পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনপৰ্ব্ব । ] ঈড়ে হন্তৈদানং রথচরণোদরে খড়গখেটে গদার্থাং। 88? -صے : তথাপি সে জন মুখী সংসার ভিতর। বরিচর শুন চারি প্রশ্নের উত্তর ॥ ৪ ॥ যুধিষ্ঠিরের প্রতি ধৰ্ম্মের ছলনা। প্রশ্নের উত্তর শুনি ধৰ্ম্ম মহাশয় । আমি ধৰ্ম্ম বলিয়া দিলেন পরিচয় ॥ ধর মাগ নরপতি হ’য়ে একমন । জীয়াইয়া লহ তব ভ্রাতা একজন ॥ যুধিষ্ঠির শুনিয়া করেন নিবেদন । কেবল সতত যেন ধৰ্ম্মে থাকে মন । আর যদি অনুগ্রহ কর মহাশয় । প্রাণ দেহ সহদেবে বিমাতু-তনয় ॥ ধৰ্ম্ম বলিলেন রাজা তুমি জ্ঞানহীন । অত্যন্ত বালক তুমি না হও প্রবীণ ॥ বিশেষ বৈমাত্র ভ্রাতা অনেক অন্তর । জীয়াইয়া লহ তব ভাই বৃকোদর ॥ নতুবা অৰ্জুনে রাজা বাচাইয়া লহ । পরপুত্র কি কারণে জীয়াইতে চাহ ॥ লক্ষীস্বরূপিণী যিনি কৃষ্ণ গুণবতী । সথবা ইহার প্রাণ লহ নরপতি ॥ খছিয়ে প্রবল রিপু দুষ্ট দুর্য্যোধন । হুমার্জন বিনা তারে কে করে নিধন ॥ কুরুমুদ্ধে শক্ত মাত্র পার্থ বৃকোদর। 'ক কাৰ্য্য হইবে তব জীয়াইয়া পর ॥ রাজা বলে পর নহে বিমাতা-নন্দন । স্টদেব নকুল আমার প্রাণধন ॥ ই মার্ক্সন হৈতে স্নেহ করি আতিশয় । 5র দেহ প্রাণ পায় বিমাতৃ-তনয় ॥ বিশেষ আমার এক শুন নিবেদন । মমি হৈতে পিণ্ড পাবে মম পিতৃগণ ॥ পম মাতামহগণ তারা পিণ্ড পাবে । "ফুলের মাতামহে কেবা পিণ্ড-দিবে ॥ Tইদেব প্রাণ পেলে ধৰ্ম্ম রক্ষা পায় । '55 পরম ধৰ্ম্ম একেবারে যায় ॥ ঘেঁতে প্ৰভু যদি করি হেলা । "সন্ধু তরিবারে নাছি আর ভেলা ॥ 2. হেন ধৰ্ম্ম লঙ্ঘিতে জামার মন নয় । নিতান্ত আমার এই কথা কৃপাময় ॥ মহাভারতের কথা অমৃত লহর । কাশীরাম দাস কঙ্গে ভবভয়ে তরি ॥


سه سد. --مه -

ধৰ্ম্মের নিকটে যুধিষ্ঠিরের বরলাভ ও কৃষ্ণা সহ চারি ভ্রাতার পুনৰ্জ্জীবন লাভ । শুনিয়া রাজার বাণী ধৰ্ম্ম মহাশয় । আমি তব পিতা বলি দেন পরিচয় ॥ ; তব ধৰ্ম্ম জানিবারে করিয়া মনন । এই সরোবর আমি করেছি স্বজন ॥ এত বলি ধৰ্ম্মরাজ পুত্র নিয়া কোলে । লক্ষ লুক্ষ চুম্ব দেন বদনকমলে ॥ ধন্য কুন্তী তোমা পুত্রে গর্ভে ধরেছিল। তোমার ধৰ্ম্মেতে বিশ্ব পবিত্র হইল ॥ আমার বচন শুন পুত্র যুধিষ্ঠির । শেষ দুঃখ সম্বরহ মন কর স্থির ॥ ধৰ্ম্মেতে ধাৰ্ম্মিক তুমি হও মতিমন্ত । অচিরাং হুইবে তোমার দুঃখ অন্ত ॥ দয়াশীল ধৰ্ম্মবান ক্ষয়াবান ধীর । জানিলাম তুমি সৰ্ব্ব গুণেতে গভীর ॥ অল্পদিনে নষ্ট হবে কৌরব দুরন্ত । কহিনু তোমারে আমি ভবিষ্য বৃত্তান্ত ॥ ধৰ্ম্ম ন ছাড়িও তুমি ধৰ্ম্ম কর সার। অনায়াসে দুঃখের সাগরে হবে পীর ॥ এত বলি আশ্বাসিয়া মধুর বচনে । কৃষ্ণ সহ বাচাইল ভাই চারি জনে ॥ প্রণাম করিয়া কছিছেন নৃপমণি । সহায় সম্পদ তব চরণ দুখানি ॥ আশীৰ্ব্বাদ করি ধৰ্ম্ম গেলেন স্বস্থানে । প্রাণ পেয়ে পঞ্চজন ভাবিছেন মনে ॥ কি জন্য এ স্থানেতে আম পঞ্চজন । ভাবিয়া না পাই কিছু ইহার কারণ ॥ হেনকালে দেখি তথা ধৰ্ম্মের নন্দনে । শীঘ্ৰগতি তথা আসি ভেটে পঞ্চজনে ॥