পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনপৰ্ব্ব । ] দধ্যাঙ্গাঢ্যং কনকচষকং ধারয়ন্তং ভজামঃ । 886t শুনিয়া দোহার মুখে এতেক ভারতী । ক তাঞ্জলি কহিছে সাবিত্ৰী গুণবতী ॥ শুনহ জনক মম সত্য নিরূপণ । কদাচিত নয়নে না হেরি অন্তজন ॥ :৫ম মানসে তারে বরিয়াছি আমি । তু-বন মরণে সেই সত্যবান স্বামী ॥ বৈপ্লব্য যন্ত্রণা যদি থাকে মম ভোগ । গুন না যাবে পিতা দৈবের সংযোগ ॥ ক্তমত্য সংসার এই অবশ্য মরণ । এ মরিয়া চিরজীবী আছে কোন জন ॥ সদার সংসার মাঝে আছে এক ধৰ্ম্ম । গ্ৰছ ছাড়ি কিমতে করিবে অন্য কৰ্ম্ম ॥ ধিক ধিক্ সে ছার স্থখেতে অভিলাষ । সন্ম ছাড়ি অধৰ্ম্মে যে করে মুখ আশ ॥ * করিব হখে পিতা, কত কাল জীব । ককৰ্ম্মে আজন্ম কাল নরকে থাকিব ॥ এত শুনি প্রশংসা করিল তপোধন । আশীৰ্ব্বাদ করি গেল নিজ নিকেতন ॥ ঈশ্বপতি দুঃখ অতি পাইল অন্তরে । কহিল অনেক কথা সাবিত্রীর তরে ॥ ংবাইল নরপতি বিবিধ বিধান । সাবিত্ৰী কহিল মম পতি সত্যৰান ॥ ভারত-পঙ্কজ রবি মহামুনি ব্যাস । পচিলিী প্রবন্ধে রচে কাশীরাম দাস ॥ সাবিত্রীর সহিত সত্যবানের বিবাঙ্গ । একান্ত বুঝিয়া রাজা তনয়ার মন । * হৈতে সত্যবানে আনিল তখন ॥ পিমতে বিবাহ দিলেন নরপতি । "ত্যবান গেল তবে আপন বসতি ॥ প্রত্রের বিবাহ-বার্তা মহোৎসৰ শুনি । গরম বিষাদ মনে কহে রাজরাণী ॥ নদারুণ বিধি কৈল এ সব সংযোগ । পরাশ করিল মোরে দিয়া বহু ভোগ ॥ ইন্দ্রের বৈভব জিনি ত্যজি নিজ দেশ। 5মতে নিবাস করি তপস্বীর বেশ ॥ বধু মম অশ্বপতি নৃপতির বালা । হেনজন কিরূপে থাকিবে বৃক্ষতলা ॥ এইমতে কছিল অনেক রাজা রাণী । সাবিত্রী দেখিতে এল যতেক ব্রাহ্মণী ॥ অনেক প্রশংসা করি কহে সৰ্ব্বজন । সমানে সমানে বিধি করিল মিলন ॥ তুমি রাণী ভাগ্যবতী রাজা মহাসাধু । সে কারণে পাইলে সাবিত্ৰী হেন বধু ॥ অনেক লক্ষণ দেখি ইহার শরীরে । এত বলি গেল সবে নিজ নিজ ঘরে ॥ পরম আনন্দ-মনে রহে চারিজনে । নিত্য নিত্য সত্যবান প্রবেশিয়া বনে ॥ নানাবিধ ফল মূল করণ্ডেতে ভরে । প্রতিদিন আনি দেয় সাবিত্রী গোচরে ॥ সাবিত্রীর মহিমা শুনিতে চমৎকার । যার নামে ধন্যধন্য জগৎ সংসার ॥ শ্বশুর শাশুড়ী সেবে দেবের সমানে । নানা সেবা করে নিত্য পতি সত্যবানে ॥ লক্ষীর সমান হয় সতী পতিব্ৰতা । নিত্য নিয়মিত পুজে ব্রাহ্মণ দেবতা ৷ দেবভ। সেবিয়া শ্রেষ্ঠ পুরুষ পাইল । মধুর সম্ভাষে বনবাসী বশ হৈল ॥ অত্যন্ত তুষিল সৰ্ব্বভুতে দয়াবতী । র্তার গুণে তুল্য দিতে নাহি বসুমতী ॥ যত্নে আচরিল যত নানাবিধ কৰ্ম্ম । নিত্য নিয়মিত যত বেদবিধি ধৰ্ম্ম ॥ ইস্টেতে একান্ত মতি করে আচরণ । শিল্প যত কৰ্ম্ম চিত্র বিচিত্র রচন । দেখিয়া সানন্দ রাজা রাণী সত্যবান । বৎসরেক সাবিত্ৰী আছয়ে সেই স্থান ॥ নারদের বচন স্মরিয়া অনুক্ষণ । লোকলাজে নানা কাজে নিবারিয়া মন ॥ নিমেষ মুহূর্ত দণ্ড প্রাণ আদি করি । দণ্ডে দণ্ডে গণি যায় দিবস শর্বর্বরী ॥ পঞ্চদশ দিনে পক্ষ, দ্বিপক্ষেতে মাস । হেন মতে যায় মাস বাড়য়ে নিরাশ ॥