পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૭ના দূরীকুরু মম দুষ্কৃতভারং। কুরু কৃপয়া ভব-সাগর পারং । [ মহাভারত। ইস্তিনায় পশিঘ্য চুব্বালা র আগমন । জন্মেজয় বলে মুনি কহ বিবরণ । সহজে অশুদ্ধবুদ্ধি রাজ। দুর্য্যোধন ॥ আজন্ম হিংসিল দুষ্ট নানা দৃষ্টাচারে । ক্ষমাবন্ত ধৰ্ম্মশীল.ধৰ্ম্ম অবতারে ॥ তথাপি ও করি মেই তারেণ সঙ্কটে । হেনজনে দুঃখ কষ্ট দিলেন কপটে ॥ মৃত্যু হৈতে উদ্ধার করিল যেক্ট জন । পুনরপি বাঞ্ছা করে তাহীর মরণ ॥ শুনিলাম মিষ্টকথা তোমার বদনে । তঃপর কি করিল দুষ্টবুদ্ধিগণে ॥ শুনিবারে ইচছা বড় ইহার বিধান । পতামহগণ তবে গেল কোন স্থান ॥ শুনিতে আনন্দ বড় জন্ময়ে অস্তরে । নিবর বিশেষ করিয়া কহ মোরে ॥ বশম্পায়ন বলে তবে শুন নরবর । কাম্যক-কাননে আছে পঞ্চ সহোদর ॥ জ্ঞ জপ ব্ৰত তপ ধৰ্ম্ম আচরণ । গুবৰ্বমত শত শত ব্রাহ্মণ-ভোজন ॥ হথায় আসিয়। তবে কৌরব-প্রধান । গন্ধৰ্ব্বপতির হাতে পেয়ে অপমান ॥ মাহারে অরুচি হৈল অভিমান মনে । একান্তে বসিয়া কছে যত দুষ্টগণে ॥ হু কণ প্রাণের সখ মাতুল ঠাকুর । কমত প্রকুরে মম দুঃখ হবে দূর ॥ করিলে স্বযুক্তি সবে যতেক মন্ত্রণ । বিশেষ হইল সেই আপিন যন্ত্রণ ॥ হুন্দর (দখিতে যেন পরিল অঞ্জন । বিধির বিপাকে অন্ধ হইল নৱন ॥ চিত্রসেন করিল যতেক অপমান । ততোধিক শক্রতে করিল চরিত্রাণ ॥ ইহ হৈতে মৃত্যুশ্রেষ্ঠ গণি শতগুণে । এতেক দুৰ্গতি হবে ইহা কেব। জানে ॥ আর দেখ পাণ্ডবের পুণ্যের প্রকাশ । স্বর্গের অধিক স্বখ অরণ্যেতে বাস ॥ ইন্দ্রের সমান সঙ্গা চারি সহোদর । সূৰ্য্যতুল্য সহস্ৰ সহস্ৰ দ্বিজবর ॥ মনের মানসে সবে করে নানা ভোগ । দ্রুপদনন্দিনী একপ করয়ে সংযোগ ॥ জানিমু নিশ্চয় তারা দৈবে বলবান । মম সুখ নহে তার শতাংশে সমান ॥ সূর্য্যের সমান পঞ্চ শক্র বলবন্ত । ত্রয়োদশ বৎসরান্তে করিবেক অন্ত ॥ তুমি আম মাতুল ত্ৰিগৰ্ত্ত দুঃশাসন । মহাশ্রম করিলে না পারি কদাচন ॥ বনের নিবাস শেষ যে কিছু আছয় । ইতিমধ্যে এমন উপায় যদি হয় ॥ প্রকারে পরম শক্র যদি হয় নাশ । আমার মনের হয় পূর্ণ অভিলাস ॥ এতেক কহিল যদি রাজা দুৰ্য্যোধন । কহিতে লাগিল তবে দুষ্ট মুন্ত্ৰিগণ ॥ কি কারণে তুমি কর পাণ্ডবের ভয় । নিজ পরাক্রম নাহি জান মহাশয় ॥ বুদ্ধিবলে করিব উপায় যত আছে । তাহাতে নিস্তার পেয়ে যদি তার বঁাচে । অস্ত্রের অনলে দগ্ধ করিব পীগুধে । কোন ক্ষুদ্র কৰ্ম্মেতে চিন্তহ এত সবে ॥ দুষ্ট মন্ত্ৰিগণ যত কহিলেক ভাষা । তার কত দিনান্তরে আইল ছুৰ্ব্বাস ॥ সঙ্গেতে সহস্ৰ দশ শিষ্য মহাঋষি । মধ্যাহ্ন সূর্য্যের প্রায় উত্তরিল আসি ॥ দুৰ্য্যোধন শুনিল মুনির আগমন । অগ্রসরি কতদূরে গেল সৰ্ব্বজন ॥ যতেক অমাত্য আর সহোদর শত । মুনির চরণে সবে হৈল দণ্ডবত ॥ শিষ্যগণে প্রণাম করিল সৰ্ব্বজনে । বসাইল মুনিরাজে রত্নসিংহাসনে ॥ সুশীতল আনি জল রাজা দুর্য্যোধন । আপনি করিল ধোঁত মুনির চরণ ॥ করযোড় করি তবে রাজা দুৰ্য্যোধন । কহিতে লাগিল কিছু বিনয় বচন ॥ "