পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


®বনপর্ব। ] বরাহের ofa-e- আপাদং জামুদেশাদ্বয়কনকনিভং - ৪৩৯ -حصحصتحی-سیاسی কাননে যতেক দুঃখ পাই ভ্রাতৃগণ । অনেক প্রমাদ হতে হইল মোচন ॥ ৫মনে আসিবা মাত্র রাক্ষস কিৰ্ম্মীর । তাম। সব বিনাশিতে করিলেক স্থির ॥ রক্ষসী-মায়াতে কৈল ঘোর অন্ধকার । সরিয়া রাক্ষসে ভীম করিল-উদ্ধার ॥ অনন্তরে জটাস্থর আইল কাম্যবনে । ভারে মারি উদ্ধার করিল চারিজনে ॥ গুরু করি সরোবরে চাহে নৃপমণি । দখিয় সবার মুখ পড়েন ধরণী ॥ কতক্ষণে মুচ্ছ ত্যজি উঠেন নৃপতি । ধনঞ্জয় ভাই বলি কান্দেন সুমতি ॥ কব। আর কুরুন্ধুদ্ধে করিবে উদ্ধার । বুদ্ধ হেতু স্বর্গে অস্ত্র শিখিলে অপার ॥ যুদ্ধেতে হইয়া তুষ্ট দেব ত্রিলোচন । পাশুপত অস্ত্র তোমা করেন অপর্ণ ॥ মাতলিরে পাঠালেন দেব পুরন্দর। আদর করিয়৷ নিল স্বগের উপর ॥ শপিল যতেক বিদ্যা নাহিক অবধি । স্বৰ্গতে আছিল বহু অমরবিবাদী ॥ ছাল পাঠাইল ইন্দ্র নগর ভ্রমণে । করিলে দেবের কার্য্য মারি দৈত্যগণে দৈত্যবধে হৃষ্ট হয়ে যত দেবগণ । নিজ নিজ মায়ু সবে করিল অপর্ণ ॥ নবের অসাধ্য কাৰ্য্য করিলে সাধন । তুষ্ট হ'য়ে অস্ত্র দিল সহস্ৰলোচন ॥ করাট শোভিত শিরে হাতে ধনুঃ শর। এ সব স্মরিয়া ভাই দহে কলেবর ॥ রছিল প্রচণ্ড শক্র রাজা দুৰ্য্যোধন । শহয় যাহার আছে সূতের নন্দন ॥ **ণ তুঃখ আছে মাত্র অজ্ঞাত বৎসর । ১ল ভাই বঞ্চি গিয়া পঞ্চ সহোদর ॥ এত বলি নরপতি চাহি মায়াজলে । স্থাগত হইয় পড়েন ধরাতলে । " ত্যজি পুনৰ্ব্বার উঠেন সত্বর । সহিয়া সবার মুখ রোদনে তৎপর ॥ ধিক্ ধিক্ দুৰ্য্যোধন অতি কুলাঙ্গার । কপটেতে এত দুঃখ দিলে দুরাচার ॥ বনে করিলাম বাস ভাই পঞ্চজন । অবশেষে সকলেতে হলেম নিধন ॥ দুৰ্য্যোধনে কি দূষিব, মম কৰ্ম্মফলে । জন্মাবধি বিধি দুঃখ লিখিল কপালে ॥ ভাবিয়া ভবিষ্য তত্ত্ব বুঝিয়া অসার । নিতান্ত দেখেন রাজা নাহি প্রতিকার ॥ মনোদুঃখে নরপতি মরিবারে যান । পাছে থাকি বকরূপী ধৰ্ম্মরাজে কন ৷ মৃত্যুপতি বলে রাজা তুমি জ্ঞানবান । পৃথিবীতে নাহি দেখি তোমার সমান ॥ বুদ্ধিনাশ হৈল দেখি তোমা হেন জনে । আপনি মরণ ইচ্ছা কর কি কারণে ॥ অপঘাতে প্রাণ নষ্ট করে যেই জন । অধোগতি হয় তার বেদের বচন ॥ তোমার মহিমাশুনি দেবধাষিমুখে । উপমার যোগ্য তব নাহি তিনলোকে ॥ আত্মঘাতী জনে ত্রাণ নাহি কদাচন । স্বগেতে তাহার স্থান নাছিক রাজন ॥ ধৰ্ম্মবাক্যে যুধিষ্ঠির কহে সবিনয় । আমার দুঃখের কথা শুন মহাশয় ॥ অল্পকালে পিতৃহীন হৈল বড় শোক । মন্ত্রণা করিয়া দুঃখ দিল দুষ্টলোক ॥ কপট পাশায় শেষে নিয়া রাজ্যধন । বাকল পরান্ধুে শেষে পাঠাইল বন ॥ বহু দুঃখে বঞ্চিলাম কানন ভিতর । এক আত্ম। এই মোরা পঞ্চ সহোদর ॥ দুঃখের উপরে বিধি এত দুঃখ দিল । এবে সে জানি কৃ চৃঃ ম! সবে ত্যজিল ॥ আমি তো শরীর ধfর পঞ্চজন প্রাণ । 1. সে প্রাণ হরিয়া যদি নিল ভগবান ॥ নিতান্ত যদ্যপি কৃষ্ণ ছাড়েন আমারে । আমিও ত্যজিব প্রাণ মৃত্যু-সরোবরে ॥ আমার যতেক দুঃখ শুনিলে নিশ্চয় । তুমি কেন নিবারণ কর মহাশয় ॥