পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


   প্রসন্নবদনং দেবং কুমারং পুত্রদায়কং।।
 মৃগয়ার ছলে চড়ি যাও মম রথে।
 সুভদ্রা লইয়া তুমি যাও সেই পথে।।
 দারুকে ডাকিয়া কৃষ্ণ বলেন ইঙ্গিতে।
 অর্জ্জুনে লইয়া তুমি যাও মম রথে।।
 যা কহিবে অর্জ্জুন না করিও অন্যথা।
 যথায় বলিবে রথ লৈয়া যাবে তথা।।
 পাইয়া কৃষ্ণের আজ্ঞা দারুক সত্বর।
 সাজায়ে আনিল রথ অর্জ্জুন গোচর।।
 সুসজ্জা হইয়া পার্থ লৈয়া ধনুঃশরে।
 খড়গ ছুরি গদা শূল চক্র লৈয়া করে।।
 কৃষ্ণরথে আরোহণ করি মহাবীর।
 চালাইয়া দেন রথ সস্বতীর তীর।।
 যথা ভদ্রা করে স্নান নারীগ্ণ মাঝে।
 ধীরে ধীরে অর্জ্জুন চলেন পদব্রজে।।
 ধরিয়া ভদ্রারে তুলি চড়াইয়া রথে।
 চালাইয়া দেন রথ ইন্দ্রপ্রস্থ পথে।।
 হাহাকারে ডাকিল যতেক কন্যাগণ।
 সুভদ্রা হরিয়া লয় কুন্তীর নন্দন।।
 শব্দ শুনি বেগে ধায় সভাপাল সব।
 ধর ধর বলি ডাকে আরে রে পাণ্ডব।।
 আরে পার্থ মতিচ্ছন্ন হইল তোমারি।
 কেমন সাহস তোর হেন গৃহে চুরি।।
 না পলাও বলি তারে পাছেতে ডাকিল।
 শৃগালের শব্দে যেন সিংহ নেউটিল।।
 ধনুর্গুণ টঙ্কারিয়া করি শরজাল।
 নিমেষে কাটেন তিন লক্ষ সভাপাল।।
 সভাপাল মারিয়া চালাইলেন রথ।
 নিমেষে গেলেন পার্থ দশ ক্রোশ পথ।।
 সুভদ্রা হরিল বার্ত্তা শুনিয়া শ্রবণে।
 চতুর্দ্দিকে ধাইয়া আইল সর্ব্বজনে।।
 গদ শাম্ব আইল লইয়া বহু সেনা।
 পাইয়া রামের আজ্ঞা ধায় সর্ব্বজনা।।
 ধর গিয়া বলি আজ্ঞা দেন হলধর।
 সসৈন্যে সারণ বীর চলিল সত্বর।।
 ক্রোধে বলভদ্র তনু কাঁপে থর থর।
 ফুলিয়া হইল তনু যেমন মন্দর।।
 প্রলয় মেঘের শব্দ ডাকে যেন গলা।
 অঙ্গ হৈতে ছিড়িয়া পড়িল বনমালা।।
 রাম বলে এত গর্ব্ব পাণ্ডবের হৈল।
 শ্বা হইয়া যজ্ঞহবি লইতে ইচ্ছিল।।
 চণ্ডাল হইয়া ইচ্ছা হরিল ব্রাম্ভণী।
 গারুড়ি আজ্ঞাতে যেন ধরে কালফণী।।
 যে পুরে সূর্য্যেন্দু বায়ু তেজ মন্দ বয়।
 যে পুরে আসিতে শক্তি শমনের নয়।।
 হের দেখি মতিচ্ছন্ন হৈল দুরাচার।
 চুরি করে ল'য়ে যায় ভগিনী আমার।।
 এই দোষে তোরে আজি মারিব সমূলে।
 বাতি দিতে না রাখিব পাণ্ডবের কুলে।।
 তাহারে মারিব যে হইবে তার অংশে।
 পৃথিবী খুঁজিয়া আমি মারিব সবংশে।।
 ইন্দ্রপ্রস্থ মাটি আজি তাড়িয়া লাঙ্গলে।
 ফেলাইয়া দিব ল'য়ে সমুদ্রের জলে।।
 ইন্দ্র যম কুবের বরুণ পঞ্চানন।
 কার শক্তি মম শত্রু করিবে রক্ষণ।।
 জানি আমি পাণ্ডবের অতি মন্দ রীতি।
 না জানিয়া কৃষ্ণ তার সহ কৈল প্রীতি।।
 অন্তঃপুরে দেয় তারে রহিবারে স্থান।
 নহে কেন এতেক হইবে অপমান।।
 যত স্নেহ করিল শুধিল তারগুণ।
 ভগিনী হরিয়া মুখে দিল কালি চুন।।
 প্রতিফল ইহার পাইবে দুষ্ট আজি।
 এত বলি বাহির হলেন রাম সাজি।।
 বামেতে লাঙ্গল ধরি দক্ষিণে মুষল।
 বজ্রহস্তে শোভা যেন করে আখণ্ডল।।
 কৃষ্ণে ডাক বলি দূতে দেন পাঠাইয়া।
 সে প্রিয়সখার কর্ম্ম দেখুক আসিয়া।।
       ------
   যাদবগনের অর্জ্জুনের পশ্চাদ্ধাবন।
   গদ শাম্ব চারুদেষ্ণ সাত্যকি সারণ।
 চালাইয়া দিল রথ পবনগমন।।
 না পলাও শুন পার্থ ডাকে যদুগণ।
 শুনিয়া দারুক প্রতি বলেন অর্জ্জুন।।