পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৯০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বৰ্গারোহণপৰ্ব্ব । ] ১ নমামি বরদাং দেৰীং সৰ্ব্বলোক নমস্কৃতাম্ ॥ ها অতএব ক্ষমা মোরে দাও কন্যাগণ । পাঞ্চালীর পতন পৰ্ব্বত হরিনামে । স্বরপুরী যাব আমি যথা নারায়ণ ॥ অগ্রগামী রাজা না জানেন কোন ক্রমে ॥ যুধিষ্ঠির নৃপতির চরিত্র দেখিয়া । পাছে বৃকোদর পার্থ দেখি বিপরীত। পুনরপি কহে কন্যা ঈষৎ হাসিয় ॥ ডাক দিয়া যুধিষ্ঠিরে বলেন ত্বরিত ॥ বুদ্ধি নাহি কিছু তব ধৰ্ম্মের নন্দন । পাঞ্চালী পড়িয়া পথে ত্যজিল শরীর। কি মুখ পাইবা স্বর্গে দেখি নারায়ণ ॥ শুনি তবে আকুল হৈলেন যুধিষ্ঠির ॥ আমাদের সঙ্গে তুমি থাক নিরন্তর। মহাভারতের কথা রচিলেন ব্যাস । স্বগের অধিক ফল পাবে অতঃপর ॥ পাঁচালী প্রবন্ধে কহে কাশীরাম দাস ॥ যুধিষ্ঠির বলিলেন কৃষ্ণ সঙ্গ হৈতে । অন্য স্বখ নাহি ভাল লাগে মোর চিতে ॥ দ্রৌপদীর শোকে পাণ্ডবদের বিলাপ । শ্ৰীকৃষ্ণ বিচ্ছেদে মরি শুন কন্যাগণ যুধিষ্ঠির নৃপমণি, কোলে লৈয়া যাজ্ঞসেনী, অতএব যাব আমি অমর ভুবন ॥ কান্দিছেন সকরুণ ভাষে । রাজার বিনয় বাক্য শুনি নারীগণ । শোক দুঃখে অচেতন, আর ভাই চারিজন, বাহুড়িয়া নিবৰ্ত্তিয়া গেল সৰ্ব্বজন ॥ অশ্রুমুখে বৈসে চারিপাশে ॥ লীলাবতী কন্যা গেল পেয়ে মনোদুঃখ । দ্রৌপদীর মুখ চেয়ে, কান্দিছেন বিলাপিয়ে, পঞ্চ ভাই চলিলেন উত্তরাভিমুখ ॥ কোথা গেলে দ্রুপদনন্দিনী । - কত দূরে দেখিলেন পাণ্ডুর নন্দন । অজ্ঞাতে তোমার তরে, বুধিমু কীচক বীরে, । ভদ্ৰেশ্বর নামে লিঙ্গ অতি স্থশোভন ॥ তুমি পাণ্ডবের ধন মানি ॥ " ত্ৰৈলোক্য বিখ্যাত শিব অতি মনোহর । যেকালে দ্রুপদরাজে, পণ কৈল সভামাঝে, । নানা রত্বে বিরচিত প্রবাল প্রস্তর ॥ রাধাচক্র বিন্ধিতে যে পারে। তাহা দেখি পাণ্ডবের হরষিত মন । অযোনিসম্ভব কন্য, ত্রিভুবনে সেই ধন্থা, পঞ্চ ভাই করিলেন প্রণাম স্তবন ॥ সম্প্রদান করিবে তাহারে ॥ - স্নানদান করি সবে ফল পুষ্প লৈয়া । প্রতিজ্ঞা বচন শুনি, এক লক্ষ নৃপমণি, . পূজা করি স্তব করে চৌদিক বেড়িয় ॥ হুড়াহুড়ি বিন্ধিবার তরে। বর মাগিলেন অতি মনের কৌতুকে । দুর্জয় ধনুক ধরে, গুণ দিতে নাহি পারে, করিলেন যাত্রা সবে উত্তরাভিমুখে ॥ তবু বাঞ্ছা পাইতে তোমারে । , হরিনাম পৰ্ব্বতে করেন আরোহণ। রক্ত উঠে কার মুখে, কার হস্ত ঘাড় বাকে, ' দেখেন পৰ্ব্বতে মণি মাণিক্য রতন ॥ না পারিয়া ক্ষমা দিল সবে । ঐরাবত নামে হস্তী ফিরে পালে পালে। । চারিবর্ণে যে বিন্ধিবে, তারে রাজকঙ্কা দিবে, , দেব যক্ষ মরে, অঙ্গ ছিমেতে ভেদিলে ক্ৰপদ কছিল ডাকি তবে ॥ মহাহিমে শীত ভেদি যায় কত দুর। তোমা জিনি পঞ্চ ভাই,গেলাম জননী ঠাই, পাছে পড়ি দ্ৰৌপদীর অঙ্গ হৈল চুর ॥ ভিক্ষণ বলি মায়ে বলা গেল । o বিষম দারুণ হিমে শীর্ণ কলেবর। ন দেখিয়া ন শুনিয়া, জননী হরিষ হৈয়া, । মুছিত হইয় পড়ে পৰ্ব্বত উপর ॥ বাটি খাও পঞ্চজনে কৈল ॥ " অন্তকাল জানি দেবী চিত্তে নারায়ণ । | আজ্ঞা দিল মুনিগণে, বিভা কৈক্ষ পঞ্চজনে, স্বামীগণ মুখ চাহি ত্যজিল জীবন ॥ লক্ষীরূপ স্বন্দরী পাঞ্চালী ।