। তার পরে অন্ত দিকে অতি লঘু ক্রটির জন্তে অতি শুরু দণ্ড । খাওয়া শোওয়া ওঠা বসার তুচ্ছতম স্খলন সম্বন্ধে শাস্তি অতি কঠোর। এক দিকে মুঢ়তার ভারে অন্ত দিকে ভয়ের শাসনে মানুষকে অভিভূত করে জীবনযাত্রার অতিক্ষুদ্র খুটিনাটি সম্বন্ধেও তার স্বাভিরুচি ও স্বাধীনতাকে বিলুপ্ত করে দেওয়া হয়েছে। তার পরে ? তার পরে ভিক্ষা, ভিক্ষণ না মিললে কান্না । এই ভিক্ষ যদি অতি সহজেই মেলে, আর এই কান্ন। যদি অতি সহজেই থামে, তা হলে সকল প্রকার মারের চেয়ে, অপমানের চেয়ে সে আমাদের বড়ো দুৰ্গতির কারণ হবে । নিজেকে আমরা নিজে ছোটো করে রাখব, আর অন্তে আমাদের বড়ে অধিকার দিয়ে প্রশ্রয় দেবে, এই অভিশাপ বিধাতা আমাদের দেবেন না ব’লেই আমাদের এত দুঃখের পর দুঃখ । জাহাজের খোলের ভিতরটায় যখন জল বোঝাই হয়েছে তখনই জাহাজের বাইরেকার জলের মার সাংঘাতিক হয়ে ওঠে। ভিতরকার জলটা তেমন দৃশ্যমান নয়, তার চালচলন তেমন প্রচও নয় ; সে মারে ভারের দ্বারা, আঘাতের দ্বারা নয়, এই জন্তে বাইরের ঢেউয়ের চড়-চাপড়ের উপরেই দোষারোপ করে তৃপ্তি লাভ করা যেতে পারে । কিন্তু হয় মরতে হবে নয় এক দিন এই সুবুদ্ধি মাথায় আসবে যে, আসল মরণ ঐ ভিতরকার জলের মধ্যে, ওটাকে যত শীঘ্র পরিা যায় সেঁচে ফেলতেই হবে। কাজটা যদি ছুঃসাধ্যও হয় তবু এ কথা মনে রাখা চাই যে, সমুদ্র সেচে ফেলা সহজ নয়, তার চেয়ে সহজ থোলের জল সেচে ফেলা । এ কথা মনে রাখতে হবে, বাইরে বাধাবিঘ্ন বিরুদ্ধতা )●や