পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- - - స్ప్లి ఃI్య - వ్రైట్స్తో " . . . . .* ختفسمصجبتفتتتض -1: চমকিত হন সবে রাক্ষস দর্শনে ॥ । যোড়হন্তে ভীষণ জিজ্ঞাসে সমাচার । কি কারণে আগমন হইল তোমার ॥ পুরোহিত বলে শুন রাক্ষসের পতি। আজি বড় হৈল মম আনন্দিত মতি ॥ স্মরণ হইল এক অপূৰ্ব্ব কথন । অশ্বমেধ যজ্ঞ কৈল রাজা দশানন । তাহাতে মনুষ্য মাংস খাইমু বিস্তর। স্ত্রী পুত্রাদি সবাকার পূরিল উদর ॥ তুমিহ করহ আজি যজ্ঞ নরমেধ । তোমার প্রসাদে ঘুচে নরমাংস খেদ ॥ লম্বোদরী নিশাচরী সম্মুখে দেখিল। ভীষণ রাক্ষস তীরে পাঠাইয়া দিল ॥ . নরবেশে যাহ তুমি সৈন্যের ভিতরে । , জেনে এস কেবা প্রবেশিল মম পুরে ॥ ভীষণের আজ্ঞ পেয়ে হইল মানুষী । সৈন্ত্যেতে প্রবেশ গিয়া করিল রাক্ষসী ॥ একে একে সবাকারে কৈল নিরীক্ষণ । সম্মুখে দেখিল হনু পবননন্দন ॥ । হনু দেখি ভয় তার জন্মিল অন্তরে। তত্ত্ব ল’য়ে শীঘ্ৰ গেল ভীষণ গোচরে ॥ লম্বোদরী বলে শুন রাক্ষসের পতি । কটক চচ্চিয় এমু যেমত শকতি ॥ অৰ্জুন প্রধান তাহে পাণ্ডুর নন্দন । আইল যজ্ঞের ঘোড়া করিতে রক্ষণ ॥ মহা মহা বীরগণ দেখিলাম তাতে । হনুমান দেখিলাম অর্জনের রথে ॥ ঘটোৎকচ স্থত মেঘবর্ণ মহাবলী । পাণ্ডব মিলনে অতি হয়ে কুতুহলী ॥ কিন্তু হনুমান দেখি উপজিল ভয় । সংগ্রামেতে কাৰ্য্য নাহি জানাই তোমায় ॥ : হানিল গদার বাড়ি ভীষণ রাক্ষসে ॥: দৈৰে প্ৰাণ পেরে সেই পলায় জালেঞ্জ {যুদ্ধ মেশি ছয়মানে জামনারঞ্জি

হনুমান দেখি মনে বড় হস্থ শঙ্কা । . হনুমান ৰৈতে প্ৰভু ৰাপ লৈ লক্ষ । ు. షి: బ్లొ ; it; কামদেব বৃষকেতু আদি शेक्सिल’ . .

ভাল হৈল পিতৃবৈরী জাইল আপনি । নিশ্চয় বধিব আজি ভীমের গরাণী ॥ বক নামে মম পিতা বিদিত সংলায়ে। ভীমাৰ্জ্জুন মম শত্রু বিনাশিল তারে । রাক্ষসের বৈরী বটে বীর হনুমান । । নিশ্চয় বধিব আজি ভীমের পরাণ ॥ । সাজ সাজ বলি ডাকে ভীষণ রাক্ষস । যুদ্ধ হেতু নিশাচর করিল সাহস " বৃষকেতু কামদেব বরিষয়ে শর। বিন্ধিয়া রাক্ষসগণে করিল জর্জর ॥ যুবনাশ্ব অনুশাল্ব বরিষয়ে বাণ । নীলধ্বজ হংসধবজ করয়ে সংগ্রাম ॥ মেঘবর্ণ সহদেব স্থবেশ সহিত । যুঝয়ে রাক্ষসগণ মনে নাহি ভীত ॥ অৰ্জুন যুড়েন বাণ পূরিয়া সন্ধান । নানা মায়া ধরে সেই রাক্ষস প্রধান ॥ . মেঘরাপ হ’য়ে করে বাণ বরিষণ । - বাণেতে অর্জন তাহ করে নিবারণ ॥ " বৃক্ষ শিলা পৰ্ব্বত বরিষে নিশাচর। " বৃষকেতু বাণ এড়ি কাটয়ে সত্বর ॥ ক্রুদ্ধ হৈল ভীমসেন রাক্ষসের বাণে । , গদা হাতে ধায় বীর শঙ্কা নাহি মনে ॥ ৭ কালদগুসম গদা হাতেতে করিয়া । , ভীষণেরে মারিলেন সাহস করিয়া ॥ ভীমের গদার বেগ কে সহিতে পারে। মূৰ্ছাগত নিশাচর দারুণ প্ৰহারে - ভীষণ রাক্ষস"ণ্ডবে সাহস করিয়া । - অৰ্জ্জুনের শিরে মারে মুষল ফেলিয়া । , মোহ যায় ধনঞ্জয় মুঘলের স্বাতে ।. তাহা দেখি জীমসেন ধায় গদা হাণ্ডে"