পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চন্দ্র বলে মম পুত্ৰ কস্তা এ হুইল । আমার ঔরসে জন্ম জানয়ে সকল । ३५ीश्च बलेन च ख छ्रॆ खत्र । জানিয়া সকল তত্ব দেব পদ্মাসন । পত্ৰগতি সেই স্থলে করিল গমন । দ্বন্দ্ব নিবারণ হেতু কহেন বচন । আমার বচনে দ্বন্দ্ব কর নিবারণ । এই কস্য পুত্রেরে জিজ্ঞাস বিবরণ ॥ যাহার ঔরসে জন্ম কহিবে কাহিনী । এত শুনি জিজ্ঞাসা করিল নিশামণি ॥ নন্দিনী কহিল দেব কর অবধান । যার ক্ষেত্র তার পুত্র শাস্ত্রের বিধান ॥ এত শুনি ক্রোধেতে বলিল শশধর । মম শাপে নরলোকে হও লোকান্তর । নরলোকে গিয়া জন্ম লভহ পাপিনী । নীলধ্বজ ঔরসেতে জন্মিবে নন্দিনী ॥ সেইক্ষণে লোকান্তর হইল তাহার । তবে চন্দ্র জিজ্ঞাসিল চাহিয়া কুমার ॥ কহ সত্য জন্ম তব কাহার ঔরসে । মিথ্যা না কহিবা সত্য কহিবা বিশেষে ॥ এত শুনি করযোড়ে বলল্পে বচন । তোমার ঔরসে জন্ম তোমার নন্দন ॥ এত শুনি পুত্রে চন্দ্র করিল চুম্বন । কোলে করি নিজ গৃহে লইল নন্দন ॥ বুধ ব’লে নাম তাঁর ঘোষয়ে জগতে । তারারে লইয় গুরু গেল ধৈর্য্য চিতে ॥ সত্যলোকে প্রজাপতি করিল গমন । খণ্ডন না যায় কণ্ডু চন্দ্রের বচন । মহাভারতের কথা অমৃত লহরী। কাশী কহে শুনিলে তরয়ে ভববারি ৪ চন্দ্রকেতু রাজার স্বত্যু । ভীষ্মদেব বলিলেন শুন নরপতি । কতদিনে যুবতী হইল চন্দ্রাবতী ॥ ভুবনে বিখ্যাত নীলধ্বজ নরবর। কস্তার যৌবন দেখি দিল স্বল্পশ্বর n · | পৃথিবীর রাজগণে ধরিয়া আনিল । ইন্দ্রের সমান সভা শোভিত হইল । একে একে কস্তা নিরখিল রাজগণে । চন্দ্রকেতু ভূপে দেখি পীড়িত মদনে ॥ গলে মাল্য দিয়া তারে করিল বরণ । কম্বা ল’য়ে গেল রাজা আপন ভবন । গুণে মহাগুণী রাজা প্রতাপে তপন । শীলতায় চন্দ্ৰ যেন তেজে বৈশ্রেবণ ॥ এক ভার্ষ্য বিনে রাজা অস্য নাছি জানে । উৰ্ব্বণী সহিত যেন বুধের নন্দনে ॥ চান্দ্রায়ণ মহাব্ৰত আচরে নৃপতি । নিরাহারে একমাস ভাৰ্য্যার সংহতি ॥ যেই দিন হৈতে ব্ৰত সাঙ্গ সমাধান । সেই দিনে চন্দ্রাবতী করে ঋতুস্নান ॥ চন্দ্রাবতী রূপে দীপ্তি মোছে ত্রিভুবন । , দেখিয়া নৃপতি মন পীড়িল মদন ॥ ব্রত ভঙ্গ করি রাজা করিল রমণ । বহুমতে চন্দ্রাবতী করিল বারণ ॥ কামে বশ হয়ে রাজা না শুনিল বাণী । সেই পাপে পঞ্চত্ৰ পাইল নৃপমণি ॥ স্বামীর মরণে কম্বা কান্দিল অপার । ধৰ্ম্মকেতু নামে তার হইল কুমার ॥ পাত্র মিত্ৰগণ কত করিয়া যুকতি । রাজদণ্ড দিয়া তারে করিল নৃপতি । ভীষ্ম বলিলেন শুন ধৰ্ম্মের নন্দন । চন্দ্রকেতু রাঙ্গ যদি ত্যজিল জীবন ॥ দুই যমদূত আলি করিল বন্ধন । চন্দ্রকেতু নৃপে নিল যমের ভবন ॥ কপট করিয়া যম জিজ্ঞাসিল তারে । তোমা সম নাহি কেহ ধাৰ্ম্মিক সংসারে ॥ কিছুমাত্র জল্প পাপ আছয়ে তোমার। ব্রতসাঙ্গ দিনে ভূমি করিলে শৃঙ্গর । এত শুনি বলে রাজা ভাবি নিজ চিত্তে । অল্প পাপ থাকে যদি ভুঞ্জিৰ অগ্ৰেতে ॥ ধৰ্ম্মরাজ বলে জন্ম গৃগ্রের ঘোনিতে - হানপক্ষী হয়ে থাক কৌণ্ডিস্ক পুরেতে s ~vors