পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৬৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শল্যপৰ্ব্ব । ] চতুভুজাং ত্রিনেত্রাস্ত পঞ্চবাণধনুর্ধরাং ॥ ۹ور রাশ করহ শল্যে কেন কর ব্যাজ । নিৰ্ভয়ে পড়িল গিয়া তাহার শরীরে । উপরোধ নহে ধৰ্ম্মরাজ ॥ শল্যের অমুজ বীর পড়ে ভূমিপরে ॥ মহাভারতের কথা অমৃত লহর । কণীরাম কহে শুনিলে তরয়ে ভববারি ॥ শল্য খৰ । যুধিষ্ঠির বলিলেন মাতুল পীড়িত। প্ৰহারের কাল কৃষ্ণ নহেন উচিত । গোবিন্দ বলেন রিপু পাই যবে পাশ । কালাকাল নাহি চাহি করি যে বিনাশ ॥ ঘাছার মরণে ভদ্ৰে দেখি মহারাজ । আছে বিনাশিতে দোষ নাহি যুদ্ধমাঝ ॥ গোবিন্দ বচনে শক্তি ল’য়ে যুধিষ্ঠির । ঢাকিয় বলেন রে সামাল মদ্রবীর ॥ শুনি শল্য ধমুকেতে বাণ যোড়ে বেগে । ভীম আদি বাণ, কাটে রহি চারিদিকে ॥ স্থঙ্কারে ছাড়েন শক্তি ধৰ্ম্মের নন্দন । লক্ষ্মণেরে শক্তি যেন এড়িল রাবণ ॥ গোবিন্দ রহেন তবে শক্তিশেল মুখে। গগনে আগুন উঠে ঝলকে ঝলকে ॥ দেখি তাহা শল্য বীর বাণেতে তৎপর। শক্তি নিবারিতে বাণ এড়িল সত্বর ॥ শক্তিতে ঠেকিয়া বাণ খণ্ড খণ্ড হয়। দ্য বলে মোর আজি জীবন সংশয় ॥ ড়িলেক শক্তি আসি শল্যরাজ বুকে । rক্তি ঘায়ে শল্য পড়ে সংগ্রাম সম্মুখে ॥ নিছাড়িল শল্য পাইয়া বেদন । সমরে পড়িল শল্য কটকে ঘোষণা ॥ fরীজামুজ আসি শোকেতে মিলিল । "রাজ সহিত সংগ্রামে প্রবেশিল ॥ Fাণ বৃষ্টি করি ধৰ্ম্মরাজে আচ্ছাদিল । দিকে শরবৃষ্টি অন্ধকার হৈল । fর বাণ কাটে দোহে বলবান । জনা এড়ে দেশহে পুরিয়া সন্ধান । দেখি মনে মনে চিন্তিত হইয়া । ষ্টির বাণ এড়িলেন বিশোবলী মন্দ্ররাজে ধৰ্ম্মরাজ রণেতে পাড়িল । সংগ্রামের স্থলে বহু কোলাহল হৈল । সমরে পড়িল শল্য হৈল কলরব । কৌরববাহিনী ভঙ্গ সানন্দ পাণ্ডব ॥ পাণ্ডব দলেতে সবে করে সিংহনাদ । শুনি কুরুদলে হৈল বড়ই বিষাদ ॥ মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ শকুনি বধের উপক্ৰমে নানা যুদ্ধ । সেনাগণে আশ্বাসিয়া কহে দুর্য্যোধন । অগ্র হয়ে যুঝ শক্র করিব নিধন ॥ জয় পরাজয় মৃত্যু দৈবের ঘটন। যথা ধৰ্ম্ম তথা জয় ৰেদের বচন ॥ এত বলি কুরুপতি রথ আরোহণে । পখেতে ভেটিল আসি ভীমসেন সনে । মহামত্ত হস্তী যেন করিছে গর্জন । দুই সিংহে মিলি যেন করে মহারণ ॥ ভীম ডাকি বলে এস কুরু কুলাধম । করিলে সকল নাশ কৃরি পরাক্রম n এবে বুদ্ধি বল কর্ণ গেল সব কোথা । দুঃশাসন দুৰ্ম্মতি মরিল দুষ্ট ভ্রাত ॥ দেখিয়া না দেখ চক্ষে তুমি অন্ধমতি । কুলান্তক তোমাকে স্বজিল প্রজাপতি ॥ রণে ক্ষমা দিয়া এবে ভজ ধৰ্ম্মরাজে। জীবনের আশা যদি মনে কর কাজে । নতুবা চলহ যথা ভীষ্ম দ্রোণ কর্ণ। দুই পথ কহিলাম ধাহাতে প্রসন্ন । দুৰ্য্যোধন বলে ভীম সহ পরিবারে। শমন-সদনে আজি পাঠাব তোমারে ৪ বারে বারে অপমান কৈল নানামতে । এখন পূরিল কাল চল যমপথে । দ্ৰৌপদীর অপমান পাসরিল কেৰে। কিরাত সমান হয়ে ফিরিলা কাননে।