পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মুঘলপৰ্ব্ব । ] ব্ৰহ্মাণীর ধ্যান—গৌরচন্দ্রমুখী পীন অক্ষমালা বিভূষণ । br\ునా পাণ্ডব তোমার প্রিয়বন্ধু বলি জানে । তাহাদের সর্বনাশ করিল যে জনে ॥ পুত্র মিত্র বন্ধু নাশিলেক যেইজন। নিদ্রিত জনেরে গিয়া করিল নিধন ॥ হেন জন হৈল তব পরম বান্ধব । ক্তগনিমু তোমার প্রিয় যেমন পাণ্ডব ॥ কপট করিয়া মজাইলে পাণ্ডবেরে । পরম কুটিল তুমি কে জানে তোমারে ॥ মহাভারতের কথা অমৃত লহরী । কাশীরাম দাস কহে ভবভয় তরি ॥ বহুকুল ধবংস ও বলদেবের দেহত্যাগ । এইরূপে বলাবলি হইল বিস্তর । গর্জিয়া উঠিল কৃতবৰ্ম্ম ধনুৰ্দ্ধর ॥ হাতে আসি করি যায়, কাটিবার আশে । গৰ্জ্জন করিয়া বলে বচন কর্কশে ॥ আরে দুরাচার পাপী শিনির নন্দন । এতেক তোমার গৰ্ব্ব না বুঝি কারণ ॥ গোবিন্দেরে নিন্দ কর দুষ্ট অধোগামী । ইহার উচিত ফল তোরে দিব আমি ॥ তুরিশ্রব ঢাল খাড়া লৈয়া বীর দাপে । কোন পরাক্রম কর এতেক প্রতাপে ৷ নৃপতি সমুহ মধ্যে কৈল অপমান । কোন লাজে ধর দুষ্ট এ পাপ পরাণ ॥ অপমান হৈতে মৃত্যু শ্রেষ্ঠ শত গুণে । ধিক্ ধিক্ আরে দুটি নিলাজ জীবনে ॥ আমারে নিন্দহ দুষ্ট-ন বুঝি কারণ । পাণ্ডবের সর্বনাশ কৈল কোনজন ॥ দ্রোণপুত্র প্রবেশিল শিবির ভিতরে । সকল করিল ক্ষয় দ্ৰোণি একেশ্বরে ॥ আমি দোহে আছিলাম দাণ্ডাইয়া দ্বারে । রে দুষ্ট আমারে গালি দেহ অহঙ্কারে ॥ এত বলি অলি ল’য়ে কাটিবারে ধায় । গৰ্জ্জিয়া সাত্যকি বলে জমদগ্নি প্রায় ॥ উচিত কহিতে ক্রোধ হইল তোমার । আমারে মারিতে এস আরে দুরাচার ॥ তোর দপ ঘুচাব কাটিব তোর শির। এত বলি আসি ল’য়ে ধায় মহাবীর ॥ অসির প্রহারে বীর কাটে তার শির। ভূমেতে লোটায় কৃতবৰ্ম্মার শরীর ॥ হাহাকার শবেদ ডাকে যতেক যাদব । মার মার বলিয়া ধাইল যত সব ॥ দেখিয়া অস্তুত কৰ্ম্ম সবিস্ময় মন । আত্ম আত্ম বিবাদী হইল সৰ্ব্বজন ॥ কৃতবৰ্ম্ম বধ হৈল দেখিয়া নয়নে । সাত্যকিরে মারিবারে ধায় যদুগণে ॥ নানা অস্ত্র ফেলি মারে সাত্যকি উপর । মুষলধারায় যেন বর্ষে জলধর ॥ স্নেহ করি কেহ হৈল সাত্যকির ভিত । অস্ত্র বৃষ্টি করে কেহ অতি ক্রোধচিত । সহোদরে সহোদরে হৈল দুই দল । মার মার শব্দেতে হইল কোলাহল ॥ প্রলয় সময়ে যেন উথলে সাগর। দেবাহরে হয় যেন যুদ্ধ ঘোরতর ॥ ঘোরতর গর্জন সঘনে সিংহনাদ । বঁাকে বীকে বাণ বৃষ্টি নাহি অবসাদ ॥ ধনুকে যুড়িতে বাণ বিলম্ব না করে । হাতে অস্ত্র বীর সব করয়ে প্রহারে ॥ অস্ত্রে অস্ত্র নিবারণ করে জনে জনে । সৰ্ব্ব অস্ত্র ক্ষয় হৈল অস্ত্র নাহি তুণে ॥ ক্রোধমনে যুদ্ধ করে নাহি অবসান । দাণ্ডাইয়া কৌতুক দেখেন ভগবান ॥ অদ্ভুত দেখিয়া রাম বিমগ্নবদন । বৃত্তান্ত জানিয়া স্থির হৈলেন তখন ॥ যুঝয়ে যাদবকুল আপন আপনি । খড়গ ল’য়ে কেহ কেহ করে হানাগনি ॥ ধনুকে ধনুকে যুদ্ধ অস্ত্র বরিষণ । ঝঞ্জন পড়য়ে যেন ভীষণ দর্শন ॥ ধনুক টঙ্কার শব্দে পুরিল গগন । ভয়ে ভীভ তিন লোক শুনিয়া গর্জন ॥ রণস্থলে গালাগালি করে ভাই ভাই । ইষ্ট বন্ধু কার’ পানে কেহ নাহি চাই ॥