পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৫৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উষ্ম বর্ব পাশযুগ্মং দত্তেজস্কুিফলাভৈঃ পরিছরভূভয়ংপাতুমাং ভদ্রকালী ॥ ৫৭৭ দেখিয়া পাইল ভয় প্রভু নারায়ণ । অর্জনে চাহিয়া তবে বলেন বচন ॥ জগত নাশিতে শক্তি ধরে এই বাণ । দেবাহুর গন্ধৰ্ব্বেতে নাহি ধরে টান ॥ অস্ত্র ধনু ত্যগ কর শুন বীববর। বিমুখ হইয়া বৈস রথের উপর ॥ অৰ্জ্জুন বলেন দেব না হয় উচিত । ক্ষত্ৰধৰ্ম্ম ত্যজি-কেন প্রাণে এত ভীত ॥ লহরি বলেন নহে কথার সময় । আমার শপথ অস্ত্র ত্যজ ধনঞ্জয় ॥ ধনু অস্ত্র ত্যজি বীর বসেন বিমুখে । নারায়ণ ডাকিয়া-বলেন সৰ্ব্বলোকে ॥ পাণ্ডব-সৈন্তেতে যত জন অস্ত্রধর । বিমুখ হুইয়া সবে ত্যজ ধনুঃশর ॥ উচ্চৈঃস্বরে শ্ৰীহরি বলেন ঘনে ঘন । শুনিয়া করিল ত্যাগ অস্ত্ৰ সৰ্ব্বজন ॥ নৃপতি সহিত আর যত যোদ্ধাগণ । বিমুখ হইল সবে বিনা ভীমসেন ॥ তাহা দেখি গোবিন্দ বলেন বৃকোদরে । তঙ্গের প্রায় কেন পুড়ে মর শরে ॥ এই ভিক্ষণ দেহ মোরে শুন মহাবল । শর ত্যজি পৃষ্ঠ দিয়া থাকহ কেবল ॥ ভীম বলে হেন বাক্য না বল আমারে । প্রাণ দিব তবু পৃষ্ঠ না দিব সমরে ॥ ভারতের যুদ্ধে আমি করিলাম পণ । সমরেতে পৃষ্ঠ নাহি দিব কদাচন ॥ কি কারণে প্রাণভয়ে রণে ভঙ্গ দিব । নিজ ধৰ্ম্ম ত্যজি কেন নরকে মজিব ॥ এত বলি গদা ধরি রহে মহাবীর । দেখিয়া তাহাতে চিন্তা হইল হরির ॥ মহাতেজোময় অস্ত্র গগনে ধাইল । পাণ্ডবের সৈন্যে অস্ত্রধারী ন পাইল ॥ উiমহস্তে গদা দেখি কোপে আসে বাণ । প্ৰজ্জ্বলিত অগ্নি যেন পৰ্ববত সমান ॥ Cণারনাদে গর্জে শর ভীমে বিনাশিতে । পরিায়ণ দেখি তাহ চিন্তিলেন চিতে ॥ ۹8-سن ۹ রথ ত্যজি ধাইলেন গোবিন্দ সত্বরে । আচ্ছাদিল ভীমসেনে নিজ কলেবরে ॥ মহাতেজোময় অস্ত্র সংসার ব্যাপিল । কৃষ্ণের পরশে তেজ সব সম্বরিল ॥ আপনার তেজ হরি আপনি ধরিয়া । ভীমে রক্ষা করিলেন অস্ত্র নিবারিয়া ॥ স্বর্গে দেবগণ সবে করে জয় জয় । দেখিয়া পাণ্ডবগণ সানন্দ হৃদয় ॥ গঙ্গাপুত্র হইলেন আনন্দিত মন । ধনু এড়ি করিছেন কৃষ্ণের স্তবন ॥ জয় জয় নারায়ণ ভূবনপালন । অখিল ব্রহ্মা গুপতি জগততারণ ॥ নমো নমো বাহুদেব মুকুন্দ মুরারি । নমস্তে মাধব জয় দুষ্ট-দপহারী ॥ সাধু পাণ্ডু সাধু কুন্তী পুত্র জন্মাইল । ত্ৰিজগদীশ্বর যার সারথি হইল ॥ ইত্যাদি অনেক স্তব করে বীরবর। আপনার রথেতে গেলেন গদাধর ॥ গাণ্ডীব লইয়া হাতে ইন্দ্রের নন্দন । করেন মুষলধারে অস্ত্র বরিষণ ॥ সহস্ৰ সহস্র রথী গজ অগণন । বাণে কাটি লইলেন শমন সদন ॥ ধনুক ধরিয়া ভীষ্ম করেন সন্ধান । নিমিষেতে নিবারিল অর্জুনের বাণ ॥ নিবারিয়া অস্ত্র পুনঃ এড়ে আর শর । শরে নিবারিল তাহা পার্থ ধনুৰ্দ্ধর ॥ দোছে দোহাকার অস্ত্র করেন ছেদন । দোহাকার অস্ত্র দোহে করে নিবারণ ॥ হেনমতে বহু যুদ্ধ হয় দুই জনে । নাহি লিখিলাম সব বাহুল্য কারণে ॥ ক্রোধে ভষ্ম পঞ্চ শৱ সন্ধান পূরিল। কবচ ভেদিয়া হাঙ্গে প্রবেশ করিল ॥ করে ধরি অস্ত্র পার্থ করিতে বাহির । মারিল অযুত রর্থী ভীষ্ম মহাবীর ॥ জয়শঙ্খ দিয়া বীর রথ বাহুড়িল । সন্ধ্য। জানি সর্ববজন রণে নিবৰ্ত্তিল ॥