পাতা:কালান্তর - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


লোকহিত দুরোপে লোকসাধারণ আজ যে এক হইয়া উঠিবার শক্তি পাইয়াছে তাহার কারণ এ নয় যে, তাহারা সকলেই পরম পণ্ডিত হইয়া উঠিয়াছে। হয়তো আমাদের দেশাভিমানীরা প্রমাণ করিয়া দিতে পারেন যে, পরীবিদ্যা বলিতে যাহা বুঝায় তাহ আমাদের দেশের সাধারণ লোকে তাছাদের চেয়ে বেশি বোঝে । কিন্তু, ইহাতে কোনো সন্দেহ নাই যে, যুরোপের সাধারণ লোকে লিখিতে পড়িতে শিখিয়া পরস্পরের কাছে পৌছিবার উপায় পাইয়াছে, হৃদয়ে হৃদয়ে গতিবিধির একটা মস্ত বাধা দূর হইয়া গেছে। এ কথা নিশ্চিত সত্য যে, যুরোপে লোকশিক্ষা BBBB BBBB DDBBB DSDS BB BK K DDB BBB DD সেখানে লোকসাধারণ নামক যে সত্তা আপনার শক্তির গৌরবে জাগিয়া উঠিয়া অপম প্রাপ্য দাবি করিতেছে তাছাকে দেখা যাইত না । প্তাহ পাইলে যে গরিব সে ক্ষণে ক্ষণে ধনীর প্রসাদ পাইয়া কৃতাৰ্থ হুইত, যে ভূ ত্য সে মলিবের পায়ের কাছে মাথা রাখিয়া পড়িয়া থাকিত এবং যে মজুর সে মহাজনের লাভের উচ্ছিষ্টকণ মাত্র খাইয়া ক্ষুধাদগ্ধ পেটের একটা কোণ মাত্র ভর ইত । লোকহিতৈষীর বলিবেন, “আমরা তে। সেই কাজেই লাগিয়াছি, আমরা তো নাইট স্কুল খুলিয়াছি ভিক্ষার দ্বারা কেহ কখনো সমৃদ্ধি লাভ করিতে পারে না। আমরা ভদ্রলোকের যে শিক্ষা লাভ করিতেছি সেটাতে আমাদের অধিকার আছে বলিয়া আমরা অভিমান করি— সেটা আমাদিগকে দান করা অনুগ্রহ করা নয়, কিন্তু সেটা হইতে বঞ্চিত করা আমাদের প্রতি অন্তায় কর । এইজন্ত আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় কোনো খর্বত ঘটিলে আমরা উত্তেজিত হইয়া উঠি । আমরা মাথা তুলিয়া শিক্ষা দাবি করি। সেই দাবি ঠিক গায়ের জোরের নহে, তাহ ধর্মের জোরের । কিন্তু লোকসাধারণেরও সেই জোরের नीथि उप्रfcछ् : यउ नेिन ठा झाँटन ब्र विचकांब्र बTबन्हीं मा इहे८ड८छ् उठउ मिन ඵ්තු