পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৮৫৬ বিস্তীর্ণবক্ষঃস্থলং, প্রেমোদঘূর্ণিতলোচনাঞ্চললসৎ স্মেরাভিরম্যাননং। [ মহাভারত। ধৰ্ম্ম অংশ যুধিষ্ঠির ধৰ্ম্ম অবতার । বায়ু অংশে বৃকোদর পবনকুমার ॥ ইন্দ্র অংশে জন্মি লন বীর ধনঞ্জয় । অশ্বিনীকুমার দুই মন্দ্রিীর তনয় ॥ অগ্নি অংশে ধৃষ্টদ্যুম্ন পাঞ্চাল-নন্দন । লক্ষী অংশে পাঞ্চালী যে বিখ্যাত ভুবন ॥ আপনি আছিল তুমি গন্ধৰ্ব্বের পতি । তব পুত্র দুৰ্য্যোধন কলির আকৃতি ॥ অপর তোমার পুত্র রাক্ষস সকল । সূৰ্য্য অংশে জন্ম বীর কর্ণ মহাবল ॥ বহু অবতার ভীষ্ম তব জ্যেষ্ঠতাত । বিছর আপনি ধৰ্ম্ম শুন নরনাথ । বৃহস্পতি অংশে জন্ম দ্রোণ মহাশয় । রুদ্র অংশে কৃপাচার্য্য জানিহ নিশ্চয় । চন্দ্র অংশে অভিমন্ত্য অর্জন-কুমার । কহিনু তোমারে রাজা সৰ্ব্ব সমাচার ॥ এইরূপে অন্ধেরে কহেন মুনিবর । মায়ের নিকটে যান পঞ্চ সহোদর ॥ গান্ধারারে প্রণাম করেন পঞ্চজনে । আশীৰ্ব্বাদ কৈল দেবী প্রসন্নবদনে ॥ পুত্র কোলে করি কুন্তী করিল চুম্বন। প্রণাম করিল আসি যত বধূগণ ॥ এইমতে সৰ্ব্বজনে পুরিল কানন । হেনকালে কহিলেন মুনি দ্বৈপায়ন ॥ দ্বারকা নগরে আমি যাব শীঘ্ৰগতি । বরে কার্য্য থাকে যদি মাগ নরপতি ৷ বর মাগ থাকে যদি কিছু প্রয়োজন । অবশ্য যাইব আমি দ্বারক। ভুবন ॥ গান্ধারী সুবলহত শুনি হেন কথা । করযোড় করি বলে সতী পতিব্ৰতা ॥ কৃপার সাগর তুমি মুনি মহাশয় । তোমার মহিমা যত মুনিগণে কয় ॥ তোমার অসাধ্য দেব নাহি ত্ৰিজগতে । সে কারণে এক বর মাগি যে তোমাতে ॥ পুত্ৰশোক সম আর নাহি ত্রিভুবনে । শত পুত্র আমার সংহার হৈল রণে ॥ ────────ཟ། ། সেই শোকে দহে মম সকল শরীর । তিলেক না হয় ক্ষান্ত নয়নের নীর ॥ শোকের সাগরে ভাসি নাহিক উপায় । সে কারণে মুনিরাজ নিবেদি তোমায় ॥ একবার তাদের পাইলে দরশন । শোকসিন্ধু হৈতে তবে হইব মোচন ॥ প্রসবিয়া আমি না দেখিলু পুত্রমুখ । এই মম হৃদয়ে আছয়ে বড় দুঃখ ৷ এই বর মাগি দেব তব পদতলে । কৃপায় দেখাও মোরে তনয় সকলে ॥ অন্ধরাজ বলিলেন এই মনোনীত । কৃপা কর মুনিরাজ কহিনু নিশ্চিত । কুন্তীদেবী কহিছেন বুড়ি দুই কর । মম মনস্কাম সিদ্ধ কর মুনিবর ॥ কর্ণপুত্র নয়নে দেখিব একবার : অতিমনু ঘটোৎকচ পঞ্চপুত্র আর ॥ কৃপা করি দেখাও যদ্যপি মহাশয় । হৃদয়ের শেল মম তবে দূর হয় ৷ কিবা কব মুনিরাজ তোমার চরণে । সদা মম দগ্ধচিত্ত শোকের আগুনে ; দীনবন্ধু ভগবান যিনি অন্তৰ্য্যাম । তিনি তে সকল জ্ঞাত কি কহিব আমি : এমন অভাগী আমি জন্মেছিনু ভবে । কান্দিয় যে জন্ম গেল মৃত্যু হবে কবে । শ্বশুরকুলের অন্ত আমা হতে হৈল । আমি যে মহাপাতকী নাহি সমতুল । আমার মনের তুঃখ মনেতে রয়েছে । কাহারে কহিব সদা হৃদয় দহিছে ৷ তুমি সৰ্ব্ব সারাৎসার কৃপার সাগর । তুমি যে অকুল কর্তী মহিম। অপার ॥ ক্ষণেক যোগের বলে এই চরাচর ; পুনৰ্ব্বার করিবারে পার মুনিবর । সকল করিতে পার তুমি মহাঋষি । কহিতে সকল কথা অর্ণখি-নীরে ভগসি | বলিব বলিব বলি করিতেছি মনে । শোকেতে দহিছে অঙ্গ ন চাহি নয়নে ॥