পাতা:কৃষ্ণচরিত্র.djvu/১২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S BB BBBBB BB BBBB BBBBB BBS gB BBD DD DDDD DD DDD আবার ঈশ্বরে বিলীন হইবে। ইহা অদ্বৈতবাদেজবাদে পরিপূর্ণ i : , ? প্রাথমিক বৈজ্ঞা o f : o o . BBBBBBSBBBBBBBBS BBBBB BB BBBBB u DD DDD DDDBBB DD ভিন্ন ব্যাখ্যা করিয়া অদ্বৈতবাদ, বিশিষ্টাদ্বৈতবাদ, দ্বৈতাদ্বৈতবাদ এবং বিশুদ্ধাদ্বৈতবাদ—এই চারি প্রকার মত প্রচার করিয়াছেন। কিন্তু প্রাচীনকালে এত ছিল না। প্রাচীনকালে ঈশ্বর, এবং ঈশ্বরস্থিত জগতের সম্বন্ধ বিষয়ে দুই রকম ব্যাখ্যা দেখা যায়। প্রথম এই যে, ঈশ্বর ভিন্ন আর কিছুই নাই | ঈশ্বরই জগৎ, তদ্ভিন্ন জাগতিক কোন পদার্থ নাই। আর এক মত এই যে, জগৎ ঈশ্বর বা ঈশ্বর জগৎ নহেন, কিন্তু ঈশ্বরে জগৎ আছে—“সূত্রে মণিগণা ইব ।” ঈশ্বরও জাগতিক সৰ্ব্বপদার্থে আছেন, কিন্তু ঈশ্বর তদতিরিক্ত। প্রাচীন বৈষ্ণবধৰ্ম্ম এই দ্বিতীয় মতেরই উপর নির্ভর করে । দ্বিতীয় প্রধান দর্শনশাস্ত্র সাজ্য। কপিলের সাঙ্খ্য ঈশ্বরই স্বীকার করে না । কিন্তু পরবর্তী সাথ্যের ঈশ্বর স্বীকার করিয়াছেন। সাথ্যের স্থূলকথা এই, জড়জগৎ বা জড়জগন্ময়ী শক্তি পরমাত্মা হইতে সম্পূর্ণরূপে পৃথক। পরমাত্মা বা পুরুষ সম্পূর্ণরূপে সঙ্গশূন্ত ; তিনি কিছুই করেন না, এবং জগতের সঙ্গে তার কোন সম্বন্ধ নাই। জড়জগৎ এবং জড়জগন্ময়ী শক্তিকে ইহার প্রকৃতি’ নাম দিয়াছেন। এই প্রকৃতিই সৰ্ব্বশ্বষ্টিকারিণী, সৰ্ব্বসঞ্চারিণী, সৰ্ব্বসঞ্চালিনী, এবং সর্বসংহারিণী। এই প্রকৃতিপুরুষতত্ব হইতে প্রকৃতিপ্রধান তান্ত্রিকধর্মের উৎপত্তি। এই তান্ত্রিকধৰ্ম্মে, প্রকৃতিপুরুষের একত্ব অথবা অতি ঘনিষ্ঠ সম্বন্ধ সম্পাদিত হওয়াতে প্রকৃতিপ্রধান বলিয়। এই ধৰ্ম্ম লোকরঞ্জন হইয়াছিল। যাহারা বৈষ্ণবদিগের অদ্বৈতবাদে অসন্তুষ্ট, তাহার তান্ত্রিকধর্মের আশ্রয় গ্রহণ করিয়াছিল । সেই তান্ত্রিকধৰ্ম্মের সারাংশ এই বৈষ্ণবধৰ্ম্মে সংলগ্ন করিয়া বৈষ্ণৰধৰ্ম্মকে পুনরুজ্জল করিবার DD BBBBBBB BB DDDD BBBBBB BBD BBBBB BBB BBBBBBBB পুনঃসংস্কার করিয়াছেন। তাহার স্বই রাধা সেই সাখ্যদিগের মূলপ্রকৃতিস্থানীয়। যদিও ব্ৰহ্মবৈবর্ত পুরাণের ব্রহ্মখণ্ডে আছে যে, কৃষ্ণ মুলপ্রকৃতিকে স্থষ্টি করিয়া, তাহার পর রাধাকে