পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


     পুত্রান্ দেহি ধনং দেহি সর্ব্বান্ কামাংশ্চ দেহি মে।
 রজনী বঞ্চিয়া মুনি কৈল স্নানদান।
 প্রাতঃকালে সত্যবতী গেল তাঁর স্থান।।
 সত্যবতী বলে পুত্র কহ বিবরণ।
 ব্যাস বলে পালিলাম তোমার বচন।।
 মহাবলবন্ত মাতা হইবে কুমার।
 অযুত হস্তীর বল হইবে তাহার।।
 কেবল হইবে অন্ধ জননীর দোষে।
 শতপুত্র হইবেক তাহার ঔরসে।।
 সত্যবতী বলে পুত্র নহিল কারণ।
 কুরুকুলে অন্ধরাজা নহিবে শোভন।।
 আর এক পুত্র কর বংশের কারণ।
 অঙ্গীকার করি গেল ব্যাস তপোধন।।
 তবে দশমাস পরে ধৃতরাষ্ট্র হইল।
 যুগল নয়ন অন্ধ মুনি যাহা কৈল।।
 পুনরাপি অম্বালিকা কৈল ঋতুস্নান।
 পুনঃ ব্যাসে সত্যবতী করিল আবাহন।।
 পূর্ব্ব ভয়ে অম্বালিকা না মুদিল আঁখি।
 শরীর পাণ্ডুর বর্ণ হৈল মুনি দেখি।।
 তবে ব্যাস মহামুনি মায়েরে কহিল।
 আমারে দেখিয়া বধূ পাণ্ডুবর্ণ হৈল।।
 সে কারণে হবে পুত্র পাণ্ডুর বরণ।
 এত বলি গেল চলি ব্যাস তপোধন।।
 সত্যবতী বলে পুত্র কর অবধান।
 আর এক পুত্র দেহ গন্ধর্ব্ব সমান।।
 মায়ের বচনে ব্যাস স্বীকার করিল।
 অন্তর্দ্ধান হ'য়ে মুনি নিজ স্থানে গেল।।
 পুনরাপি আইল ব্যাস মাতার স্মরণে।
 ভয়ে অম্বালিকা নাহি গেল তার স্থানে।।
 সেবিকা আছিল তার পরমা সুন্দরী।
 পাঠাইল মুনিস্থানে সুবেশাদি করি।।
 নবীন বয়েস তার হয় শূদ্রজাতি।
 মুনির চরণে বহু করিল ভকতি।।
 সন্তুষ্ট হইয়া মুনি বলিল তাহারে।
 ধর্ম্মবন্ত পুত্র হবে তোমার উদরে।।
 পরম পণ্ডিত হবে নরেতে প্রধান।
 বর দিয়া গেল ব্যাস আপনার স্থান।।
 মুনিবরে গর্ভ তার হইল উৎপত্তি।
 আপনি জন্মিল তায় যম মহামতি।।
 মহাভারতের কথা শ্রবণে অমৃত।
 কাশীরাম কহে সাধু পিয়ে অবিরত।।
       ------
  বিদুরের জন্ম বিবরণ এবং ধৃতরাষ্ট্র, পাণ্ডু ও বিদুরের বিবাহ।
   জন্মেজয় বলে মুনি কহ বিবরণ।
 যম আসি জন্ম নিল কিসের কারণ।।
 মুনি বলে মাণ্ডব্য নামেতে মুনিবর।
 সত্যবন্ত যশোবন্ত ধর্ম্মেতে তৎপর।।
 জন্মাবধি তপ করে বৃক্ষমূলে বসি।
 উর্দ্ধ বাহু মৌনব্রত সদা উপবাসী।।
 হেনমতে চিরকাল আছে মুনিবর।
 দৈবে একদিন তথা নগর ভিতর।।
 চুরি করে নগরেতে চোরগণ যায়।
 নগররক্ষক তার পাছে পাছে ধায়।।
 পলাইতে নাহি পারে যত চোরগণ।
 মুনির আশ্রমে প্রবেশয়ে সর্ব্বজন।।
 তার পাছে আসে যত রাজচরগণ।
 মুনিরে দেখিয়া জিজ্ঞাসিল ততক্ষণ।।
 এই পথে অগ্রে অগ্রে চোরগণ এল।
 দেখিয়াছ মহাশয় কোন পথে গেল।।
 কিছু না বলিল মুনি ছিল মৌনব্রতে।
 হেনকালে দ্রব্য দেখে সেই আশ্রমেতে।।
 ভ্রমিতে ভ্রমিতে তথা দেখে চোরগণ।
 চোরগণে দেখি তবে করিল বন্ধন।।
 সেনাপতি তবে মনে করিল বিচার।
 ভাবিল সকল কর্ম্ম এই বামনার।।
 লোকে ভাণ্ডাইতে করে তপের আরম্ভ।
 ইহারে বন্ধন কর, না কর বিলম্ব।।
 চোরগণ সহিত বান্ধিয়া নিল তারে।
 চোর ধরিলাম বলি জানায় রাজারে।।
 রাজা আজ্ঞা দিল শূলে দেহ সর্ব্বজনে।
 নগর বাহিরে শূলে দিল ততক্ষণে।।