পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অশ্বমেধপর্বব_ ]_ অশ্বমেধ পুণ্যকথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ ব্রাহ্মণবেশে ময়ূরধ্বজ রাজার সভায় কুধগঙ্গুনের গমন । পুত্রের বচন শুনি আনন্দ পাইল । আলিঙ্গন দিয়া রাজা পুত্রকে তুষিল ॥ শুভ সমাচর পুত্ৰ কহিলে আমারে । আইলেন নারায়ণ রত্নাবতীপুরে ॥ }র্থক তপস্ত মম হৈল এত দিনে । দেখিব পরমানন্দে কিরাটী মিলনে ॥ বান্ধিয়া রাখহ ঘোড়া মিলাইল বিধি । সবান্ধবে পরশিব কৃষ্ণ গুণনিধি ॥ র্যার পাদপদ্ম হৈতে গঙ্গার জনম | আইলেন মম পুরে সেই নারায়ণ ॥ নার পদ পরশে সানন্দ বহুমতী । মুনিগণ যার পদ ভাবে দিবারাতি ॥ হেন যাদবেন্দ্র আইলেন মম পুরে । পূৰ্ব্ব তপফলে আমি দেখিব তাহারে ॥ তুমি পুত্র আমার জন্মিলে শুভক্ষণে । কৃষ্ণ দরশন পাব কিরাটা মিলনে ॥ শুনিলাম তব মূখে যুদ্ধ বিবরণ । বাহুবলে পরাজিলে শ্রবক্রবাহন ॥ এক লক্ষ রাজ যার খাটে ছত্রতলে । তাহাকে জিনিলা তুমি নিজ বাহুবলে ॥ যুবনাশ্ব অনুশাস্ব বড় বারবর। তাহারে জিনিয়। তুমি করিলা সমর ॥ সাতকি ও বৃষকেতু বড় বলবান । তাহাকে জিনিলা তুমি বিক্রমে প্রধান ॥ পরাজিল রতিনাথে আশ্চর্য্য কথন । কিরীটী তোমার বাণে হল অচেতন ৷ এ সব আশচর্য্য কথা শুনে লাগে ভয় । একেলা করিলা তুমি সবাকারে জয় ॥ পাণ্ডব বান্ধব করিবেন আগমন । অশ্ব হেতু গোবিন্দের দেখিব চরণ ॥ > 06–39అ - l সৰ্ব্বলক্ষণ সম্পন্নাছ গনোম্নভপয়োধরাম্T_

  • ...*

এত বলি আনন্দ পুলকে নরপতি । সমাজ করিল পাত্ৰ-মিত্রের সংহতি ॥ পুনঃ আলিঙ্গনে পুত্রে তোষে নৃপৰ্ব্ব । ' সিংহাসনে বসিলেন সভার ভিতর ॥ হেথা জনাৰ্দ্দন যুক্তি বিচারিল মনে । দ্বিজরুপ হইলেন অর্জুনের সনে ॥ বৃদ্ধ বিপ্ররূপ হইলেন নারায়ণ । রাজারে করিতে কৃপা করেন গমন ॥ খুiঙ্গ পুথি কাখে শিষ্যরূপ ধনঞ্জয় । নৃপতির স্থানে যান হইয়া নির্ভয় ॥ সমাজ করিয়৷ রাজা আছেন যেখানে । তথা উপনীত কৃষ্ণ অভঙ্গুনের সনে ॥ ব্রাহ্মণ দেখিয় রাজ উঠিল সহরে । প্ৰণমিয়া পাদ্য অর্ঘ্য দিল দ্বিজবরে ॥ ঘোড়হাত হ’য়ে রাজ বলেন বচন । কি হেতু আইলে তুমি কহ বিবরণ ॥ রাজার বচন শুনি দেব নারায়ণ । কপট করিয়৷ কৃষ্ণ কহেন বচন ॥ শুনহ ভূপতি মম দুঃখের কাহিনী । কহিতে বদনে মম নাহি সরে বাণী ॥ কৃষ্ণশৰ্ম্ম নামে দ্বিজ তোমার নগরে । পুত্রের সম্বন্ধ আমি কৈতু তার ঘরে ॥ বিবাহ দিবস দৈবে নিকট হইল । নিমন্ত্রণ ইষ্টবন্ধু কুটুম্ব আইল ॥ বর ল’য়ে আসিতে ছিলাম হরধিতে । দৈবে এক সিংহ আসি আগুলিৰ পথে ॥ মম পুত্ৰ খাইবারে চাহিল কেশরা । ভয়ে আমি কহিলাম ঘোড়হাত করি ॥ আমারে ভক্ষণ কর ছাড়িয়; পুত্রেরে। এক পুত্র বিনা আর নাহিক সংসারে ॥ পুত্ৰশোক সহিতে না পামিব যে আমি । শুন সিংহ আমারে ভক্ষণ কর তুমি ॥ সিংহ বলে তব মংসে প্রাতি নাহি পাব ।

নবান কোমল মাংস পট পুরে খাব ৷

তপস্যায় শুষ্ক মাংস তোমার শরীরে ।

থাইতে নারিব আমি কহিমু তোমারে ॥