পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


     বিশ্বকর্ম্মার ধ্যান-- দংশপাল মহাবীর সুচিত্র কর্ম্মকারক।
 ব্রম্ভার বচনে অগ্নি স্থির করি মন।
 বহুকাল রোগযুক্ত রহিল তেমন।।
 হইলে দ্বাপর শেষ দোঁহে অবতার।
 ব্রম্ভার সদনে অগ্নি গেল পুনর্ব্বার।।
 ব্রম্ভার পাইয়া আজ্ঞা দেব হুতাশন।
 অতি শীঘ্র গেল যথা নর-নারায়ণ।।
 অগ্নির বচনে পার্থ করেন স্বীকার।
 আশ্বাস পাইয়া অগ্নি বলে আরবার।।
 সে বন দহিতে বিঘ্ন আছে বহুতর।
 বনের রক্ষক আছে দেব পুরন্দর।।
 অর্জ্জুন কহেন দেবে নাহি মম ভয়।
 বহু ইন্দ্র আসে তবু করিব বিজয়।।
 মম যোগ্য ধনুর্ব্বান নাহি হুতাশন।
 ইন্দ্রসহ যুঝিতে নাহিক অস্ত্রগণ।।
 অবশ্য বিরোধ হবে দেবরাজ সঙ্গ।
 তার যুদ্ধযোগ্য রথ নাহিক তুরঙ্গ।।
 ইন্দ্র দেবরাজ সহ বিরোধ হইবে।
 ত্রিজগৎ লোকে তার সাহায্য করিবে।।
 সাহায্য করিতে হৈলে নাহি অস্ত্রগণ।
 উপায় বিহনে সিদ্ধ নহে কদাচন।।
 আপনি চিন্তহ তুমি ইহার উপায়।
 খাণ্ডব দহিতে মোরা হইব সহায়।।
 অগ্নির স্মরণে আইলেন জলেশ্বর।
 বরুণে দেখিয়া নিবেদিল বৈশ্বানর।।
 এমত সময় সখে কর উপকার।
 চন্দ্রদত্ত রথ আছে আলয়ে তোমার।।
 অক্ষয় যুগল তূণ গাণ্ডীব ধনুক।
 এ সকল দিলে মম খণ্ডে সব দুঃখ।।
 শুনিয়া বরুণ আনি দিল শীঘ্রগতি।
 আরো আপনার পাশ দেন জলপতি।।
 সুরাসুর পূজিত গাণ্ডীব মহাধনু।
 কপিধ্ব্জ রথ জ্যোতি জিনি চন্দ্রভানু।।
 শতেক যোজন বন খাণ্ডব বিস্তার।
 লাগিল অনল, উঠে পর্ব্বত আকার।।
 দুই ভিতে বনের থাকেন দুইজন।
 নিঃশঙ্কে দহয়ে বন দেব হুতাশন।।
 সিংহনাদ করি বলবন্ত কোনজন।
 গর্জ্জিয়া বাহির হৈল করিবারে রণ।।
 কৃষ্ণার্জ্জুন বাণে কাটি ফেলে ততক্ষণ।
 হরষিত হুতাশন করয়ে ভক্ষণ।।
 যক্ষ রক্ষ কিন্নর দানব বিদ্যাধর।
 অনেক পুড়িল বীর  অরণ্য ভিতর।।
 শীঘ্রগতি গিয়া কেহ পড়ে জলমাঝে।
 জলজন্তু সহ ভস্ম হয় অগ্নি তেজে।।
 জলেতে পুড়িয়া মরে শফরী কচ্ছপ।
 বনেতে পুড়িয়া মরে বনবাসী সব।।
 সিংহ ব্যাঘ্র ভল্লুক বরাহ মৃগগণ।
 মহিষ শার্দ্দুল খড়গী না যায় লিখন।।
 অসংখ্য কুঞ্জর পুড়ে দীর্ঘ দীর্ঘ দন্ত।
 জম্বুক শশক নকুলের নাহি অন্ত।।
 নানাজাতি নাগ পুড়ে গর্জ্জিয়া আগুনে।
 শত পঞ্চদশ ফণা ধরে কোনজনে।
 পর্ব্বত আকার অঙ্গ গমনে পবন।
 নানাবর্ণ পুড়িয়া মরয়ে পক্ষীগণ।।
 আকাশে উড়য়ে কেহ পবনের তেজে।
 অর্জ্জুন কাটিয়া বাণে ফেলে অগ্নি মাঝে।।
 আকুল যতেক জীব করে কলরব।
 মহাশব্দ হৈল যেন উথলে অর্ণব।।
 পর্ব্বত আকার অগ্নি উঠিল আকাশে।
 স্বর্গবাসী দেবগণ পলায় তরাসে।।
 ভয়েতে লইল সবে ইন্দ্রের শরণ।
 দেবরাজে জানাইল খাণ্ডব দাহন।।
 তোমার পালিত বন দহে হুতাশন।
 কেমনে রক্ষিবে বল খাণ্ডব গহন।।
 এত শুনি কুপিত হইল দেবরাজ।
 যুঝিবারে চলে লয়ে দেবের সমাজ।।
      ------
  ইন্দ্রাদি দেবতার সহিত অর্জ্জুনের যুদ্ধ।
 অতি ক্রোধে পুরন্দর,      চড়ে ঐরাবতোপর।
       বজ্র করে ছত্র শোভে শিরে।
 কোপেতে সহস্র আঁখি,      লোহিতবরণ দেখি,
       আজ্ঞা দিল যত সব চরে।।