পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


3Q ○ জয়দ্রথ-ভয় হৈতে করিলা উদ্ধার । জটাস্কর মারিয়া করিলে প্রতিকণর ॥ এখন কীচক-ভয়ে কর পরিত্রাণ । তোম। বিনা রাখে এতে নাহি কোন জন ॥ যুধিষ্ঠির-আজ্ঞা হেতু বিচারিছ চিতে । আজ্ঞা করেছেন তিনি কচকে দণ্ডিতে ॥ তখনি বিদিত হুৈত পুর্ণ সভাসাবা । ধৰ্ম্মভয় করিয়া ক্ষমিল মহারাজ ॥ এত শুনি চিন্তি ভীম বলিল বচন । ন কর ক্ৰন্দন দেবি স্থির কর মন ॥ এত বলি ক্রোপে ভীম অরুণ নয়ন । মাfরব কীচকে আমি বলিনু বচন ॥ সময় করিব এক কিন্তু তার সনে । উপায়ে মারিব মন কেহ নাহি জানে ॥ আজিকার মত তুমি মাহ নিজালয় । কালি প্রীতে তার সঙ্গে করি ও সময় ॥ নৃত্যশালে মাথা কন্যাগণ নৃত্য শিখে । রজনীতে শূন্য ব্লগ: কহু নাহি থাকে ॥ তথায় নির্ববন্ধ কর শন করিবারে । সেই ঘরে পাপিষ্ঠ পাঠাব যমপুরে । ভীমের প্রতিজ্ঞ শুনি সম্বরি ক্রন্দন ! নয়ন মূছিয়া কৃষ্ণ করিল গমন । রজনী প্রভাত হৈল কীচক উঠিল । যথ রাজ্ঞসুrচ্চ কৃষ্ণ দ্রুতগতি গেল । দ্রৌপদীর প্রতি বলে দম্ভ করি বলে । ধাইয় সে গেলে তুমি রাজসভা স্থলে ৷ রাজ বিদ্যম: নে তোরে প্রহারলু লাথি । কি করিল আম: র বিরাট নরপতি । মম বাহুবলে রাজ্য ভূঞ্জে নরপতি । কি করিত্রে সম্পর মীর কণহfর কতি ; ভক্তহু সৈরিন্ধী ম’রে ক্ষম ন!ষ ম’র । এই দেখ দন্তে তৃণ দাস হৈ তfর । কৃষ্ণ বলিলেন বশ হুইলাম আমি । কিন্তু মম আছয়ে গন্ধৰ্ব্ব পঞ্চ স্বামী । তাহা সবাকরে বড় ভয় হয় মনে । এমন করহ যেন কেহ নাহি জানে ॥ নীলকণ্ঠের ধ্যান—ওঁ বালর্কাযুক্ততেজসং । নৃত্যশালা রজনীতে থাকে শূন্যাগার । [ মহাভারত ! –s তথ। নিশি তব সঙ্গে করিব বিহার ॥ এত শুনি কীচক হইল হৃষ্টমন । শীঘ্ৰগতি নিজ গৃহে করিল গমন । নানা গন্ধ চন্দনাদি অঙ্গেতে লেপিল দিব্য রত্ন অলঙ্কার অঙ্গেতে ভূষিল । সৈরিন্ধীর চিন্তা করি বিরহ হুতাশে ক্ষণে ক্ষণে-দিনকর নিরথে আকাশে । কতক্ষণে হবে অস্ত দেব দিবাকর । পুনঃ বাহিরায় পুনঃ প্রবেশয়ে ঘর ॥ হেথ কৃষ্ণ ভীমেরে কহিল সমাচার । নৃত্যাগারে রাত্রিতে আসিবে চরাচীর । যথোচিত ফল আজি দিবে তার প্রতি প্রভাত না হয় যেন আজিকার রীতি এমতে আসিয়া হৈল সন্ধ্যার সময় । বৃকোদর আগ্নে চলি গেল নৃত্যালয় ॥ অন্ধকার করি বৈসে পালঙ্কের মারে মৃগ মারিবারে যেন জাগে মৃগরাজে ! আনন্দিত চিত্ত হ’য়ে কীচক চলিল । একেল হইয়া সঙ্গে করে ন; লইল : যথায় পুরুষসিংহ আছে বৃকোদর । কীচক বসিল গিয়া পালঙ্ক উপর ॥ কামবাণাঘাতে ছষ্ট মোহিত হইয়: । অঙ্গে হাত বুলাইয়া বলিছে হাসিয়া ! লোহা হৈতে অধিক কঠিন ভামক?? কামানলে দগ্ধ বুঝে সৈরিন্ধ’র প্রায় । আমার মহিম! তুমি না জান সুন্দরি মম রূপ গুণে বশ যত নর-নারী । পৰ্ব্ববভাগ্যে সৈরিন্ধ পাইলে তুমি মে’র সবারে ত্যজিয়। আমি ভজিলু তোমার ! ভীম বলে বড় ভাগ্য আমার আছিল । সে কারণে তাম; স্বামী বিপি সিলা ঈণ } তোমার মহিম। আমি নাহি জানি পূর্বে । সে কারণে হেল! কৈলু গন্ধৰ্ব্বের গঠকব । কিন্তু এক তাপ মম জাগিতেছে মনে | রাজসভা মধ্যে মোরে মারিলা চরণে ।