পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ආදි8 তোমার বিচ্ছেদে দুঃখী শ্ৰীবৎস রাজন। উঠ মাত দোহে গিয়া হও গো মিলন ॥ জরাযুক্ত চিন্তা-অঙ্গ দেখিয়া রাজন। জিজ্ঞাসেন চিন্তা প্রতি তার বিবরণ ॥ শুনি চিন্তা কহিতে লাগিল মৃদুভাযে । জরাযুক্ত অঙ্গ-কথা শুন ইতিহাসে । এই সদাগর যায় বাণিজ্য করিতে । আটক হইল তরী দৈবের দোষেতে ॥ কাঠুরে রমণীগণ যতেক আছিল । ক্রমে ক্রমে সদাগর সব আনাইল ॥ সকলে ছুইল তরা ন হৈল উদ্ধার । পশ্চাতে আমারে গিয়া গকে বার বার ॥ বিস্তর বিনয় করি আমারে কহিল । কাতর দেখিয়া মোর দয়া উপজিল ৷ দয়ায় উদ্ধার করি দিলাম যদি তরি । দুষ্ট দুরাচার মোরে নাহি দিল ছাড়ি ॥ আমাকে তুলিয়া নিল নৌকার উপর । ভয় পেয়ে মম অঙ্গ কাপে থর থর ॥ অতি ভয়ে সূৰ্য্যদেবে করিলাম স্তুতি। স্তবে তুষ্ট হইলেন সূৰ্য্য মম প্রতি ॥ আমি কহিলাম দেব মম রূপ লহ । জরাযুত অঙ্গ এবে মোরে দান দেহ ॥ স্তবে তুষ্ট হৈয়া বর দিল সেইক্ষণ । মায়া অঙ্গ দিয়া মোরে কহিল তখন ॥ স্মরণ করিবামাত্র নিজরূপ পাবে। চিন্তা না করিহ চিন্ত মহারাণী হবে ॥ দৈবগ্রহ ঘুচিলে পাইবে নৃপবর । কিছুদিন শুদ্ধচিত্তে ভাবহ ঈশ্বর ॥ শুন মহারাজ মম জরার ভারতী । দুঃখ শুনি কান্দে তবে বাহু নরপতি । তুমি সতী পতিব্ৰতা পতি-অনুরতা । ত্রিভুবনে তব গুণ স্মরিবেক মাত ॥ সূর্য চিন্তায় চিন্ত নিজরূপ পাইল । যেমন পূর্বেবর রূপ তেমতি হইল ॥ রাজা বলে চতুৰ্দ্দোল আন শীঘ্ৰগতি । চিন্তা বলে হেঁটে যাই প্রভুর বসতি ॥ অগ্রেব্যগ্ৰং হনুমন্তং রামানুগ্রহকাঙিক্ষণং । আরক্ত পিঙ্গলবর্ণ, { মহাভারত ! এত বলি পদব্রজে চলিলেন সতী । যথায় উদ্বেগচিত্তে শ্ৰীবৎস নৃপতি ॥ নিকটেতে গিয়া চিন্তা প্রদক্ষিণ করে ।

প্ৰণিপাত করি কহে স্বামী বরাবরে ॥

দেখি তবে আস্তে ব্যস্তে উঠিয়া রাজনে । বামপাশ্বে বসাইল নিজ সিংহাসনে ॥ প্রেমাবেশে অবসন্ন হৈল দুইজন । পুনঃ পুনঃ বদন চুম্বন আলিঙ্গন ॥ বিনোদ শয্যায় রাজা করিল শয়ন । চিন্তা ভদ্র পদসেবা করে দুইজন ॥ নানা হাসে নানা রসে শ্ৰীবৎস রাজন । আনন্দেতে করিলেন নিশা সমাপন ॥ প্রভাত সময়ে বার দিয়া বাহুরাজ । শ্ৰীবৎস চিন্তারে তবে কৈল বহু পূজা ৷ আনন্দিত হইয়া বসিল সৰ্ব্বজন । নানা শাস্ত্র প্রসঙ্গ করেন জনে জন ৷ ۔ ۔ ۔ مض-------سے এ বৎসরাজার শনিত্যাগ এবং শনি কর্তৃক বৰ প্ৰাপ্তি । প্রভাতে বাহুক রাজা, লইয়া কতেক প্রক্ত , . বসিয়াছে সানন্দ বিধানে । হেনই সময় শনি, কহিছে আকাশ-বাণী, শুন সভাপাল সৰ্ব্বজনে ॥ দেবতা গন্ধৰ্ব্বৰ যক্ষ, সকলি আমার ভক্ষ, সকলে আমারে শ্রেষ্ঠ জানে । বিদ্যাধরী বিদ্যাধর রাক্ষস কিন্নর নর, সবে মানে শ্ৰীবৎস না মানে ॥ মনুষ্য হইয়া মোরে, অত্যন্ত অবজ্ঞা করে, কত সব দুৰ্ম্মতি তাহার । স্বরাক্ষর যারে ডরে, মনুষ্য অবজ্ঞা করে, বুক সবে করিয়া বিচার ॥ কহিতে কহিতে শনি, আইল মরত-ভুমি, যর্থ সভামধ্যে সৰ্ব্বজন । রূপ যেন তণ্ড স্বর্ণ, পরিধান স্বরক্ত বসন ॥