পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


80 o বালোজজ্ঞাকটরস্থলকলিতরণৎ কিঙ্কিণীকো যুকুন্দ: , মহাভান পাশায় জিনিয়া ধৰ্ম্ম অনেক রতন । নিভৃতে বাটিয়া লন যত ভ্রাতৃগণ ॥ ভীমের রন্ধনে তুষ্ট হইল রাজন । বশ হৈল যত জন করিল ভোজন ॥ মল্লযুদ্ধে বড় তুষ্ট হইয় রাজন । অপণ করিল ভীমে কনক রতন ॥ অৰ্জ্জুনের দেখি নৃত্য গীত বাস্থ্যরস : অন্তঃপুরে-নারাগণ সবে হৈল বশ ॥ বহুকাল অশ্বগণ দুষ্টমতি ছিল । নকুলের করস্পর্শে সবে শান্ত হৈল ॥ গাভিগণ বাড়িল হইল ক্ষীরবর্তী । সহদেব-গুণে বশ হৈল মৎস্যপতি ॥ পাণ্ডবের-গুণে বশ মৎস্যপতি হৈল । এইরূপে তথায় চতুর্থ মাস গেল ॥ মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥


শঙ্করথা ও ভী: মধুব্ধ । পূৰ্ব্বাপর কৌলিক আছয়ে মংস্যদেশে । শঙ্কর নামেতে যাত্র অর্ণ রাধে মহেশে । করিল শঙ্কর যাত্র বিরাট র! জন । নানা দেশে হইতে আইল বহুজন । দ্বিজ আদি চারি জাতি স্ত্রী পুরুষগণ । নৃত্য গীত মহোৎসব করে জনে জন ॥ পণ্ডিতে পণ্ডিতে কথা শাস্ত্রের বিবাদ । হস্তী হস্তী যুদ্ধ হয় ছাড়ি ঘোরনাদ ॥ কৌতুকে দেখেন তথা বিরাট রাজন । পৰ্ব্বত আকার লক্ষ লক্ষ মল্লগণ ॥ মল্লগণ মধ্যে এক মল্ল বলবান । সর্বব মল্লগণ করে যাহার বাখান ॥ সৰ্ব্ব মল্লগণ মধ্যে ছাড়ে সিংহনাদ । কে আছে আমার সঙ্গে করছ বিবাদ ॥ লাখে লাখে বড় বড় যত মল্ল ছিল । অধোমুখ হ'য়ে কেহ উত্তর না দিল ॥ ডাকিয়া বলয়ে মল্ল নৃপতির প্রতি । মোর সঙ্গে যুঝে হেন দেহ নরপতি ॥ | চিন্তিয়া বিরাট তবে করিল স্মরণ । সুপার বলভেরে ডাকিল তখন ॥ বিরাট কহিল তুমি কছিয়াছ পূৰ্ব্বে । । এ মল্ল সহিত রণ কর তুমি এবে ॥ এ মল্ল সহিত পার যুদ্ধ করিবারে । তোমারে তুষিব আজি রাজ-ব্যবহারে । ভীম বলে নরপতি জানছ আপনে ; যতেক কহিনু পূর্বে উদর-ভরণে ॥ সে সব স্মরিয়া যদি চাহ বধিবারে । এ মল্ল সহিত তবে যুঝাও আমারে । মহাবলবান মল্ল পৰ্ব্বত আকার । পেটাৰ্থ ব্রাহ্মণ আমি জাতি সূপকার । এ মল্ল সহিত যদি করাও সংগ্রাম ; দ্বিজবধ ভয় না করিও পরিণাম । শুনিয়া নিঃশব্দ হৈল মৎস্যের ঈশ্বর : কতক্ষণে কঙ্ক তবে করেন উত্তর । যার যে আশ্রয়ে থাকে পণ্ডিত সুজন যথাশক্তি র্তার আজ্ঞা না করে হেলন । | পুনঃ পুনঃ মল্লগণ বলিছে রাজারে । রাজার হয়েছে ইচ্ছা যুদ্ধ দেখিবারে কর প্রীতি রাজারে দেখুক সৰ্ব্বজন । একবার মল্লের সহিত করি রণ ॥ যুধিষ্ঠির-বাক্য শুনি বীর বৃকোদর । পুনরপি নৃপতিরে করিল উত্তর ॥ তোমার প্রসাদে আর কঙ্কের প্রসাদে । ন জীবেক মল্ল আজি পড়িল প্রমাদে ॥ এত বলি রঙ্গসভা মধ্যে দাণ্ডাইল । ডাক দিয়া বৃকোদর মল্লেরে কছিল ৷ যদি মৃত্যু ইচ্ছ। তবে যুদ্ধ কর আসি । প্রাণ ইচ্ছা থাকে যদি পলাও প্রবাসী ৷ ভীমের বচন শুনি সে মল্ল কুপিল । মহা পরাক্রম করি ভীমেরে ধরিল ॥ পৰ্ব্বত নাড়িতে কোথা বামুর শকতি । না পারিল চালিবারে ভীম মহামতী । ঈষৎ হাসিয়া ভীম ধরি দুই পায় । অন্তরীক্ষে তুলিলেন ঘুরাইয়া তায় ॥