পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՎԶԳԵ- ध्यूक्रोनिडर cयन डॉय डीॐत्त्व नमः ॥____[महडबड । ধন্য ধন্য পুত্ৰ তুমি ধন্য তব শিক্ষা । ধন্য তারে যে জন তোমারে দিল দীক্ষা ॥ -গম হৈতে দূর হৈল আমার অরিষ্ট । তদিনে পরিপূর্ণ হইল অভীষ্ট ॥ ত বলি কুতুহলী দেব পুরন্দর। শ যুগ্ম দিলেন বিচিত্র দিব্য শর। স্তকে কিরীট দিল কৰ্ণেতে কুণ্ডল । শ নাম নিরূপণ করে আখণ্ডল ॥ tাছিল অর্জুন নাম দ্বিতীয় ফাঙ্কনী । ক্ষত্রানুসারে নাম রাখিল জননী ॥ গণ্ডব দহিল যবে আমা সব জিনি । সইকালে বিষ্ণু নাম দিয়াছি আপনি ॥ মামা হৈতে কিরীট পাইলে স্থশোভন । এই হেতু কিরটী বলিবে সৰ্ব্বজন ॥ চরিছে রথের শোভা শ্বেত চারি হয় । লাকে শ্বেতবাহন বলিয়া তোমা কয় ॥ দলেন বীভৎস নাম গোবিন্দ আপনি । যথা তথা যাও তুমি এস যুদ্ধ জিনি ॥ এই হেতু নাম তব হইল বিজয় । বৃণভেদে সবে সেন কুষ্ণ নাম কয় ॥ উভয় হস্তেতে তব সমান সন্ধান । সব্যসাচী নাম তেঁই করি অনুমান ॥ ধনঞ্জয় নাম পেলে ধনপতি জিনি । যোগের সাধন এই সৰ্ব্বলোকে জানি ॥ কাম্য করি দশ নাম নরে যদি জপে । অশুভ বিনাশ হয় তরে সর্বপাপে হেনমতে আনিমেদ রহিল সৰ্ব্বজন । প্রভাতে উঠিয়। তবে সহস্ৰলোচন । মাতলিরে ডাকি আজ্ঞা দিল মহামতি । হসজ্জা করিয়া রথ আনি শীরগতি ॥ আজ্ঞামাত্র অনিল সারথি বিচক্ষণ । বিচিত্র সাজান গতি নর্তক খঞ্জন । অমর ঈশ্বর তবে অৰ্জ্জুনে ডাকিল । মধুর সম্ভাষ করি কহিতে লাগিল । শুন পুত্র বিলম্বে নাছিক প্রয়োজন । দ্রুতগতি ভেট গিয়া ধৰ্ম্মের নন্দন ॥ নানা জাতি ভূষণে করিয়া পুরস্কার । কোলে করি চুম্বন করিলা বারে বার ॥ ওঁঙ্গন পড়িল তবে ইন্দ্রের চরণে ; প্রণাম করিয়া দাণ্ডাইল বিদ্যমানে । করযোড়ে কহে পার্থ সকরুণ ভাষে । তোমার আজ্ঞায় যাই ধৰ্ম্মরাজ পাশে ॥ তোমার চরণে মম এই নিবেদন । আপনি জানহ যত কৈল দুষ্টগণ ॥ তা সবারে দিব আমি সমুচিত ফল । কৃপা করি আপনি থাকিবা অনুবল । ইন্দ্র বলে যে কথা কহিলে ধনঞ্জয় । যথা তুমি তথা আমি জানিও নিশ্চয় ॥ মনের মানস পূর্ণ হইবে তোমার । ধৰ্ম্মপুত্র যুধিষ্ঠির ধৰ্ম্ম অবতার ॥ বসুমতাপতি-যোগ্য সেই সে ভাজন । কালের উচিত ফল পাবে দুৰ্য্যোধন ॥ এতেক শুনিয়া পার্থ হরমিত মনে । অমরাবতীতে বাস করে যত জনে ॥ একে একে বিদায় লইয়৷ সৰ্ব্বজনে । রথে চড়ি গমন করেন হৃষ্টমনে ॥ এইমত ঘাইতে মাতলি ধনঞ্জয় । কতদূরে হেরিল পৰ্ব্বত হিমালয় ॥ অনন্তর যথা ধৰ্ম্ম ধবল পৰ্ববত । মুহূর্তেকে উত্তfরল অর্জুনের রথ ॥ চিন্তায় আকুল চিত্ত রাজা যুধিষ্ঠির । অৰ্জ্জুনে দেখিয় হৈল প্রফুল্ল শরীর ॥ ভুমে নামিলন পার্থ ত্যজি ইন্দ্র রথ । যুধিষ্ঠির চরণে হৈলেন দণ্ডবং ? অৰ্জ্জুনে লইয়া কোলে ধর্মের নন্দন । চিরদিন সমাগমে করি আলিঙ্গন ॥ পূর্ণচন্দ্র শোভা দেখি হৰ্ষ জলনিধি । দরিদ্র পাইল যেন মহা রত্ননিধি । ধর্মের আনন্দজলে পার্থ করি স্নান । ভীমের চরণে নতি করেন বিধান ৷ আলিঙ্গন করি দুই মাদ্রীর নন্দনে । দ্রৌপদীরে ভূষিলেন মধুর বচনে ॥