পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শুনিয়া ভৈমীর মন অনঙ্গে পীড়িল । বিধাতা আমার হেতু নলেরে স্বজিল ৷ ট্রলের ভাবনা করি সকল ত্যজিল ৷ বিষ্ণু বদন ভৈমী সঘনে নিশ্বাস । ত্যজিয়া আহার নিদ্রা সদাই হুতাশ ॥ tয়মন্তী-দুঃখ দেখি সব সখিগণ । ভীম নৃপে যতেক করিল নিবেদন ॥ গুনিয়া নৃপতি বড় হইল চিন্তিত । কান হেতু দময়ন্তী হইল দুঃখিত ॥ হাদেবী বলে কিবা চিন্ত নরবর। বর্তী হইল কন্যা কর সয়ম্বর ॥ গুনিয়া বিদর্ভপতি উদূযোগী হৈল। tাজ্যে রাজ্যে দূত গিয়া নিমন্ত্রণ কৈল । দশে দেশে বার্তা পেয়ে যত রাজগণ । বদর্ভনগরে সবে করিল গমন ॥ য় হস্তী পদাতিক পুরিল মেদিনী । rার্তা পেয়ে আইল যতেক নৃপমণি ॥ }বদর্ভে আইল যত রাজ্যের ঈশ্বর। থাযোগ্য স্থামেতে বসিল নৃপবর ॥ }াহাভারতের কথা অমৃত-সমান। কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ দময় স্তী স্বপ্নস্বর । দময়ন্তী-স্বয়ম্বর শুনিয়া সময় । পুরাতন ঋষি আসে অমর-আলয় ॥ *াথোচিত বিধানে পূজিল মুরেশ্বর । ,জজ্ঞাসা কোথায় আছিল। মুনিবর ॥ pষি বলে গিয়াছিনু পৃথিবী মণ্ডল । । আশ্চৰ্য্য দেখিমু তথা শুন আখণ্ডল ॥ বিদর্ড রাজার কন্যা দময়ন্তী নামা । দৈব যক্ষ নাগ নরে দিতে নারে সীমা ।

  1. ৩৪০ প্রণাম—জিহাগ্রমাদায়করেন দেবীং বামেন শক্রং পরিপীড়য়ন্তীং । [ মহাভারত।

হইয়াছে রূপেতে শোভিত ভুমণ্ডল । চন্দ্র মগ্ন হৈল দেখি বদন-কমল ॥ ভীম রাজা করিল কন্যার স্বয়ম্বর। নিমন্ত্রিয়া আনিল যতেক নৃপবর ॥ দময়ন্তা-রূপ-গুণ শুনিয়া শ্রবণে । নিমন্ত্রণে গেল কেহ, বিনা নিমন্ত্রণে ॥ নারদের বচন শুনিয়া দেবগণ । দময়ন্তীরূপে মগ্ন হৈল সৰ্ব্বজন ॥ পৃথিবীতে বৈসে যত রাজ-রাজ্যেশ্বর। অহৰ্নিশি আসিতেছে বিদর্ভ নগর । সসৈন্যে চলিল সবে পেয়ে নিমন্ত্ৰণ । পথে নল সহ ভেট হৈল দেবগণ ॥ দেখিয়া নলের রূপ বিস্ময় অন্তর। দময়ন্তী-বাঞ্ছা ত্যাগ করিল অমর ॥ ইহা দেখি অন্যে ন বরিবে কদাচন। এক্ত চিন্তি নল প্রতি বলে দেবগণ ॥ সাধু সৰ্ব্বগুণাশ্রয় তুমি মহারাজ । - সহায় হইয়। তুমি কর এক কাজ ॥ কৃতাঞ্জলি করি বলে নিষধ-নন্দন । কে তোমরা, আম হতে কিবা প্রয়োজন ॥ ইন্দ্র বলে আমি ইন্দ্র, ইনি বৈশ্বান শমন বরুণ এই জলের ঈশ্বর ॥ সবে আসিয়াছি দময়ন্তী লভিবারে । সবাকার দূত হয়ে যাও তথাকারে । কি বলে বৈদভ জানি আইল সত্বরে । নলেরে এতেক বাক্য কহিল অমরে ॥ রাজা বলিলেন তবে যাইতেছি আমি । কেমনে ভেটিব কন্যা অগম্য সে ভূমি । রক্ষকেরা পুররক্ষা করয়ে যতনে। এ-বেশে পুরুষ আমি যাইব কেমনে ॥ দেবগণ বলে তাম। সবার প্রভাবে । না হবে বারণ তুমি অলক্ষ্যেতে যাবে ॥ দেবগণ-বাক্য নল করিয়া স্বীকার । চলিয় গেলেন দময়ন্তীর আগার ॥ সখীগণ মধ্যে দময়ন্তীকে দেখিল । দেখিয় তাহার রূপ অজ্ঞান হইল ॥