পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মিত্র মোর ধৃতরাষ্ট্র কৌরবের পতি। অৰ্জ্জুন মারিল তার শতেক সন্ততি ॥ একথা শুনিয়া চত্তে দুঃখ উপজিল । অর্জন নিধনে মম আনন্দ হইল । না দিব অমৃত মণি কহিনু তোমারে। বক্রবাহনের শক্তি কি করিতে পারে ॥ মারিল বান্ধব বন্ধু গুরু ধনঞ্জয়। সেই পাপে নষ্ট হৈল পাণ্ডুর তনয় ॥ নরলোকে কদাচিত মণি না রাখিব । কত জীব জীবে বলি এ মণি রাখিব ॥ গরুড়ের ভয়ে মোরা না পাব নিস্তার। মণি নাহি দিব শুন বচন আমার ॥ আমার সম্মতি নহে শুন নাগরায় । তবে সে তোমার চিত্তে যেমত যুয়ায় ॥ আমরা যতেক নাগ না দিব সম্মতি । সত্য কহিলাম কথা শুন নাগপতি ॥ অনন্ত বলেন কথা শুন নাগগণ । ধৰ্ম্মপথ আচরিব শুনহ কথন । অৰ্জ্জুন পাইলে প্রাণ মণির মিলনে । স্বর্থী হবে নারায়ণ একথা শ্রবণে ॥ কৃষ্ণগ্রীতে স্থখ মোক্ষ চতুৰ্ব্বৰ্গ পায়। মণি দিয়া রক্ষা কর পাণ্ডুর তনয় ॥ শুন ধৃতরাষ্ট্র ভূমি আমার বচন । মণি নাহি দিলে পার্থ পাইবে জীবন ॥ সখা যার নারায়ণ মৃত্যু নাছি তার। . মণি দিয়া যশ তুমি রাখ আপনার ॥ হে বক্রবাহ হাতে পাবে অপমান । ত্য কছিলাম আমি তোমা বিদ্যমান ॥ গমন্ত্রী ধৃতরাষ্ট্র নাহি দিল মণি । গুরীক মুখে তাহা বক্রবাহ শুনি ॥ লুপী বলিল পুত্র কি হবে উপায়। মণি আনিবারে তুমি চলহু তথায় ॥ ক্রবাহ বলিলেন সম্প্রীতে না পাব। ੋਨ੍ਹੋਂ nằi. বলি ৰজ্ঞৰাছ সাজনু করিল। । রথ আরোছিয়া বীর পাতালে চলিল n · বাম্বকী না দিল মণি জানিয়া রাজন। । মণি না পাইর রাজা অতি ক্রুদ্ধমন ॥ প্রবেশিল পাতালেতে যুদ্ধের কারণে। তাহা দেখি দূত কহে রাজা-বিদ্যমানে ॥ দূতমুখে অনন্ত পাইল সমাচার। যুদ্ধ হেতু আসে চিত্ৰঙ্গদার কুমার ॥ অৰ্জুন-নন্দন বীর জানে নানা শিক্ষা । অপার বিক্রম তার নাহি কার’ রক্ষা ॥ ধৃতরাষ্ট্রে ডাকিয়া বলিল নাগপতি । বক্রবাহ হেথ এল কি করি যুকতি ॥ মণি নাছি দিলে তুমি আমার বচনে । পাতালে আইল সেই যুদ্ধের কারণে ॥ ধৃতরাষ্ট্র বলে মম কি ভয় মানুষে। বিনাশিব নৃপতিকে চক্ষুর নিমিষে ॥ " তাহার কারণ তুমি না চিন্তহু মনে । আমি যুদ্ধ করি রাজা বক্রবাহ সনে ॥ এত বলি বাস্থকীরে দিল সমাচার । , যুদ্ধ করিবারে আজ্ঞা হইল তাহার ॥ স্মরণে আনিল যত ছিল নাগগণ । | বক্রবাহনের সনে আরক্তিল রণ ॥ সে সব সংগ্রাম কথা কহিতে বিস্তর + . সংক্ষেপে কহিব আমি শুন নরবর। গজ বাজী পদাতিক করিয়া সংহতি । রণে প্রবেশিল বক্রবাহ নরপতি ॥ । } অনল সমান বাণ বরিষে রাজন । আগু হৈতে নাছি পারে ছিল যতজন ॥ বিষদন্তে নাগগণ দংশিবে যাহার। চক্ষুর নিমিষে সেই যায় যমঘরে । ধনুক ধরিয়া করে বাণ বরিষণ । অগ্নিবাণে পুড়িয়া মরিল নাগগণ । সৰ্প মনুষ্যেতে রণ অপূৰ্ব্ব কথন । বড় বড় নাগগণ হারায় জীৱন ॥ । বান্ধকী সংগ্রামে এল ক্রোধ করি চিতে।