পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৯৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SBBBBBBB BB SBBBB BBBBB BBBBBBBB B وت ليbبرb যেই পথে পঞ্চ ভাই আইসে পাণ্ডব । সেই পথ আগুলিয়া রছিল দানব ॥ অন্ধকার করিলেক বাণ বরিষণে । দেবতা বরিষে যেন আষাঢ় শ্রাবণে ॥ নানা বাণবৃষ্টি করে প্রচণ্ড কিরাত । পবন রুধির নাহি দেখি দীননাথ ॥ মহাসিংহনাদ করে শব্দ বিপরীত । দেখিয়া পাণ্ডবগণ হইল বিস্মিত ॥ মেঘনাদ দৈত্য জিজ্ঞাসিল যুধিষ্ঠিরে। কে তোমরা পঞ্চজন, যাবে কোথাকারে ॥ যুধিষ্ঠির বলিলেন দানব প্রধান । । চন্দ্রবংশ-সমুদ্ভব পাণ্ডুর সন্তান । ভ্রাতৃভেদে মম বংশ হইল সংহার ॥ অতএব স্বর্গপথে করি অগ্রসর ॥ আশীৰ্ব্বাদ কর রাজা তুমি পুণ্যবান । তোমার প্রসাদে দেখি প্রভু ভগবান ॥ তবে মেঘনাদ বলে শুন যুধিষ্ঠির । যুদ্ধ কর পঞ্চভাই না হও অস্থির ॥ যুদ্ধ নাহি দিয়া যদি করিব গমন । যাইতে নারিবা স্বগে শুনহ রাজন ॥ আমার সহিত যুদ্ধে যদি পাও প্রাণ । তবে স্বৰ্গপুরে তুমি করহ প্রয়াণ ॥ পৃথিবীতে শুনিয়াছি সোমবংশ হ’তে । নিঃক্ষত্র হইল ক্ষিতি ভীমাৰ্জ্জুন হাতে ॥ তিন কোটি কিরাত দানব তিনকোটি । ভীমাৰ্জ্জন কর দেখি যুদ্ধ পরিপাট ॥ দানবের ব৮uণতে হ’ল মনে দুঃখ । পঞ্চ ভাই যান, করি উত্তরেতে মুখ ॥ দেখিল পাণ্ডবগণ করিল প্রয়াণ । কুপিয়া দানব হ’ল অগ্নির সমান ॥ হাতে অস্ত্র করিয়া বেড়ায় চতুৰ্ভিত । দেখিয়া দ্রৌপদী দবা হৈল চমকিত n মেঘনাদ দৈত্য বলে যাক পঞ্চ ভাই । ইহা সবাকার ভার্য্য৷ আন মম ঠাই ॥ এত শুনি ধৰ্ম্মরাজ কিছু না বলিল । দ্ৰো পদারে দৈত্যগণ ধরিয়া লইল । দেখি বৃকোদর ধৰ্ম্মে ৰলে ডাক দিয়া । দ্ৰৌপদীরে দৈত্যগণ লইল ধরিয়া ॥ শুনিয়! চাহেন রাজা পাঞ্চালীর ভিতে । ক্রুদ্ধ হৈল বৃকোদর নারিল সহিতে ॥ জ্বলন্ত সুনল যে স্থতযোগে বুড়ে। অশেষ প্রকারে দৈত্যগণে গালি পাড়ে ॥ গদা নাহি শালবৃক্ষ দেখি বিদ্যমান । উপাড়িল বৃক্ষবর দিয়া এক টান ॥ নাড়া দিয়া পাতা ঝাড়ি হাতে নিল ডাল । ক্রোধ করি ধায় বীর ক্রুদ্ধ যেন কাল ॥ প্রহার করয়ে বৃক্ষ, ডাকে হীন হান । দেখি মেঘনাদ দৈত্য হ’ল কম্পমান ॥ ভীম বলে শুনরে কিরাত দৈত্যগণ । দ্ৰৌপদীরে ছাড়, যদি পাইবে জীবন ॥ ইহ বলি প্রহারিল দৈত্যের উপর । অসংখ্য কিরাত দৈত্য গেল যমঘর ॥ অবশেষে পলাইল লইয়া জীবন । মস্তক ভাঙ্গিল কার ভাঙ্গিল দশন ॥ দেখি মেঘনাদ বলে মনে ভয় পেয়ে । । তুমি রাজ্য কর হেথা নরপতি হ’য়ে ॥ প্রাণ রক্ষা কর, হের লহ তব নারী । এত বলি দৈত্যপতি পরিহার করি ॥ দেখি চিত্তে ক্ষমা দিল বার বৃকোদর। দ্রৌপদীকে ল’য়ে গেল ধৰ্ম্মের গোচর ॥ তুষ্ট হ’য়ে ধৰ্ম্মরাজ ভীমে দেন কোল । স্বৰ্গপথে যান রাজা মুখে হরিবোল ॥ মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীদাস দেব কহে শুনে পুণ্যবান ॥ দানলেশ্বর শিব দর্শন : মুনি বলে শুন পরীক্ষিতের নন্দন । চলেন উত্তরমুখে পাণ্ডুপুত্ৰগণ ॥ দানব ঈশ্বর শিব রচিত হ্রবণে । নানা ধাতু বিদ্যমান গাভে প্রতি বর্ণে। মস্তকে শোভিত মণি মুকুভার পাতি । অন্ধকারে দীপ্ত করে যেন দিনপতি ॥