পাতা:কৃষিতত্ত্ব - নীলকমল লাহিড়ী.pdf/১৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

80 কৃষিতত্ত্ব । ইহার কলমে চারজন্মান যায় না। বীজ রোপণ করিয়া চার জন্মাইতে হয়। ফল পাক হইলে পর অল্প দিনের মধ্যেই বীজ রোপণ করিতে হয়। বিলম্ব হইলে অন্ধুরোদগম হইয়া অন্ধুর শুষ্ক এবং নষ্ট হয় । যে স্থানে বীজ রোপণ করিবে, সেস্থান হইতে চারা তুলিয়া স্থানান্তরে লইয়া যাইবার প্রয়োজন হইলে গামলা আদি কোন পাত্রে চার জন্মান কৰ্ত্তব্য । আমের যে প্রক্রিয়া ইহারও সেই প্রক্রিয়া, প্ৰভেদ এই যে প্ৰতি বৎসর গোড়ায় অধিক সারা কি মৃত্তিকা দেয় না। কতক শিকড় মৃত্তিকার উপরে থাকিলেই ভাল হয়। গাছ অধিক তেজস্বী এবং শাখা পল্লব অধিক হইলে শীঘ্ৰ ফল জন্মে না এবং ফল জন্মিবার পরে তন্দ্ৰপ হইলে অধিক ফল উৎপন্ন হয় না । এরূপ হইলে বহু পত্ৰযুক্ত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শাখা সকল কৰ্ত্তন করিয়া ফেলা উচিত। বিশেষ যত্ন করিলে চারি পাঁচ বৎসরের মধ্যে ফল হয় । বৈশাখ হইতে শ্রাবণ মাস পৰ্য্যন্ত ক্ৰমে ফল পাক হয় । এই সময়েই বিস্তর পাক ফল পাওয়া যায় । তদ্ভিন্ন প্ৰায় সকল সময়েই অল্প পরিমাণে পাকা কাটাল পাওয়া যায়। কোন কোন গাছে বারমাসই ফল উৎপন্ন এবং পক্ক হয় । ইহাকে বারমেসে কাটাল বলে । ইহার পকা ফলের গুণ-সুমধুরত্ব, রক্তবৰ্দ্ধকত্ব, স্নিগ্ধত্ব, শীতলত্ব, দুর্জ বস্তু, বায়ুপিত্তনাশিত্ব, শ্লেষ্মশুক্রবল প্রদত্ব, গুরুত্ব, হৃদ্যত্ব, শ্রমদাহপিপাসান।াশিত্ব, রুচিকারিত্ব । অপক ফলের গুণ-কষায়ত্ব, স্বাদুত্ব, বায়ুকারিত্ব । বীজের গুণ-রক্তপিত্তনাশিত্ব, স্বাদুত্ব, ঈষৎকষায়ত্ব, মধুরত্ব, রুচিবায়ু বৃদ্ধিকারিত্ব, গুরুত্ব, ত্বগদোষনা শিত্ব, শুক্রবলরক্ত কারিত্ব। গুল্ম রোগী এবং মন্দান্ধি ব্যক্তির কাটাল ভক্ষণ করা নিষিদ্ধ। ইহার অপক ফলে উত্তম তরকারী হয়। পাক ফল অতিশয় সুখাদ্য সুমিষ্ট, বীজ সকল সিদ্ধ এবং তারকারী করিয়া ভক্ষণ করা যায় ।