পাতা:কালান্তর - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কালান্তর ७क क्षेिन छéौगet* चांबांzशद्ध अfशंख्न बगठ, चणिां* छायट পাড়াপড়শিদের জুটিয়ে, আলোচনার বিষয় ছিল গ্রামের সীমার মধ্যেই বদ্ধ। পরস্পরকে নিয়ে রাগভেবে গল্পে-গুজবে তালে-পাশায় এবং তার সঙ্গে ঘণ্টা-তিন-চার পরিমাণে দিবানিজা মিশিয়ে দিনটা যেত কেটে । তার বাইরে মাঝে মাঝে চিত্তাজুশীলনার যে আয়োজন হত গে ছিল বাস্ত্ৰ সংকীর্তন কৰকত রামায়ণপাঠ পাঁচালি কৃবিগান নিয়ে। তার বিষয়বস্তু ছিল পুরাকাহিনীভাণ্ডারে চিরসঞ্চিত। যে জগতের মধ্যে বাস সেটা সংকীর্ণ এবং অতি-পরিচিত । তার সমস্ত তথ্য এবং রসধারা বংশানুক্রমে বংসরে বৎসরে বার বার হয়েছে আবর্তিত অপরিবর্তিত চক্রপথে, সেইগুলিকে অবলম্বন করে আমাদের জীবনযাত্রার সংস্কার নিবিড় হয়ে জমে উঠেছে, সেই-সকল কঠিন সংস্কারের ইটপাথর দিয়ে আমাদের বিশেষ সংসারের নির্মাণকার্য সমাধা হয়ে গিয়েছিল। এই সংসারের বাইরে মানব-ব্রহ্মাণ্ডের দিকদিগন্তে বিরাট ইতিহাসের অভিব্যক্তি নিরস্তর চলেছে, তার ঘূর্ণ্যমান নীহারিক আভোপাস্ত সনাতন প্রথায় ও শাস্ত্রবচনে চিরকালের মতো স্থাবর হয়ে ওঠে নি, তার মধ্যে এক অংশের সঙ্গে আর-এক অংশের ঘাতসংঘাতে নব নব সমস্তার হষ্টি হচ্ছে, ক্রমাগতই তাদের পরম্পরের সীমানার সংকোচন-প্রসারণে পরিবর্তিত হচ্ছে ইতিহাসের রূপ, এ আমাদের গোচর ছিল না। বাইরে থেকে প্রথম বিরুদ্ধ আঘাত লাগল মুসলমানের। কিন্তু, লে মুসলমানও প্রাচীন প্রাচ্য, লেও আধুনিক নয়। লেও আপন জাতীত শতাব্দীর মধ্যে বদ্ধ। বাহৰলে সে রাজ্যসংঘটন করেছে, কিন্তু তার চিত্তের স্থষ্টিৰৈচিত্র্য ছিল না । এইজন্তে লে যখন জামাদের দিগন্তের