পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৩১৪ শ্বেতাম্বর পরীধানং শ্বেতমাল্যানুলেপনং । [ यहiडोच्न टु : ইiবংস রাজার কাঠুরিয়া মালয়ে স্থিতি । শুন শুন ধৰ্ম্মরাজ অপূৰ্ব্ব কথন । কাননে বঞ্চেন চিন্তা শ্ৰীবৎস রাজন ॥ পূৰ্ব্বমত ফল মূল তথায় না পান । কানন ত্যজিয়। রাজা নগরেতে যান ৷ নগর উত্তর ভাগ যথায় বসতি । তথায় বসতি মম না হয় সম্মতি ॥ দুঃখী হ’য়ে ধনাট্যের নিকটে না যাবে । দরিদ্র দেখিয়া সবে অবজ্ঞা করিবে ॥ নগর দক্ষিণ ভাগে প্রবেশিল রায় । শত শত ঘর তথা কাঠুরিয়া রয় ॥ রাজা রাণী তথায় হইয়। উপনীত । দেগিয় সন্ত্রমে তার জিজ্ঞাসে ত্বরিত ॥ কহু তুমি কেবা হুও কোথায় বসতি । কি কারণে আসিয়াছ কহ শীঘ্ৰগতি ॥ শুনিয়া সবার বাকা কহে নৃপবর । মম সম দুঃখ নাই পৃথিবী ভিতর ॥ বহু দুঃখ পেয়ে আমি আইমু হেথায় । তোমরা করিলে কৃপা, তবে দুঃখ যায় ॥ আশ্বাস করিয়া তারা কৈল অঙ্গীকার । করিব তোমার হিত প্রতিজ্ঞ। সবার ॥ মোরা কাঠুরিয়া জাতি কাষ্ঠ বেচি কিনি । নিত্য আনি নিত্য খাই দুঃখ নাহি জানি ॥ সঙ্গে থেকে কাষ্ঠ বেচি প্রত্যহ আনিবে । এ কৰ্ম্মে নিযুক্ত হৈলে ছঃখ নাছি রবে ॥ শুনি আনন্দিত হৈল শ্ৰীবৎস রাজন । ভাল ভাল এই কৰ্ম্ম করিব এখন ॥ হেন মতে কাঠুরিয়া ঘরে দুই জন । রছিলা গোপনে রাজা নিরানন্দ মন ॥ কাঠুরিয়াগণ ভাৰ্য্যা যতেক আছিল । চিন্তার সৌজন্যে তারা সবে বশ হৈল ॥ নানা ধৰ্ম্ম নানা কৰ্ম্ম করান শ্রবণ । শুনিয়া সস্তুষ্ট হৈল সবাকার মন ॥ প্রভাতে কাঠুরেগণ চলিল কাননে । রাজগকে ডাকিল সবে চল যাই বনে ॥ শুনিয়া চলিল রাজা সবার সংহতি । - ঘোর বনে প্রবেশ করিলা শীঘ্ৰগতি । কাঠুরিয়াগণ কাষ্ঠ ভাঙ্গিল অনেক । বড় বড় বোঝা সবে বান্ধিল যতেক ॥ ফল মূল পত্র পুষ্প মিল সৰ্ব্বজন । আমি কি লইব চিত্তে চিন্তিল রাজন । নিন্দিত ন হয় কৰ্ম্ম ক্লেশ না সহিব ! অথচ আপন কৰ্ম্ম প্রকারে সাধিব ॥ চিনিয়া লইয়। রাজা চন্দনের সার । কাঠুরিয়া সঙ্গে সঙ্গে চলিল বাজার । বাজারে ফেলিল বোঝা কাঠুরিয়া কুল গৃহালোক আসিয়া করিয়া নিল মূল । কেহ পায় চারি পণ কেহ আট পণ । কেহ বা বেচিয়া কেনে খাদ্য প্রয়োজন । চন্দনের কণষ্ঠ লৈয়৷ শ্ৰীবৎস রাজন । বেচিবারে যান পরে বণিক-সদন । দিব্য চন্দনের সার পেয়ে সদাগর । উচিত করিয়া মূল্য দিলেন সত্বর ॥ তঙ্ক দুই চারি রাজা বেচিয়া পাইল । অপূৰ্ব্ব বিচিত্র দ্রব্য কিনিয়া লইল ॥ প্লুত তৈল চাল ভাল লবণ সৈন্ধব । মসলা মিষ্টান্ন দধি কিনিলেক সব ॥ শাক আদি তরকারী যতেক পাইল । ভাল মৎস্ত মাংস রায় কিনিয়া লইল । কিনিয়া অশেষ দ্রব্য নিয়া নরপতি । গৃহেতে আনিয়া দিল যথা চিন্তাসতী । রাণী প্রতি কহিলেন বিনয় বচন । কাঠুরিয়াগণ বন্ধু কর নিমন্ত্রণ ॥ শুনিয়া সন্তুষ্ট হৈল চিন্তা মহারাণী । উত্তম করিয়া পাক করিল তখনি ৷ স্নানাদি করিয়া রাজা আইল সত্ত্বর । দেখিল সকল পাক হয়েছে সুন্দর ; রাণী বলিলেন সবে ডাকহ রাজন । সকল রন্ধন হৈল করাব ভোজন ॥ এত শুনি নরপতি ডাকি সবাকারে । আনন্দিত হইয়৷ মাইল ভুঞ্জিবারে ॥