পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ꭶ☾b• মার্জনী কলসে পেতাং সূৰ্পালঙ্কত মস্তকাং ॥ [ মহাভারত | দরিদ্র ভিক্ষুক আর ভট্ট আদি যত । দিতেছে সকল দ্রব্য বিছর সম্মত ॥ যত দ্রব্য আসে তত দিতেছে সকল । পুনঃ পুনঃ আসে যেন জোয়ারের জল ॥ কত জনে কত দেয় নাহি পরিমাণ । অদরিদ্র কৈল পৃথী দিয়া বহু দান ॥ উনশত ভাই সহ নিজ পরিবার। দুৰ্য্যোধন দ্বারী রাখে পশ্চিম দুয়ার ॥ গোবিন্দেরে নিরখিয়া বলে দুৰ্য্যোধন। কহ কোন হেতু দাণ্ডাইলা নারায়ণ ॥ গোবিন্দ বলেন ইনি লঙ্কার ঈশ্বর । যাইতে নিবারে কেন তোমার কিঙ্কর ॥ দুৰ্য্যোধন বলে কৃষ্ণ নাহি তার দোষ । আপনি জানহ তুমি ভীমের আক্রোশ ॥ আসিবা মাত্রেতে ল’য়ে চাহ ভেটিবারে। আজ্ঞা বিনা কিমতে দ্বারীতে দ্বার ছাড়ে ॥ এইক্ষণে আসিবেক মাদ্রীর নন্দন । ক্ষণমাত্র হেথায় বৈসহ নারায়ণ ॥ এত বলি দুৰ্য্যোধন দিল সিংহাসন । দুই সিংহাসনে বসিলেন দুইজন ॥ কে বুঝিতে পারে জগন্নাথের চরিত। অখিল ব্রহ্মাও র্যার মায়ায় মোহিত ॥ ধন্য রাজা ইন্দ্রদ্যুম্ন জন্ম শুভক্ষণে । হেন প্রভু বশ কৈল আপনার গুণে ॥ ধন্য ধন্য অশ্বমেধ কৈল শত শত । কটোর তপস্য রাজা ধন্য কৈল কত ॥ কেহ যজ্ঞ ব্রত করে বৈভব কারণ। ইন্দ্রপদ বাঞ্ছে কেহ কুবের তপন ॥ তিনলোক মধ্যে ইন্দ্রদ্যুম্বেরে বাখানি । কত ইন্দ্রপদ যার কৰ্ম্মের নিছনি ॥ “যাহার যশের গুণে পূরিল সংসার । ক্ষিতিমধ্যে খণ্ডাইল যম অধিকার ॥ যাবৎ ব্রহ্মাণ্ড আর যাবৎ ধরণী । করিল অদ্ভূত কীৰ্ত্তি নিস্তারিতে প্রাণী ॥ গোহত্য। স্ত্রীহত্য আদি করে যে নারকী । অবহেলে স্বর্গে যায় কৃষ্ণমুখ দেখি ॥ | | | জন্মে জন্মে কাশী অাদি নানা তীর্থ সেবেী তপ ক্লেশ যজ্ঞ ব্ৰত সদা করে যবে । পঞ্চ পাতকীতে যদি কৃষ্ণমুখ দেখে । সে কোটি কল্পের পাপ শরীরে না থাকে। জগন্নাথ মুখপদ্ম যে করে দর্শন । , জগন্নাথ নাম যেবা করয়ে স্মরণ ॥ পৃথিবীর মধ্যে তার সফল জীবন । কাশীরাম প্রণময় তাহীর চরণ ॥ সৰ্ব্বলোক মূছ। জন্মেজয় ভূপতি মুনিরে জিজ্ঞাসিল । কহ দেখি তদন্তরে কি প্রসঙ্গ হৈল ॥ মুনি বলে শুন পরীক্ষিতের নন্দন । বিভীষণ সহ বসিলেন নারায়ণ ॥ পরিশ্রম হয়েছিল পদব্রজে চলি । চতুর্দিকে বিশেষ লোকের ঠেলাঠেলি ॥ চৌদিকে অযুত ক্রোশ সভা পরিসর । ভ্ৰমিয়া দোহার শ্রান্ত হৈল কলেবর ॥ সিংহাসন উপরে বসিল দুইজন । হেনকালে তথা আসে মাদ্রার নন্দন ॥ গোবিন্দে দেখিয়া বীর কৈল নমস্কার । ডাকি কৃষ্ণ জিজ্ঞাসেন সব সমাচার ॥ দুই তিন দিন নাহি রাজ সম্ভাষণ । কহ দেখি সহদেব সব বিবরণ ॥ সহদেব বলেন শুনহ দামোদর । তুমি গেলে আসিবেন যতেক অমর ॥ সকলের হুইয়াছে রাজ দরশন। তোমারে দেখিতে যে আছয়ে সৰ্ব্বজন ॥ দেববৃন্দ লইয়া আছেন দেবরাজ । তুমি গেলে ভেটিবেক দেবের সমাজ ॥ এত শুনি উঠিলেন শ্ৰীবৎসলাঞ্ছন। র্তাহার সহিত গেল নিকষানন্দন ॥ সভামধ্যে প্রবেশ করেন নারায়ণ । গোবিন্দেরে দেখিয়া উঠিল সৰ্ব্বজন ॥ মণ্ডলী করিয়াছিল বেদীর উপরে । কৃষ্ণে দৃষ্টি করিয়া পড়িছে বায়ুভরে ॥