পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


്. মিশ্রিমিকপর্ব। ] ঐনিত্যানন্দ প্রভুর ধ্যান—বিদ্যদ্দোমমদাভিমর্দনরুচিং— ওহে মহাশয় পাণ্ডবের প্রাণদাতা । ভৃত্যগণ ডাকে তুমি উঠি কহ কথা ॥ বিষম সঙ্কটে রক্ষা কৈলে পুনঃ পুনঃ । বুধিষ্ঠির ডাকয়ে উত্তর নাহি কেন ॥ ওহে খুল্লতাত কেন না শুন শ্রবণে । কোন অপরাধে এত কোপ কৈলা মনে ॥ এইরূপে পঞ্চ ভাই করেন রোদন। দেখিলেন আকাশে থাকিয় দেবগণ ॥ দুই অপখি নিয়োজিল যুধিষ্ঠির পানে। বছরের তেজ নিঃসরিল সেই ক্ষণে ॥ দ্ধি রায় দেখায় যেন রবির কিরণ । যুধিষ্ঠির অঙ্গে লিপ্ত হইল তখন ॥ আকাশে অমরগণ পুষ্পবৃষ্টি করে। জয় জয় শব্দ হৈল অমর নগরে ॥ ভ্রাতৃগণে বলিলেন রাজা যুধিষ্ঠির । দ্বিগুণ হুইল তেজ আমার শরীর ॥ মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ লিঙ্কুরের দে ইত্যাগে সকলের পিলাপ এবং ব্যাসদেবের সাম্বন । বিদুরে লইয়া কান্দিছেন পঞ্চজন । হেনকালে আইলেন মুনি দ্বৈপায়ন । , মুনি দেখি প্ৰণমিল পঞ্চ সহোদর। খুল্লতাত বলি কান্দে সবে উচ্চৈঃস্বর ॥ প্ৰবোধিয়া মুনিবর কহেন বচন । অকারণে শোক কর ধৰ্ম্মের নন্দন ॥ আপনি কি নাহি জান রাজা যুধিষ্ঠির । তোমায় বিদুরে হয় একই শরীর ॥ খণ্ডিব্য মুনির শাপে ধৰ্ম্ম মহাশয় । বিছররূপেতে র্তার ক্ষিতেতে উদয় ॥ তুমিহ আপনি ধৰ্ম্ম জানিছ নিশ্চয় । অংশ হও তুমি ধৰ্ম্মের তনয় ॥ Sছরের তেজ যেই হুইল বাহির । সেইক্ষণে প্রবেশিল তোমার শরীর ॥ b-а Ф : কহিলাম তোমারে এ তত্ত্ব সমাচার। শোক মোহ দূর কর ধর্মের কুমার ॥ ব্যাপর বচনে পঞ্চ পাণ্ডুর কুমার। বিধিমত বিদুরের করেন সংকণর ॥ ধৃতরাষ্ট্রে আসিয়া কহেন সমাচার । মুছিত হইয়া পড়ে অস্বিকাকুমার ॥ আপনি ধরেন তারে ব্যাস মহামুনি । নানা কথা প্রবোধ কহেন তত্ত্ববাণী ॥ অন্ধ বলে বিছর ছাড়িয়া গেল মোরে । তথাপি রহিল মোর পাপ কলেবরে ॥ ভূর্য্যোধন শোক মম হৈল পাসরণ । কিরূপে বিছরশোকে বঁচিব এখন ॥ বিপরীত শব্দ হৈল পুনঃ সেই স্থলে । দেখিবারে বনবাসী আইল সকলে ॥ ধৃতরাষ্ট্র পাশে বসি ব্যাস মহামুনি । প্রবোধ করিয়া কহিছেন তত্ত্ববাণী ॥ অবধান কর রাজা পূর্বের্বর কাহিনী । দৈত্যভরে পীড়াযুক্ত হইল মেদিনী ॥ ধেনুরূপ ধরি গেল ব্ৰহ্মার সদন । কান্দিতে কান্দিতে ক্ষিতি করে নিবেদন ॥ দৈত্যভর আর আমি সহিতে না পারি। কি করিব আজ্ঞা দেহ সৃষ্টি অধিকারী ॥ শুনি ব্রহ্মা পৃথিবীরে আশ্বাসি তখন । ক্ষীরোদের তীরে গিয়া সহ দেবগণ ॥ প্ৰণমিয়া করপুটে করিলেন স্তুতি । তুষ্ট হয়ে প্রত্যক্ষ হইলেন শ্ৰীপতি ॥ দৈত্য বিনাশিতে যুক্তি করিয়া স্বজন । দেবগণে আদেশেন কমললোচন ॥ নিজ নিজ অংশে সবে হও অবতার । লীলায় করিব ক্ষয় পৃথিবীর ভার ॥ আপনি জন্মিব আমি বহুদেব ঘরে । নাশিব পৃথিবী ভার কহিনু তোমারে ॥ এত বলি স্বস্থানে গেলেন নারায়ণ । দেবগণ সহ ব্ৰহ্মা গেলেন ভবন ॥ দেবকীর গর্ভে জন্মিলেন নারায়ণ । অনন্ত অগ্রজ তার রেবতীরমণ ॥