পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Հե-Ե বালক-মণ্ডলাকার লাচতিয়াগিং | [ মহাভারত। স্বত্তরাষ্ট্র স্থানে দুৰ্য্যোধনের বিষাদ । শুনি জন্মেজয় জিজ্ঞাসেন মুনিবরে। কহ শুনি কি প্রসঙ্গ হৈল তদন্তরে ॥ কেন বনে চলিলেন পিতামহগণ । শুনিবারে ইচ্ছা বড় কহ তপোধন ॥ মুনি বলে পঞ্চ ভাই ইন্দ্র প্রস্থে গেলে । করযোড়ে দুঃশাসন দুর্য্যোধনে বলে ॥ যতেক করিলা সব বৃদ্ধ বিনাশিল । যে সব জিনিলা তারে পুনঃ তাহা দিল ॥ দুৰ্য্যোধন দুঃশাসন রাধেয় শকুনি । অতি শীঘ্ৰ গেল যথা অন্ধ নৃপমণি ॥ দুৰ্য্যোধন বলে তাত অনর্থ করিলা । বন্দী করি দুষ্ট সিংহ পুনঃ ছাড়ি দিলা ॥ বৃহস্পতি ইন্দ্রকে যে কহিলেন নীত । তুমি কি ন জান তাহ। তোমাতে বিদিত ॥ যেমতে পরিবে শক্র করিবে নিধন । ছলে বলে শক্রকে না ক্ষমি কদাচন ॥ পাণ্ডব হইতে জিনিলাম যত ধন । * > বাহুড়িয়া দেহ তারে কিসের কারণ ॥ স্নেহ করি পুনঃ সব তুমি দিলা তারে । এখন কি পাণ্ডুপুত্র ক্ষমিবে আমারে ॥ ক্রোধে সপবৎ হয় পাণ্ডু-পুত্ৰগণ । যত কছিলাম না ক্ষমিবে কদাচন ॥ সকল ক্ষমিবে তাত তোমার পরিতে । দ্রৌপদীর কষ্ট না ক্ষমিবে কদাচিতে ॥ সৈন্য সাজিবারে তার গেল নিজদেশ । যুদ্ধ হেতু আসিবেক করি সমাবেশ ॥ সশস্ত্রে থাকিলে রথে পাণ্ডুরপুত্ৰগণ । জিনিতে না হবে পক্ত এ তিন ভুবন ॥ আর শুন তাত যবে মুক্ত হয়ে যায় । মুহুমুহু পার্থ বীর গাণ্ডীব দেখায় ॥ দক্ষিণ বামেতে দুই তৃণ ঘন দেখে । সঘনে নিশ্বাস ছাড়ে হস্ত দিয়া নাকে ॥ অতিশয় গৰ্জ্জিয়া যাইছে বৃকোদর। ঘন গদা লোফয়ে কচালে করে কর । স্নেহেতে তুলিয়া তাত করিলা কি কাষী মোর ক্লেশ হেতু স্বয়ং হৈল মহারাজ ॥ শুনিয়া অস্থির হৈল চিত্তে কুরুরায় । -=ആ অন্ধ বলে কি হইবে কি করি উপায় ॥ দুৰ্য্যোধন বলে তাত আছয়ে উপায় । পুনঃ পাশা প্ৰবৰ্ত্তিয়া করহ নির্ণয় ॥ যে হারিবে দ্বাদশ বৎসর যাবে বন । বৎসরেক অজ্ঞাত থাকিবে এই পণ ॥ বৎসর অজ্ঞাত বাস মধ্যে জ্ঞাত হয় । পুনরপি ৰনবাস অজ্ঞাত নিশ্চয় ॥ ক্রয়োদশ বৎসর পাণ্ডব গেলে বনে । পৃথিবীর যত রাজা করিব আপনে ॥ ইহা বিনা উপায় নাহিক মহাশয় । আজ্ঞা কর আনিবারে পাণ্ডুর তনয় ॥ শুনি অন্ধ আজ্ঞা দিল প্রতিকামী প্রতি : যাও শীঘ্ৰ ফিরি আন ধৰ্ম্ম নরপতি ॥ পথে কিবা ইন্দ্রপ্রস্থে যথায় ভেটিবে। মম আজ্ঞ বলি পুনঃ আনহ পাণ্ডবে ॥ এত শুনি বলে দ্রোণ কৃপ সোমদত্ত । বাহলীক বিদুর মন্ত্রী বিকর্ণাদি যত ॥ একে একে পুনঃ পুনঃ সবাই কহিল । পুত্রবশ হয়ে রাজা শুনি না শুনিল । কার’ বাক্য না শুনিল কুরু অধিকার : কহিতে লাগিল তবে গান্ধারী সুন্দরী ! মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ পুনঃ পাশা খেলারস্ত । গান্ধারী কহিছে রাজা কর অৰধান : শিশুর বচনে কেন হও হতজ্ঞান ॥ যখন জন্মিল এই দুষ্ট দুৰ্য্যোধন । বিপরীত শব্দেতে কম্পিত সৰ্ব্বজন ॥ বিদুর বলিল এরে করহ সংহার। ইহামারি রাখ রাজ বংশ আপনার } এ পাপিষ্ঠ-স্নেহে না শুনিলা ক্ষত্তবাণী সেই কাল উপস্থিত হৈল নৃপমণি ॥