পাতা:কৃষিতত্ত্ব - নীলকমল লাহিড়ী.pdf/১২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

কৃষিতত্ত্ব । SS( আত্ম হরিদ্র। ইহাকে আম আদা বলে। । ইহার আবাদের জন্য স্বতন্ত্র কোন অনুষ্ঠান করিতে হয় না । আদা ও হরিদ্রার মত কাৰ্য্য করিলেই উৎপন্ন হয়। বন হরিদ্র । অনুসন্ধান করিলে ইহাও সামান্য জঙ্গল মধ্যে প্রাপ্ত হওয়া যায়। ইহা ভক্ষণকাৰ্য্যে উৎকৃষ্ট নয় । কপূর হরিদ্র। BDBSgDBB KD KSLDD DBBBD DDSS DDDB BDDB DBB KBD DDD SSDLBBS দেশে উক্ত প্ৰণালীতে আবাদ করিলে অনায়াসে উৎপন্ন হইতে পারে। পলাণ্ড পেঁয়াজ, পিয়াজ, ছোট পিয়াজ । কঠিন নীরস মৃত্তিকাতে উৎপন্ন হয় না। যে ক্ষেত্রে চিকুণ মৃত্তিকার ভাগ অত্যধিক ( আঠালু) তাহাতেও হয় না। বালির ভাগ অধিক চিকণ মৃত্তিকার ভাগ অল্প এরূপ দোয়াস মৃত্তিকা ইহার নিমিত্ত প্রশস্ত। পলি মৃত্তিকাতেও সামান্যরূপ উৎপন্ন হয়। ইহার ক্ষেত্রে সারা দেওয়া আবশ্যক। পচা গোময়ের সারা দিয়া ক্ষেত্র কর্ষণ করিতে হয় । চারা জন্মিলে গোড়ায় ও গাছের গাত্রে ছাই সার দেওয়া আবশ্যক। গোল আলুর নিমিত্ত যে প্রকার ভূমির প্রয়োজন ইহার নিমিত্ত প্ৰায় সেইরূপ উর্বর ভূমি মনোনীত করিবে । বঙ্গদেশের প্রায় সৰ্ব্বত্ৰেই ইহার অল্প বা বিস্তর আবাদ হয়। কাৰ্ত্তিক মাস রোপণের সময়। পুর্ব বৎসরের উৎপন্ন পিয়াজের মধ্যে বীজের জন্য যাহা রক্ষিত হয়, তাহার কোষ (কোয়া) সকল পৃথক করিয়া এক একটী কোয়া এক এক স্থানে রোপণ করিতে হয়। ফলের বীজে চার জন্মান যায় না । ক্ষেত্র উত্তমরূপে চাষ করিতে হয়। লাঙ্গল দ্বারা গভীর করিয়া মৃত্তিক বিদারণ করা আবশ্যক। ঢেলাদি ভাঙ্গিয়া মৃত্তিক চুর্ণবৎ করিয়া ঘাস মুখাদি বাছিয়া