পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৬৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কালালিকুলসঙ্কাশ কুটিলালকপল্লবাং ! Ն ՖԳ দিজর ব্যর্থ করি ধায় বাণপতি । বকঃদেশ বিন্ধিলেক ঘটোৎকচ রথী ॥ বাণাঘাতে ব্যথিত হইল বীরবর। ডাকিয়া বলিল শুন পিতা বৃকোদর ॥ হেন বুঝি অন্তকাল হইল আমার । মৃত্যুকালে কি করিব তব উপকার ॥ এত শুনি বৃকোদর শোকেতে আকুল। প্রকিয় বলিল চাপি পড় কুরুকুল ॥ বরকর্ম করিয়াছ অতুল সংসারে । সম্মুখ সংগ্রামে পড়ি যাও স্বৰ্গপুরে ॥ এত শুনি ঘটোৎকচ হৈল ভয়ঙ্কর। স্বাদশ যোজন দীর্ঘ করে কলেবর ॥ কুরুবল চাপিয়া পড়িল মহাশূর। লক্ষ লক্ষ রথ অশ্ব করিলেক চুর ॥ শত শত হস্তী পড়ে দীর্ঘ দীর্ঘ দন্ত । পদাতিক যত পড়ে নাহি তার অন্ত ॥ কুরুবল ক্ষয় করে ভীমের নন্দন । দেখি শোকাকুল তাহে যত বন্ধুজন ॥ দুই দলে হইল ক্রন্দন কোলাহল । প্রলয়ের কালে যেন সমুদ্র-কল্লোল ॥ দ্বিতীয় প্রহর রাত্রি ঘোর অন্ধকার । এই কালে ঘটোৎকচ হুইল সংহার ॥ রোলন করয়ে যত পাণ্ডবের সেন । স্ট্রর কুলে জয় জয় বাজিছে বাজনা ॥ দ্ৰোণপৰ্ব্ব স্থধারস ঘটোৎকচ বধে । কাশীরাম দাস কহে গোবিন্দের পদে ॥ কণের নিকটে কপটে ইন্দ্রের কবচ গ্রহণ } সুনি বলে শুন পরীক্ষিতের নন্দন । ণেমতে ঘটোৎকচ হইল নিধন ॥ "ইত দেখি ভীম করয়ে রোদন। ধতে গদা করি ধায় মহারুষ্ট মন ॥ - خم থওঁ নাশ হেতু যেন দীপ্তিমান চণ্ড । 7ধমত করে বীর সৈন্য লণ্ড ভণ্ড ॥ এত শত হস্তী পড়ে গদার প্রহারে । মিষেকে পদাতিক দিল যমঘরে। ভীমকে দেখিয়া কাল শমন সমান। ভয়েতে পলায় সবে লইয়। পরাণ ॥ সমস্ত রজনী যুদ্ধ করি সৈন্যগণ । গদাঘাতে খণ্ড খণ্ড হৈল সৰ্ব্বজন ॥ ক্ষুধায় তৃষ্ণায় অবসন্ন কলেবর । রথীগণ সেনাগণ নিদ্রায় কাতর ॥ দুৰ্য্যোধন ভয়ে কেহ না পারে যাইতে । হাতে অস্ত্র করি রথী পড়ি যায় রথে ॥ এতেক দেখিয়া তবে বীর ধনঞ্জয় । সৈন্যের দুর্গতি দেখি তাপিত হৃদয় ॥ ডাকিয়া বলেন পার্থ শুনহ বচন । আজিকার মত যুদ্ধ কর নিবারণ ॥ ক্ষুধায় তৃষ্ণায় সবে হুইল পীড়িত । এত শুনি সর্ববজন হৈল আনন্দিত । ধন্য ধন্য বলি পার্থে বলেন বচন । মহাধৰ্ম্মশীল তুমি ইন্দ্রের নন্দন ॥ দয়াশীল ধৰ্ম্মশীল তুমি মহাশয় । অচিরে হইবে পার্থ তোমার বিজয় ॥ এত বলি আনন্দিত হৈল সেনাগণ । নিদ্রাযুক্ত হ’য়ে সবে পড়ে সেইক্ষণ ॥ রণস্থলে পড়িলেন হইয়া কাতর। রথিগণ প’ড়ে গেল রথের উপর ॥ গজেতে মাহুত পড়ে অশ্বে আসোয়ার । ভূমিতলে পড়ে সৈন্য শবের আকার ॥ রাজগণ পথে পড়ে মৃতপ্রায় হৈয় । রতন মুকুট সব পড়িল খসিয়া । কন্দপ সমান রূপ কোমল শরীর । । রূপবন্ত বলবন্ত সবে মহাবীর ॥ বিনা খাট পালঙ্ক স্থনিদ্র। নাহি হয় । রাজচক্রবত্তী সবে রাজার তনয় ॥ স্বর্ণ প্রদীপ জ্বলে রত্নগুহ মাঝে । কুহুম শয্যায় নিদ্র যায় মহারাজে ॥ মনোহর নারীগণ করয়ে সেবন । এমন করিলে নিদ্রা যায় কদাচন ॥ হেন সব রাজপুত্র নবীন যৌবন। রণস্থলে নিদ্রা যায় হয়ে অচেতন ॥