পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৬৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ు"8 গুণাতীতং গুণত্রয় সমম্বিতম্ ॥ Tমহাভারত সম্বোধিয়া দেবগণে, কহিল সরল মনে, দেবগণ কর অবধান ॥ . ভারত মঙ্গল কথা, শুনিতে খণ্ডয়ে ব্যথা, - সকলের কলুষ বিনাশ । 拿 গদাপৰ্ব্ব স্বধাধার, ব্যাসের বচন সার, পাঁচালী রচিল কাশীদাস ॥ দধীচির অস্থিতে বঞ্জ নিৰ্ম্মাণ । গোবিন্দ কহেন শুন সকল দেবতা । খণ্ডিরে সকল দুঃখ দূর হবে ব্যথা ॥ আমার অবধ্য বৃত্ৰ শুন দেবগণ । ’ আমার পরম ভক্ত শুনহ বচন । দধীচি মুনির অস্থি আন সৰ্ব্বজন । তাহাতে করহ অস্ত্র বজ্র স্বগঠন • লেই অস্ত্রে বৃত্ৰাস্কর হইবে নিধন । এই তার বধোপায় আছে নিরূপণ ॥ শুনি ইন্দ্র কহিতে লাগিল যুড়ি কর । দধীচি ছাড়িবে কেন নিজ কলেবর ॥ অনেক পুণ্যেতে হয় মনুষ্যের কায় । নিজ কায় কেমনে ছাড়িবে মুনিরায় ॥ তাহাতে ব্রাহ্মণ অঙ্গ শ্রেষ্ঠতম গণি । ব্রাহ্মণ-শরীর হৈলে মুক্ত হয় প্রাণী ॥ চৌরাশী সহস্ৰ যোনি ভ্রমণ করিয়া । পশ্চাৎ ব্রাহ্মণ জন্ম লভয়ে আসিয়া ॥ কৰ্ম্মক্রমে পারে যদি সাবধান হ’তে । দুই জন্মে মুক্ত হয় কহি বেদমতে ॥ .কহ প্ৰভু ইহার বিধান অনুসারে । কোনমতে নিধন করিল বৃত্ৰাস্বরে ॥ গোবিন্দ কহেন শুন সকল দেবতা । দধীচির পূৰ্ব্বেকার কহি এক কথা ॥ পরম দয়ালু মুনি উপকারে রত। পর উপকারে প্রাণ ত্যজে অতি দ্রুত ॥ স্বৰ্গ বৈদ্য অশ্বিনীকুমার দুই জন । উপাসনা হেতু গেল দধীচি সদন ॥ অনেক বিনয়ে স্তব কৈল মুনিবরে। সদয় হইয়া মুনি জিজ্ঞাসে দোহারে ॥ কি হেতু আইলে দোহে আমার সন_ কি কাৰ্য্য সাধিব শীঘ্ৰ কহ দুই জন ॥ আপনার প্রাণ দিলে যদি কাৰ্য্য হয় । অবশ্য কর্তব্য এই কহিমু নিশ্চয় ॥ অশ্বিনীকুমার বলে শুন মুনিবর। তোমার হইব শিষ্য দুই সহোদর ॥ শুনিয়া কছেন মুনি করিব অবশু । উপদেশ দিয়া দোছে করি লব শিষ্য ॥ অঙ্গীকার করি আমি নাহিক সংশয় । আজি দিন ভাল নহে যাহ নিজ গৃহ ॥ এই বাক্য শুনি দোহে প্রণাম করিয়া । আপন ভবনে গেল বিদায় হইয়া ॥ এ কথা শুনিয়া ইন্দ্র নারদের স্থানে । তখনি গেলেন দধীচির সন্নিধানে ॥ ইন্দ্রেরে দেখিয়া মুনি করিল আদর। পাদ্য অর্ঘ্য আসনেতে পূজিল বিস্তর ॥ সন্তুষ্ট হইয়া ইন্দ্র বসেন আসনে । দধীচি জিজ্ঞাসে তারে মধুর বচনে । কিবা হেতু আগমন হৈল সুরেশ্বর । কি কাৰ্য্য সাধিব আজ্ঞা করহ সত্বর ॥ পুরন্দর কহে শুন মুনি মহাশয় । হেথায় অসিয়াছিল অশ্বিনীতনয় ॥ শুনিলাম আপনি করাবে উপাসনা । এই হেতু আইলাম করিতে যে মান ॥ তবে যদি তাহারে করিবে তুমি শিষ্য। তোমার মস্তক আমি কাটিব অবশু ॥ ইন্দ্রের শুনিয়া কথা কহে মুনিবর । শিক্ষণ নাহি দিব বিদ্য জেনে পুরন্দর ৷ এত শুনি বিদায় হইল স্বরপতি । জিজ্ঞাসেন জন্মেজয় মুনিবর প্রতি ॥ ইহার কারণ মুনি বলহু আমারে । ইন্দ্র কেন নিষেধ করিল দধীচিরে ॥ কোন শাস্ত্রে বড় ইন্দ্র অশ্বিনীকুমারে । বিশেষ করিয়া মুনি কহিৰা আমারে । মুনি বলে শুন পরীক্ষিতের নন্দন । যে হেতু নিষেধ করে সহজলোচন ।