পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/১৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আদিপর্ব। ] - ৰিলোভন্তৰিবিঞ্চৈবিত্রীমঙ্গবগডলৈ l ➢ፃ © দুষ্ট ধৃতরাষ্ট্র নষ্ট তার পুত্ৰগণ । হরি হরি বিধি মম কৈলা হেন গতি । সমুচিত ফল তারা পাইবে এক্ষণ ॥ যদি গ্রীতে বাটিয়া না দেয় রাজ্যভার । সকলে মিলিয়া তারে করিব সংহার ধিষ্ঠির বলিলেন তবে দামোদরে । কমতে জানিলা আমি কুম্ভকার-ঘরে ॥ শ্ৰীকৃষ্ণ বলেন যে করিল তব ভাই । নুষ্য করিবে হেন ক্ষিতিমাঝে নাই ॥ ধিষ্ঠির বলিলেন আজি স্থপ্রভাত । র্তই আজি নয়নে দেখিলু জগন্নাথ ॥ একমাত্র বড় ভয় হতেছে অন্তরে । বে জ্ঞাত হৈল আমি কুম্ভকার-ঘরে ॥ বশেষ তোমার হইয়াছে আগমন । এ সব বার্তা পাছে শুনে দুৰ্য্যোধন ॥ গাবিন্দ বলেন রাজা ভয় কর কারে । গত দুর্য্যোধন তোমা কি করিতে পারে ॥ তন লোক সহায় করিয়া যদি আসে । jহুর্তেকে নিবারিব চক্ষুর নিমিষে ॥ লপ্তবংশ সহ আমি যাজ্ঞসেন সখী । লবারে করিবে জয় ভীমাৰ্জ্জুন একা ॥ যুধিষ্ঠির বলেন যে তাহারে না গণি । জ্যেষ্ঠতাত ধৃতরাষ্ট্র তারে ভয় মানি ॥ আজিকার রজনা বঞ্চিব এই দেশে । যেই চিত্তে লয় কালি করিব দিবসে ॥ এত বলি মেলানি করিল দুইজন । বিদায় হইয়া যান রাম নারায়ণ ॥ মহাভারতের কথা অমৃত-সমান। কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ mm= === ক্রপদ রাজার খেদ ও ধৃষ্টদ্যুক্সের প্রবোধ । হেথ যাজ্ঞ সন রাজা যজ্ঞসেনী-শোকে । ইমে গড়াগড়ি দিয়া কান্দে অ ধামুখে ॥ রাজারে বেড়িয়া কান্দে যত মন্ত্ৰিগণ । পুত্ৰগণ কাব্দে আর অন্তঃপুর জন । হেনকালে ধৃষ্টদ্যুম্ন উভরিল তথা । গজ বলে একি দেখি কৃষ্ণ মম কোথা ॥ অবহেলে হারাইনু কৃষ্ণ গুণবতী ॥ কহ পুত্র কৃষ্ণার কুশল সমাচার। কোথা গেল লক্ষ্যবেদ্ধ ব্রাহ্মণকুমার ॥ সৰ্ব্বনাশ করিলেন ব্যাস মুনিবর । র্তার বোলে কৃষ্ণার হইল স্বয়ংবর ॥ ধনুৰ্ব্বাণ দিল লক্ষ্য করিয়া নিৰ্ম্মাণ । বলিলেন পার্থ বিন না পরিবে আন ॥ মম কৰ্ম্মদোষে মুনিবাক্য মিথ্যা হৈল । কালে বিপরীত ফল আমাতে ফলিল ॥ কহ বাপু কৃষ্ণ রাখি আইলা কোথায় । কৃষ্ণ ছাড়ি কোন মুখে আইলা হেথায় ॥ হা কৃষ্ণা হা কৃষ্ণ মম প্রাণের তনয় । এত বলি পড়ে রাজা মূৰ্ছাগত হৈয়া ॥ ধৃষ্টদ্যুম্ন বলে আর না কান্দ রাজন্ম । সকল মঙ্গল রাজা ত্যজ দুঃখ মন ॥ ব্যাসের বচন রাজা কভু মিথ্যা নয় । তোমার মানস পূর্ণ হইল নিশ্চয় ॥ শুনি কহ কহ বলি উঠিল রাজন। কিমতে হইল সত্য ব্যাসের বচন ॥ শতপুর করিয়া বেড়িল রাজগণ । সবাকে জিনিল সেই একক ব্রাহ্মণ ॥ সহায় হইল তার এক দ্বিজ আর । স্বরাস্কর মনুষ্যে সদৃশ নাহি তার ॥ হাতে বৃক্ষ এল যেন ব্রজহস্তে ইন্দ্র । ভঙ্গ দিয়া পলাইয়া গেল নৃপবৃন্দ ॥ এইমত যুদ্ধে তাত হইল রজনী । দুইজন সঙ্গে চলি গেল যাজ্ঞসেনী ॥ এ দোহার সহ তাত আর তিন জন । পথেতে যাইতে হৈল সবার মিলন ॥ ভার্গবের কর্মশাল-আঞ্জয়ে আছিল। পাচজন মিলিয়৷ তথায় চলি গেল ॥ স্ত্রী এক আছিল তথা পরম মুন্দরী । র্তার রূপে বিন! দীপে ঘর আলো করি । জননী হইবে তার বুঝি অভিপ্রায় । তিন ভাই কৃষ্ণ সহ রাখিয়া তথায় ॥