পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/১৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


     গোপিকা-নয়নানন্দং গোপালং প্রণমাম্যহং।।
 মুনিগণ দ্বিজগণ গেল নিজ স্থান।
 দ্বারাবতী চলিলেন রাম ভগবান।।
 যাইতে বিদুরে স্মরিলেন যদুমণি।
 পাণ্ডবের বার্ত্তা দিতে গেলেন আপনি।।
 কৃষ্ণে দেখি বিদুর আনন্দজলে ভাসে।
 পাদ্য অর্গ্য সিংহাসনে পূজিল বিশেষে।।
 দ্বাদশ বৎসর হেথা নাহি গতায়াত।
 বড় ভাগ্য হস্তিনা কি হেতু জগন্নাথ।।
 কহ কিছু জান যদি পাণ্ডবের বার্ত্তা।
 কোন্ দেশে কোনরূপে আছে তারা কোথা।।
 মরিল বাঁচিল কিছু না জানি তদন্ত।
 কেবল ভরসা এই সবে ধর্ম্মবন্ত।।
 হা-হা কুন্তী হা-হা ধর্ম্মপুত্র যুধিষ্ঠির।
 তোমা না দেখিয়া আছে এ পাপ শরীর।।
 এত বলি বিদুর পড়িল মূর্চ্ছা হ'য়ে।
 দুই হাতে ধরি কৃষ্ণে বসান তুলিয়ে।।
 হাসিয়া বিদুরে কহিলেন জগন্নাথ।
 ভাল বার্ত্তা লহ তুমি হৈয়া খুল্লতাত।।
 পাণ্ডবের বিবাহ যে ত্রৈলোক্য জানিল।
 এক লক্ষ রাজা সহদলে আসিছিল।।
 অদ্য রাত্রে বিবাহিতা হৈলা যাজ্ঞসেনী।
 পঞ্চ পাণ্ডবের ভার্য্যা তিনি একাকিনী।।
 শুনিয়া বিদুর বড় আনন্দ হইল।
 গোবিন্দচরণ ধরি ভূমে লোটাইল।।
 এ কথা এক্ষণে হরি না কহিও আর।
 শুনি দুষ্টলোক পাছে করে কুবিচার।।
 হাসিয়া বলেন কৃষ্ণ ডরহ কাহারে।
 সবে পলাইয়া এল পাণ্ডবের ডরে।।
 ভীমার্জ্জুন পরাক্রম অতুল ভুতলে।
 এক লক্ষ ভূপতি জিনিল অবহেলে।।
 বিদুরে প্রবোধ দিয়া যান ভগবান।
 বিদুর ত্বরিত গেল ধৃতরাষ্ট্রস্থান।।
 বিদুর বলিল আজি শুভরাত্রি হ'ল।
 দ্রুপদনন্দিনী কৃষ্ণা কুরুকুলে এল।।
 ধৃতরাষ্ট্র শুনি ককে আনন্দে বিভোর।
 অগ্রসরি আন গিয়া পুত্রবধূ মোর।।
 নানা রত্ন ফেল দুর্য্যোধনেরে নিছিয়া।
 অগ্রসরি আন কৃষ্ণা রতনে ভূষিয়া।।
 বিদুর বলিল রাজা হেথা বধূ কোথা।
 যুধিষ্ঠিরে বরিলেক দ্রুপদ-দুহিতা।।
 ধৃতরাষ্ট্র শুনি যেন শেল বাজে বুকে।
 ততোধিক ভাগ্য বলি রলে রাজা মুখে।।
 দুর্য্যোধন হইতে অধিক যুধিষ্ঠির।
 শুভবার্ত্তা শুনি হৃষ্ট হইল শরীর।।
 কহ শুনি বিদুর আছয়ে তারা কোথা।
 কার ঠাঞি পাইলা হে এ সব বারতা।।
 বিদুর বলেন কৃষ্ণা করি লক্ষ্যপণ।
 লক্ষ্য বিন্ধিলেক রাজা ইন্দ্রের নন্দন।।
 কন্যা হেতু বহু দ্বন্দ কৈল রাজা সব।
 ভীমার্জ্জুন সবারে করিল পরাভব।।
 মুনিগণ দেবগণ একত্র হইয়া।
 পঞ্চভাই পাণ্ডবে কৃষ্ণারে দিল বিয়া।।
 যদুবংশসহ গিয়াছিলেন শ্রীপতি।
 কহি বার্ত্তা আমারে গেলেন দ্বারাবতী।।
 মহাভারতের কথা অমৃতসমান।
 কাশীরাম দাস কহে শুনে পূণ্যবান্।।
        ------
  পাণ্ডবদিগের বিবাহ বার্ত্তা শরণ করিয়া
          দুর্য্যোধনাদির মন্ত্রণা।
   তিন দিন পরে তবে চতুর্থ দিবসে।
 দন্ত ভগ্ন দুর্য্যোধন উত্তরিল দেশে।।
 বাপের চরণে গিয়া নমস্কার কৈল।
 আশীর্ব্বাদ করি অন্ধ বার্ত্তা জিজ্ঞাসিল।।
 কিরূপ পাণ্ডব সহ হইল মিলন।
 আইল কি তব সহ পাণ্ডু পুত্রগণ।।
 কর্ণ বলে কি কথা বলিলা মহাশয়।
 হেন কথা কেমনেতে স্ফুরিত মুখে হয়।।
 ছদ্ম দ্বিজবেশে ধরি ভাণ্ডিল আমারে।
 দ্বিজবধ ভয় করি ক্ষমিলাম তারে।।
 জানিতাম যদি সবে, মারিতাম প্রাণে।
 দুর্য্যোধন বলে ইহা জানিব কেমনে।।