পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৬৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্রোণপৰ্ব্ব । ] আনন্দ মুদিতোল্লাস লীলান্দোলিতলোচনাং । \bo তি বাণ এড়ে বীর পূরিয়া সন্ধান । অর্জনের পশ্চাৎ করি দেব নারায়ণ ।মুনিয়ে করেন পার্থ তাহ খান খান ॥ বুক পাতি আপনি দিলেন সেইক্ষণ ॥ t iন ব্যর্থ দেখি তবে ভগদত্ত বীর । &দর উপরে মারে চৌষটি তোমর ॥ জুকার করি পড়ে অর্জন উপর । নবারিতে না পারেন পার্থ ধনুৰ্দ্ধর ॥ নবাতে হইলেন অর্জন অস্থির । রক্তর স্রোতে বহে অঙ্গের রুধির ॥ চেতন হইলেন রথের উপর । ক্রাধ করি তখন কহিল দামোদর ॥ ক হেতু অশক্ত তোমা দেখি আজি রণে । ন্য মন কর তুমি কিসের কারণে ॥ তিজ্ঞ করিলে ভগদত্ত মারিবারে । বে কেন অচেতন হৈলা একেবারে ॥ গদত্তে ক্ষয় কর এড়ি দিব্য বাণ । দেখ কুরুকুল সব প্রফুল্ল বদন ॥ কৃষ্ণের বচনে পার্থ লজ্জিত হইয়া । দিব্য অস্ত্র যুড়িলেন ধনু টঙ্কারিয়া ॥ গগন ছাইয়া বান এড়েন তখন । মুষল ধারাতে যেন বর্ষে নবঘন ॥ অস্ত্র বিন সৈন্যমধ্যে নাহি দেখি আর । দিবসে হইল যেন ঘোর অন্ধকার ॥ শীঘ্ৰগতি ভগদত্ত পূরিয়া সন্ধান । নিমিষেকে নিবারিল অর্জনের বাণ ॥ তবে কোপে ভগদত্ত কহে অৰ্জুনেরে । এই আস্ত্রে ধনঞ্জয় বিনাশিব তোরে ॥ দেখিব কেমনে অস্ত্র কর নিবারণ । এত বলি ভগদত্ত করয়ে তর্জন ॥ বৈষ্ণব নামেতে বাণ বসাইল চাপে । সূত্ৰ দেখি দেবগণ ইন্দ্র আদি কঁপে ৷ সন্ধান পুরিয়া বীর এড়িলেক বাণ । চলি বৈষ্ণব অস্ত্র অনল সমান ॥ দেখিয়া বৈষ্ণব বাণ দেব নারায়ণ । স্থিতি হইলেন অৰ্জ্জুন কারণ ১ جستا-اس-جتمی কৃষ্ণের শরীরে আসি লিপ্ত হুৈল বাণ । দেখি যত যোদ্ধাগণ হৈল কম্পমান ॥ এতেক দেখিয়া পার্থ লজ্জিত বদন । কৃতাঞ্জলি করিয়া করেন নিবেদন ॥ অৰ্জ্জুন বলেন দেব কর অবধান । কি কারণে হৃদয়ে ধরিলা তুমি বাণ ॥ কোন কাজে নূ্যন তুমি দেখিলা কখন । এবে অস্ত্র ধর তুমি কিসের কারণ ॥ শ্ৰীকৃষ্ণ বলেন সখে কহিল প্রমাণ । তোমা হৈতে নিবারণ নহে এই বাণ ॥ বৈষ্ণব অস্ত্রের তুমি না জান মহিমা । মহাতেজোময় অস্ত্র নাহি তার সীমা ॥ অৰ্জ্জুন বলেন কৃষ্ণ কহিব। আমারে । হেনমত অস্ত্র কেবা দিলেক উহারে ॥ নিবারণ নহে অস্ত্র কিসের কারণ । ইহার বৃত্তান্ত মোরে কহ নারায়ণ ॥ শ্ৰীকৃষ্ণ বলেন পার্থ কহি তব স্থান। চারি মুৰ্ত্তি মম তুমি জানহ প্রমাণ ॥ এক মুর্তি তপস্যা করেন অনুক্ষণ । আর মূৰ্ত্তি ত্রিভুবন করয়ে পালন ॥ আর মুর্তি ধরি স্বষ্টি করি যে স্বজন । অন্তরূপে এক মূৰ্ত্তি সংসার কারণ ॥ নরক পাইল অস্ত্র আমার সদনে । তাহা হ’তে পায় পৃথ্বী, সে দিল নন্দনে ॥ পৃথিবীর পুত্র ভগদত্ত মহারাজা । অস্ত্রে শস্ত্রে বিচক্ষণ বলে মহাতেজ ॥ এই অস্ত্র প্রতাপে জিনিজ ভূমণ্ডল । ভগদত্ত সহ সখ্য কৈল আখণ্ডল ॥ কদাচিৎ ব্যঙ্গ যদি সুম চক্র হয় । অব্যৰ্থ বৈষ্ণব বাণ কভু ব্যর্থ নয় ॥ এতেক শুনিয়া পার্থ লজ্জিত অওর । পুনরপি পার্থকে কহিল গদাধর । এড়িল বৈষ্ণব অস্ত্র ভগদত্ত বীর । এইকালে কটিতি কাটা তার শির ॥,