পাতা:কালান্তর - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


থেকেই। আজ পারের দিকে যাত্রা করেছি— পিছনেয় ঘাটে কী দেখে এলুম, কী রেখে এলুম, ইতিহাসের কী অকিঞ্চিৎকর উচ্ছিষ্ট সভ্যতাভিমানের পরিকীর্ণ ভগ্নস্ত,প । কিন্তু, মানুষের প্রতি বিশ্বাস হারানো পাপ, সে বিশ্বাস শেষ পর্বত্ত রক্ষা করব। আশা করৰ, মহাপ্রলয়ের পরে বৈরাগ্যের মেঘমুক্ত আকাশে ইতিহাসের একটি নির্মল আত্মপ্রকাশ হয়তো আরম্ভ হবে এই পূর্বাচলের হুর্যোদয়ের দিগন্ত থেকে, আর-এক দিন অপরাজিত মানুষ নিজের জয়যাত্রার অভিযানে সকল ৰাধা অতিক্রম করে অগ্রসর হবে তার মহৎ মৰ্যাদা ফিরে পাবার পথে । মকুন্তত্বের অন্তহীন প্রতিকারহীন পরাভবকে চরম বলে বিশ্বাস করাকে আমি অপরাধ মনে করি । এই কথা আজ বলে যাব, প্রবল প্রতাপশালীরও ক্ষমতা মদমত্ততা আত্মম্ভরিতা যে নিরাপদ লয় তারই প্রমাণ হবার দিন আজ সম্মুখে উপস্থিত হয়েছে ; নিশ্চিত এ সত্য প্রমাণিত হবে যে— 'ሎ অধৰ্মেশৈধতে তাবৎ ততো ভদ্রাণি পশুতি । । ততঃ সপত্নান জয়তি সমূলন্ত বিনশুতি ॥ μαμά"ιώωλη"Φ@ ঐ মহামানব জাগে দিকে নিকে রোমাঞ্চ লাগে মর্তগুলির ঘাসে ঘাসে। স্বরলোকে বেজে ওঠে শঙ্খ, নরলোকে বাজে জয়ভঙ্ক— এল মহাজন্মের লগ্ন। আজি আমারাজির স্বৰ্গতোরণ যত ধূদিতলে হয়ে গেল ভগ্ন। . به تارهٔ Aoe