পাতা:কালান্তর - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ৰৈ মা. দীৰ্ঘকাল থেকে চিন্তা করতে করতে লিখেছে তার রচনার ধারাকে ঐতি হাসিকভাৱে দেখাই সংগত। রাষ্ট্ৰনীতির মতো বিষয়ে কোনো বাধা মত একেবারে সুসম্পূৰ্ণভাবে কোনো এক বিশেষ সময়ে জামার মন থেকে উৎপুন্ন হয়নি, জীবনের অভিজ্ঞতার সঙ্গে সঙ্গে নানা, পরিবর্তনের মধ্যে তারা গড়ে উঠেছে।... সেই সমস্ত পরিবর্তনপরম্পরার মধ্যে নিঃসন্দেহ একটা ঐক্যসূত্ৰ অাছে। সেইটিকে উদ্ধার করতে হলে রচনার কোন অংশ মুখ্য, কোন অংশ গোঁগ, কোনটা ভৎসাময়িক, কোনটা বিশেষ সময়ের সীমাকে অতিক্ৰম করে বেহমান, সেইটে বিচার ক’রে দেখা চাই। বস্তুত সেটাকে অংশে অংশে বিচার করতে গেলে পাওয়া যায় না, গ্ৰেভাবে অনুভৰ ক’রে তবে তাকে পাই’। কালান্ত, পৃ৩৪২