পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ԳՆ-8 রবির ধ্যান—ওঁ ক্ষত্ৰিয়ং কাশ্যপং রক্তং কালিঙ্গং । [ মহাভারত । নমো নমো নারায়ণ ব্ৰহ্ম সনাতন । সংসারের হেতু রূপ দেব নারায়ণ ॥ তুমি আদি তুমি মধ্য তুমি অন্তরূপ । সকল জগত এই তব লোমকুপ ॥ নমোনমঃ আদি অবতার মৎস্যকায় । নমো নরসিংহ হিরণ্যাক্ষ বিদারয় ॥ নমো কুৰ্ম্ম অবতার নমস্তে বামন । নমো ভূগুপতি ক্ষত্ৰকুলবিনাশন ॥ নমে রাম অবতার রাবণনাশক । নমো রাম অবতার রেবতী নায়ক ॥ নমো কৃষ্ণ অবতার গোকুলবিহার । নমো নমঃ সঙ্কর্ষণ দিব্য অবতার ॥ নমো কল্কি অবতার মেচ্ছবিনাশন । নমো নমে। জয় জয় আদি নারায়ণ ॥ তুমি ইন্দ্র তুমি চন্দ্র তুমি দিবাকর । আকাশ পাতাল তুমি দীর্ঘ কলেবর ॥ আত্মারুপে চরাচর জীবে তব স্থিতি । তব তত্ত্ব জানিবারে কাছার শকতি ॥ এ ভব-সংসারে পার কর নারায়ণ । এত স্তুতি করি ভীষ্ম ধ্যানে দেন মন ॥ মহারতের কথা অমৃতের ধার । কাশীদাস দেব কহে রচিয়া পয়ার ॥ ভাষ্মদেবের স্বর্গারোহণ । ধ্যানযোগে সাক্ষাতে দেখেন নারায়ণ । নবজলধর তনু অরুণ লোচন ॥ পীতবাস পরিধান বনমালাধারী |" নানা অলঙ্কারে রূপ ভূষিত মুরারী ॥ চারু চতুভুজ রূপ মোহন মুরতি । দেখি ভীষ্ম মনে মনে করিলেন স্তুতি ॥ সাক্ষাতে পদারবিন্দ দেখিয়া নয়নে । শরীর ত্যজেন ভীষ্ম দেখে দেবগণে ॥ জয় জয় শব্দ হৈল ইন্দ্রের নগরে । পুষ্পবৃষ্টি কৈল দেব ভীষ্মের উপরে ॥ দিব্য রথ পাঠাইয়া দিল স্বরপতি । পবনের গতি রথ মাতলি সারথি । রথেতে তুলিয়৷ স্বর্গে করিল গমন । বন্ধুগণ সহ গিয়া হইল মিলন ॥ চিরদিনের বন্ধুসনে হইল দর্শন । সন্ত্রম খণ্ডিল পূর্ব জন্মের কথন ॥ মুনি বলে অবধান কর জন্মেজয় । স্বগেতে চলিল ভীষ্ম গঙ্গার তনয় ॥ মাঘমাসে শুক্লাষ্টমী তিথি শুভদিনে । ত্যজিলেন তীষ্ম তনু চিন্তি নারায়ণে ॥ শরীর ত্যজেন ভীয়ু দেখি যুধিষ্ঠির । রোদন করেন ভুমে লোটায়ে শরীর । ভীমাৰ্জ্জুন সহ কান্দে মাদ্রীর নন্দন । অনিরুদ্ধ প্রত্যুম্নাদি যত বন্ধুগণ ॥ দ্বিজ ক্ষত্র আদি কত নগরের প্রজ । রণ অবশেষে আর যত ছিল রাজা ॥ ভীষ্মের মরণে সবে অনেক কান্দিল । প্রলয়ের কালে যেন সিন্ধু উথলিল ॥ যুধিষ্ঠির আদি পঞ্চ পাণ্ডুর কুমার। হাহা ভীষ্ম বলি কান্দে করি হাহাকার ॥ কোথা গেল পিতামহ ছাড়িয়া আমারে । তোমার বিচ্ছেদে আত্মা ধরি কি প্রকারে দুৰ্যোধন পাতক করিল আকারণ । তাহার কারণে হৈল তোমার নিধন ॥ আপনি মরিল দুষ্ট জ্ঞাতি বিনাশিল । শোক-সিন্ধু মধ্যেতে আমাকে ডুবাইল । এত বলি কান্দে পঞ্চ পাণ্ডুর কুমার । তথা আসিলেন ব্যাস জানি সমাচার ॥ কুরুক্ষেত্র মধ্যে যথা ভীষ্মের পতন । তথfকারে করিলেন ত্বরিত গমন ॥ ব্যাসে দেখি সন্ত্রমে উঠিয়া পঞ্চজন । সন্ত্রমে করেন তার চরণ বন্দন ॥ ধূলাতে ধুসর তত্ব নেত্রে ঝরে বারি । সাম্ভন করেন ব্যাস সবারে নিবারি ॥ নিস্ফল তোমরা সব করহ ক্রমদন । ৯ কত না বুঝান ভীষ্ম গঙ্গার নন্দন ॥ যোগমার্গ ইতিহাস পুরাণের সার । তবু না ঘুচিল ভ্ৰম তোম। সবাকার ॥