পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কেশরা কহিল এই নিষ্ঠর বচন । তবে সে পাইব আমি আমার নন্দন । পরকাল তরিবারে এত যত্ন করি । পুত্র বিন নিদানে নরকে ঘুরে মরি ॥ অতএব মাগিলাম এ ভিক্ষ তোমারে । কাতর না হ’য়ে অৰ্দ্ধ অঙ্গ দেহ মোরে ॥ দক্ষিণাঙ্গ দিয়া হে পুরাও অভিলাষ । পরিণামে তোমার হইবে স্বৰ্গবাস ॥ শিখিধ্বজ বলে আৰ্দ্ধ অঙ্গ দিব আমি । ক্ষণেক বিলম্ব কর দ্বিজবর তুমি ; রাজ বলে তাত্মধ্বজ আর রহ কেনে । করাতে চিরহ আমা সব বিদ্যমানে ॥ বসিল ময়ুরধ্বজ পূৰ্ব্ব মুখ হৈয়া । নবীন তুলসীমালা গলায় পরিয়া ॥ স্নান করি তাম্ৰধ্বজ জননীর সনে । হাতেতে করাত নিল আনন্দিত মনে ॥ ব্রাহ্মণের আজ্ঞা পুনঃ ল’য়ে যোড়হাতে । করাত দিলেন তবে জনকের মাথে ॥ অৰ্দ্ধ অঙ্গ রাজা দেয় উঠিল ঘোষণা । দেখিতে আইল যত নগরের জন ॥ শিশু বৃদ্ধ যুবা কেহ না রহিল ঘরে । স্ত্রী পুরুষ উপনীত নৃপতির পুরে । পথে যেক্তে পরস্পর কহে কোনজনে । আপনারে নাশে রাজা ধর্মের কারণে ॥ কেহ বলে ধন্য ধন্য শিখিধ্বজ রায় । রাজতনু দিয়া রাজা স্বৰ্গপুরে যায় ॥ কেহ বলে ক্লেশ বিনা নাহি হয় ধৰ্ম্ম । কেহ বলে নৃপতি করিল বড় কৰ্ম্ম ॥ অনিত্য শরীর এই বিচারিয়া মনে । আপনার অঙ্গ রাক্ত দিলেন ব্রাহ্মণে । চল চল দেখি গিয়া ভূপতি সাহস । ভুবন ভরিয় রাজা রাখিলেন যশ ৷ দূর হবে যত পাপ রাজ দরশনে । দেখিলে সাহস হয় সত্য জানি মনে ॥ এত বলি সকলেতে তথায় চলিল । ভূপতির পত্নী পুত্র করাত ধরিল । | শিথিধ্বজ বললেন শুন কুদ্বতী । আমাকে চিরিতে নাহি হবে দুঃখমতি ॥ করাত ধরহ আমি ভয় নাহি করি । চিরহ মস্তক মম শুদ্ধচিত্ত করি ॥ মাতাপুত্রে আনন্দিত নৃপতি বচনে। চিরিছে মস্তক তার কৃষ্ণ বিদ্যমানে ॥ অন্তৰ্য্যামী ভগবান জানেন সকল । বলেন ঈষৎ হাসি ভকতবৎসল ॥ আর অৰ্দ্ধ অঙ্গ মম নাহি প্রয়োজন । অশ্রদ্ধায় দান আমি না করি গ্রহণ ॥ কান্দিয়া অৰ্দ্ধেক অঙ্গ তুমি দিলা মোরে । এ দান লইয়া আমি নারি তরিবারে । না চিরিহ ভূপতিরে শুন রাজরাণী । কাতর হইলে দান নাহি লই আমি ॥ এত বলি নারায়ণ ধনঞ্জয় সাথে । সভা ত্যজি উঠিলেন আপনি ত্বরিতে ॥ কুমুদ্বতী বলে ভূপে যোড়হাত হৈয়া । না নিলেন দান বিপ্ৰ কিসের লাগিয়া । শুনিয়া কহিল রাজা প্রিয়ার বচন ।

কাতর দেখিয় দান না নিল ব্রাহ্মণ ॥

এত বলি রাজা বামনেত্রে জল ঝরে । যোড়হাত হ’য়ে বলে কপট দ্বিজেরে । বাম নয়নেতে মম দেখি জলধার । হৈলাম কাত্তর, মনে হইল তোমার ॥ তোমার সাক্ষাতে সত্য কথা কহি আমি । । করাতের ব্যথ নয় শুন দ্বিজস্বামী । যে কারণে আক্রপাত বাম নয়নেতে । তাহার কারণ আমি কহি যে তোমাতে ॥ দক্ষিণাঙ্গ তুমি মম করিলে গ্রহণ । অভিমানে বামচক্ষু করয়ে ক্ৰন্দন ॥ এই সে আমার দোষ কহি যে তোমারে । দক্ষিণাঙ্গ ল’য়ে তুমি যাহ ত সত্বরে ॥ হাসিয়া বলেন কৃষ্ণ শুন নরপতি । আমি তোমা পরীক্ষিনু কিরাট সংহতি ॥ তাত্মধ্বজ যুদ্ধে কত সম্বিত পাইয়া। আইলাম পার্থ সঙ্গে কপট করিয়t a