পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૧૭8 কুমতিনে দক্ষং মবােৰ গামি। [बशङङ्गड । এক আত্মা জগতের হন নারায়ণ । বৃষ্টিবিন্দু জল যদি পারল্পে গণিতে । আত্মা তুষ্ট হৈলে তুষ্ট ব্রহ্ম সনাতন ॥ তথাপি তাহার পুণ্য না পারি বলিতে ॥ ষটচক্র কথা রাজা শুন দিয়া মন । সৰ্ব্বভুতে মাত্মারূপে স্থিত নারায়ণ ॥ চতুর্থ অদ্ভুত দল প্রথমে গণিবে। দ্বিতীয়েতে অষ্টদল উপরে বর্ণিবে ॥ তৃতীয়েতে শতদল তাহার উপরে। সুক্ষরূপে বৈসে জীব তাহার ভিতরে ॥ মাঝেতে কেশর চতুর্দিকে কণিকার । জীব আত্মা স্থিত তথা পদ্মের আকার ॥ তদন্তে অদ্ভুত চক্র চতুর্থ উপর। শতদল তাহার ভিতর ॥ পঞ্চশত দল জীব মধ্যে কণিকার । কহিব তাহার কথা করিয়া বিস্তার ॥ তদন্তরে শতচক্র দলের নির্মাণ । দেব মুনিগণ করে যাহার বাখান ॥ চতুর্দিকে সূক্ষরূপে দলের গাথনি । স্বহস্তুে বিধাতা তাহ নিৰ্ম্মাণ আপনি ॥ চতুর্দিকে কণিকার মধ্যেতে কেশর। সূক্ষরূপে তাহে উপবিষ্ট দামোদর ॥ তার তিন ভাগ মধ্যে বৈসে নারায়ণ । স্বসিদ্ধ সজ্ঞান ভক্তি লভে যেই জন ॥ শরীরেতে আত্মারূপে বৈসে নারায়ণ । তপ ব্রত ফলে তার কোন প্রয়োজন ॥ রাজা বলে মুনিবর কহিলে প্রমাণ । মম পূৰ্ব্বজন্ম কথা কর অবধান ॥ চতুর্দশী মহাব্ৰত বিখ্যাত সংসারে । ইহার পুণ্যের কথা কে কহিতে পারে ॥ অজ্ঞানে সজ্ঞানে নর উপবাস করি । সমাছিত হ’য়ে পূজা করে ত্রিপুরারী ॥ বিশ্বপত্র ধুস্তর কুহুম রাশি রাশি । রক্তচন্দনাদি নানা গন্ধে বস্ত্র ভূষি । পূজা ভক্তি করি স্তব করে পঞ্চাননে । তাহার পুণ্যের কথা কি কব বদনে ॥ পৃথিবীর রেণু যেবা গণিবারে-পারে । । সরোবর জল যদি কলসীতে ভরে ॥ পূর্বে ব্যাধকুলে জন্ম আছিল আমার। স্বস্বর আছিল নাম মহা কুরাচার ॥ পরদ্রব্য পরবৃত্তি করি আপহার । অধৰ্ম্মেতে রত ছিনু বিখ্যাত সংসার ॥ মৃগ ব্যাঘ্র আদি পশু নানা পক্ষীগণ । যতেক করিমু বধ না যায় লিখন ॥ সেইরূপে নির্বাছিমু কতেক দিবস । একদিন অরণ্যে গেলাম দৈববশ ॥ কুজটিতে অন্ধকার দেখিতে না পাই। একেশ্বর ঘোর বনে ভ্ৰমিয়া বেড়াই ॥ ভ্ৰমিতে ভ্ৰমিতে হৈল দিবা অবসান । আসিতে না পারি গৃহে হইনু অজ্ঞান ॥ ঘোর অন্ধকার নিশি চতুর্দশী দিনে । ক্ষুধা তৃষ্ণাযুক্ত আমি ভ্ৰমি একা বনে ॥ | জমিতে ভ্ৰমিতে তথা হৈল ঘোর নিশি । বিহুৰূক্ষে আরোহিমু মনে ভয় বালি ॥ নিত্য নিত্য মৃগয়া করিয়া যাই ঘরে । নগরে বেচিয়া আনি দিই পরিবারে ॥ তবেত ভক্ষণ করে ভাৰ্য্য পুত্ৰগণ । উপবাসী রহি আজি দৈবের কারণ ॥ " মম মুখ চাহি আছে ভাৰ্য্যা পুত্ৰগণ । ধনহীন নরজন্ম হয় অকারণ ॥ ভ্ৰাতৃ বন্ধু অনেক আছয়ে জ্ঞাতিগণ । সবে ধনবান আমি দরিদ্র দুর্জন ॥ উপবাসী গৃহে আছে ভাৰ্য্যা পুত্ৰগণ । কেহ না চাহিবে ধনহীনের কারণ ॥ - এইরূপে হৃদয়েতে করিয়া চিন্তন । আকুল হইয়া বহু করিমু ক্ৰন্দন ॥ অজ্ঞজল পড়ি মম ভাসে কলেবর । পঙ্কপত্র ছিল এক বৃক্ষের উপর ॥ পত্র পড়ে মম অজ্ঞজলের সহিত । আচম্বিতে একপত্র পড়িল ত্বরিত ॥ তাহাতে সন্তুষ্ট হন দেব পঞ্চান । নিরাহারে সেই রাত্রি করিমু বঞ্চন