পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8૭૨ নাগেন্দ্রৈঃ কৃতশেখরং জপবটং শূলং কপালং করৈঃ । [ মহাভারত । অশ্বগণ ধরিয়া প্রহারে অশ্বগণে । পদাতি পদাতি মারে ধরিয়া চরণে ॥ তাহারে ধরিয়া মারে যে পড়ে সম্মুখে । রথ অশ্ব কুঞ্জর পড়িল লাখে লাখে ॥ পলায় সকল সৈন্য পাছু নাহি চায় । সিংহের গর্জনে যেন শৃগাল পলায় ॥ পালাও পালাও বলি হৈল মহাধ্বনি । আইল আইল সৈন্য এই মাত্র শুনি ॥ উৰ্দ্ধশ্বাসে দূত গিয়া কহে হশৰ্ম্মারে । বসিয়! কি কর রাজা পলাও সত্বরে ॥ আচম্বিতে সৈন্য মধ্যে আইল একজন । রাক্ষস গন্ধৰ্ব্ব কিবা না জানি কারণ ॥ মহাভয়ঙ্কর মূৰ্ত্তি ন জানি কি রঙ্গ । প্রকাণ্ড শরীর যেন হিমাদ্রির শৃঙ্গ ॥ মারিল অনেক সৈন্য যে পড়ে সম্মুখে । স্থশৰ্ম্ম স্থশৰ্ম্ম বলি ঘন ঘন ডাকে ॥ বুবিয়া করহ কৰ্ম্ম যে হয় বিচার । তার অগ্ৰে পড়িলে না দেথি প্রতিকণর ॥ যত সৈন্য পাড়িল না দেখি তার অন্ত । নাহি জানি এথা আছে এমত দুরন্ত ॥ পলা ও নৃপতি শীঘ্ৰ, প্রাণ বড় ধন । হের দেখ আগষ্টল ভীষণ দরশন ॥ এত বলি ধায় দূত পাছু নাহি চায় । হেন কালে উপনীত ভীম মহাশয় ॥ ভীমের শরীর দেখি অতি ভয়ঙ্কর । ভয়েতে কম্পিত স্বশৰ্ম্মার কলেবর ॥ পলাইল সৰ্ব্বজন রাজা মাত্র অাছে । ভয়েতে আবৃত হৈল ভীমে দেখি কাছে ॥ দ্রুতগতি উঠিয়া স্নশৰ্ম্মী রড় দিল । কেশে ধরি বৃকোদর ভূমিতে পাড়িল ॥ দৃঢ়মুষ্টি করি কেশ ধরি বাম হাতে । দক্ষিণ করেতে ধরি নিল মৎস্যনাথে ॥ দুই করে ধরি দুই নৃপতির কেশে । বায়ুবেগে ধায় ভীম ভয়ঙ্কর বেশে ॥ মুহুর্তেকে উপনীত যথা ধৰ্ম্মরায় । । চরণে ফেলিয়া ভীম অস্তরে দাড়ায় ॥ কেশের ঘর্ষণে দোহে হ’য়ে অচেতন । কতক্ষণে চেতন পাইল দুইজন ॥ মাথা তুলি মৎস্যরাজ দেখি সভাসদে । কতক আশ্বস্ত চিত্তে কহে সে বিপদে ॥ কহ ভট্ট কঙ্ক ভাগ্যে দেখিমু তোমায় । অামা দোহে ফেলি গেল গন্ধৰ্ব্ব কোথায় । ভাগ্যেতে রহিল প্রাণ গন্ধর্বের্বর হাতে । চল যাব শীঘ্ৰগতি পশিব সৈন্তেতে ॥ পুনৰ্ব্বার আসিয়া গন্ধৰ্ব্ব পাছে ধরে । এবারে না জীব আমি দেখিলে তাহরে { ধৰ্ম্ম বলিলেন ভয় না কর নৃপতি । গন্ধৰ্ব্ব রাজার বড় স্নেহ তোমা প্রতি । সে কারণে শক্ৰ তব আনিলেক ধরি। শক্ৰ হৈতে তোমারে দিলেক মুক্ত করি ; গন্ধবের্বর ভয় না করিবে কদাচন । কাৰ্য্য করি নিজস্থানে করিল গমন ॥ স্বশৰ্ম্মারে চাহিয়া বলেন ধৰ্ম্মরায় । হেথায় আসিতে বুদ্ধি কে দিল তোমায় । কীচক মরিছে বলি পাইলে ভরসা । না-জান গন্ধৰ্ব্ব হেথা করিতেছে বাসা : ভাগ্যেতে গন্ধৰ্ব্ব তোম ন মারি ল প্রাণে পূর্ব পুণ্যফলে জালা গন্ধৰ্ব্বের স্থানে ' আজ্ঞা কর মৎস্যরাজ স্থশৰ্ম্মার প্রতি । ক্ষমহ সকল দোষ ছাড় শীঘ্ৰগতি ॥ সৈন্যগণ পলাইল এক মাত্র আছে । করহ প্রসাদ রাজা যাহ। মনে হচ্ছে li বিরাট কহিল যে তোমার অনুমতি । যাহ নিজ রাজ্যেতে হশৰ্ম্ম নরপতি । দিব্য এক রথ দিল করিয়া সীজন । রথে চড়ি স্বশৰ্ম্ম যে করিল গমন ॥ ধৰ্ম্মরাজ বলিলেন বিরাটের প্রতি । নগরেতে দূত রাজা যাক শীঘ্ৰগতি । তোমারে শুনিলে বন্দী রাজ্যে হবে ভয় । রাণীগণ দুঃখী হবে ভাল কৰ্ম্ম নয় ॥ শীঘ্ৰগতি বার্তা দূত দেহ অন্তঃপুরে । বিজয় ঘোষণা হোক রাজ্যের ভিতরে "