পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৫৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভগ্নপর্ব ] রক্তলোচনাং কৃষ্ণবস্ত্রধরাকট্যাং বাত্রাজিনসমন্বিতাঃ | )۶ بین \డి ఫి শুনিয়া সকল বাক্য ভোজের নদিনী। iং উপজিয়া তারে দিল অন্ন আনি ॥ । }র পূরিয়া অন্ন খায়-ছয় জন । সেই ঘরে রহে সবে করিয়া শয়ন ॥ রান্ত্ৰিযোগে পুরোচন অগ্নি দিল দ্বারে ॥ প্রলয় হইল অগ্নি আকাশ পরশে । সছদেবে তুমি জিজ্ঞাসিলা রাজা রোষে ॥ সকল জানেন বীর মান্দ্রীর নন্দন । বিদুর রক্ষিত পথ করে নিবেদন ॥ স্তম্ভের নীচেতে পথ হড়ঙ্গ ভিতর । স্তম্ভ উপড়িল তবে বীর বৃকোদর । সেই পথে ছয়জন হইল বাহির । ন ছাড়ি আসিলেন ভীম মহাবীর ॥ করিয়া গেলেন বীর গদা আনিবারে । iীক্ষাৎ হইল অগ্নি ভীমে দহিবারে ॥ বে ভীম অগ্নি প্রতি বলিল বচন । ’মার সমান দিব একশত জন ॥ স্থান নিবৰ্ত্তিল অগ্নি ক্ষমা দিল মনে । ন ল'য়ে বাহির হইল ভীমসেনে ॥ 'রকায় ছিল। প্রভু অপূৰ্ব্ব শয্যায় । গঙ্গে নিলেন তাপ দয়াল হৃদয় ॥ সতে উত্তাপ দেখি ভীষ্মক দুহিতা । ঞ্চে জিজ্ঞাসেন কহ ইহার বারত ॥ রঞ্চ কহেন ইহা বলিবার নয় । o প্রেয়সী, নাহি জিজ্ঞাস আমায় ॥ মহা অগ্নি তাপ নিজ অঙ্গে নিয়া । * স্বাকারে উদ্ধারিলেন আসিন্ধা ॥ তি সন্দেহ কেন কর মহাশয়। ** সমরে তব হইবেক জয় ৷ লি বুঝাইল দ্রুপদ ধৰ্ম্মেরে । o কিল সবে আনন্দ অন্তরে। ংশ কথা ব্যাসদেব বিরচিত। " माग कश् ब्रग्रि गोङ । _ পঞ্চম দিনের যুদ্ধ । আর দিন প্রভাতেতে মিলি দুই দলে । সমুদ্র সদৃশ বুহি করে কুরুকুলে । গ্র্যাধন আজ্ঞ, জেমস পোড়াবারে। রচেন শৃঙ্গট নামে রাহ ইঞ্জি দুই শৃঙ্গ রচিল সাতকি ভীমবীর । সহস্ৰ সহস্ৰ যোদ্ধা করি রণবেণ । কৃষ্ণ সঙ্গে অর্জন রহেন মধ্যদেশ । তার পাছে যুধিষ্ঠির মাদ্রৗপুত্র সনে । অভিমনু্য বিরাট রহিল অনুক্ৰমে ॥ দ্রৌপদীর পঞ্চপুত্র রহে তার পাছে । ঘটোৎকচ মহাবীর তাহদের কাছে ॥ প্রতিব্যুহ করি সবে উঠানি করিল। বিবিধ বিধানে বাদ্য বাজিতে লাগিল ॥ নানা অস্ত্র লইয়া আস্ফালে সব যোধ । পরস্পর দুইদলে লাগিল বিরোধ ॥ যুদ্ধ হয় নানা অস্ত্র ধরি দুই দলে । বিদ্যুৎ চমকে যেন গগনমণ্ডলে ॥ দেখিবার কার্য্য থাক কর্ণে নাহি শুনি । পরস্পর নাহি জ্ঞান বাণে হানাহানি ॥ অশ্ব গজ পড়িল পদাতি বহুতর । দেখিয়া করিল ক্রোধ ভীষ্ম বীরবর ॥ বাসব হইতে যুদ্ধে ভীষ্ম নহে উন । হস্তেতে ধনুক ধরি টঙ্কারিলা গুণ । যতেক পাণ্ডবদল সমরে প্রচণ্ড । শরেতে কাটিয়া ভীষ্ম করে খণ্ড খণ্ড ॥ কার কাটে অশ্ববর কার কাটে গজ । কাহার সারথি কাটে কার’ কাটে ধ্বজ ॥ কাহার’ মুকুট কাটে কার কাটে দণ্ড । কাহার ধনুক কাটে, কার কাটে মুণ্ড ॥ হস্ত পদ কাটে কার কাটে কার’ স্কন্ধ । ঘোরতর সমরেতে নাচয়ে কবন্ধ । সৈন্যের বিনাশ দেখি ধায় বৃকোদর। ; ভীষ্মেরে মারিতে যায় সক্রোধ অন্তর ॥ গদা হাতে ভীমসেন ধাইলেক বেগে । খেদাড়িয়া মারে বীর যারে পায় আগে ॥