পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৫১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উদ্যোগপৰ্ব্ব । ] মধুভাঙ্গরের ধ্যান—ওঁ রক্তাস্যনেত্ৰং— ৫ ও ৯ রাগিয়া আনিব দান বলি দৈত্যেশ্বরে। এত বলি চলিলেন বলির জুয়ারে ॥ বলি রাজা যজ্ঞ করে বসি যজ্ঞস্থলে । দ্বারে দেখি বামনে কহিল শুক্র ছলে ॥ অবধান কর বলি বলিব বিশেষে । এই যে বামন আসে বালকের বেশে ॥ অদিতির গর্ভে জন্ম বিষ্ণু অবতার। হইয়াছে তোমারে ছলিতে অগ্রসর । যে কিছু মাগিবে এই না দিবে তাহারে । এত শুনি দৈত্য কহে শুক্রে হাসি ভরে ॥ ম বুঝিয়া গুরু কেন কহ অকারণ । স্বয়ং নারায়ণ যদি এই সে ব্রাহ্মণ ॥ যাহার উদ্দেশে যজ্ঞ করি অনিবার। তিনি যদি ইনি তবে সৌভাগ্য আমার ॥ ব্ৰহ্মাদি দেবত র্যার পূজয়ে চরণ । উদ্দেশে মাগয়ে বর যত দেবগণ ॥ সেই প্রভু আসে যদি আমার আলয় । তবে গুরু অতি গুরু মম ভাগ্যোদয় ॥ মাগিবেন যাহা তিনি করিব প্রদান । ইহাতে কি জন্য কর বিরোধ সন্ধান ॥ ধৰ্ম্মকৰ্ম্মে বাধা দেও অতি অনুচিত । এত শুনি শুক্র গুরু হইল দুঃখিত ॥ “প দিল বলি দৈত্যে মহাক্রোধভরে । মম বাক্য না শুন ঐশ্বৰ্য্য অহঙ্কারে ॥ এই শাপে হইবে ঐ ভ্রষ্ট এইক্ষণে । এই বলি শুক্র গুরু গেল ক্রুদ্ধমনে ॥ উপনীত হইলেন তখনি বামন । পূৰ্ণ বালক রূপ ধরি নারায়ণ ॥ gখ যজ্ঞ-হাতাগণ মানিল বিস্ময় । ভাঠ করঘোড়ে বিরোচনের তনয় ॥ 4ণমি করিয়া দিল বসিতে আসন । * ভীমধ্যে দ্বিজশিশু বৈসেন বামন ॥ ইতগুলি করি স্তুতি কহে মতিমান । ইস্ট সফল মম যাগ যজ্ঞ দান । "জ সে সফল জন্ম হইল আমার । * কারণে আইলা আমার এ আগার ॥ যাহা চাহ দিব তাহ না হবে অন্যথা । ত্রিভুবন চাহ যদি আপিৰ সৰ্ব্বথা ॥ শুনিয়া কহেন হাসি কপট বামন । বহুদানে আমার কি আছে প্রয়োজন ! ব্রাহ্মণ বালক আমি তপস্যা-তৎপর। গ্রাম ভূমি আমার কি কাজ দৈত্যেশ্বর ॥ • ধ্যানে তপে জপে মম যায় সৰ্ব্বক্ষণ । বহুদান ল’য়ে মম নাহি প্রয়োজন ॥ অরণ্যনিবাসী আমি ফল মূলাহারী । সে কারণে কহি শুন দৈত্য-অধিকারী ॥ যদি দিবা দান তুমি করিয়াছ মনে । তিন পদ ভূমি দাও মাপিয়া চরণে ॥ তপ করিবারে চাহি বসিয়া তাহাতে । ইহা ভিন্ন অন্য কিছু না চাহি তোমাতে ॥ তুমি দান সম দান নাহি ত্রিভুবনে । ভূমিদান মাহাত্ম্য শুনহ নৃপমণে ॥ সুঘোষ নামেতে এক আছিল ব্রাহ্মণ । সৌভরী নগরবাসী দরিদ্র লক্ষণ ॥ ধনাৰ্থে করিল বহু রাজ্য পর্য্যটন । ন। মিলিল ধন তার অদৃষ্ট কারণ ॥ ছয় পত্নী পুত্র পৌত্র বহু পরিজন । উপার্জক সেই মাত্র একেল ব্রাহ্মণ ॥ নিরন্তর ভিক্ষ মাগি আনিয়ে ব্রাহ্মণ । ভ্রমণ ব্যতাক নহে উদর-ভরণ ॥ একদিন দ্বিজবর ভিক্ষায় না গেল । আলস্ত করির নিজ গৃহেতে রহিল ॥ অন্ন হেতু কান্দয়ে সকল শিশুগণ । শুনিয়া হৃদয়ে তাপ পাইল ব্রাহ্মণ ॥ আপনারে নিন্দ করি অনেক কহিল : নিরর্থক জন্ম মম জগতে ইহল । ধনহীন মনুষ্যের জন্ম অকারণ । মনুষ্যের মধ্যে কেহ না করে গণম | ব্রাহ্মণ ক্ষত্ৰিয় বৈশ্য শূদ্র যত জন । ধনহীন হৈলে কেহ না করে গণন ॥ ভাৰ্য্য পুত্র অরি ছয় কেহ না আদরে । ধনহীন হৈলে কিছু করিবারে নfর ॥ "